তানজিন তিশাকে ২৪ ঘণ্টার আল্টিমেটাম

বিনোদন ডেস্ক : সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে অভিনেত্রী তানজিন তিশার অপেশাদার আচরণ ও বক্তব্যের প্রতিবাদে রাজপথে সমবেত হলেন সাংবাদিকরা। মঙ্গলবার (২১ নভেম্বর) বেলা আড়াইটায় রাজধানীর কাওরানবাজারের সার্ক ফোয়ারার সামনে জড়ো হন টেলিভিশন, পত্রিকা, অনলাইন পোর্টাল ও রেডিওতে নিয়োজিত বিনোদন বিভাগের সংবাদকর্মীরা।

এসময় তারা বিনোদন সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে তানজিন তিশার অপেশাদার আচরণের নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান। একইসঙ্গে এই অভিনেত্রীকে প্রকাশ্যে ক্ষমা চাইতে ২৪ ঘণ্টার আলটিমেটাম বেধে দিয়েছে টেলিভিশন এন্টারটেইনমেন্ট জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (টেজাব)।

সংগঠনটির মুখপাত্র বুলবুল আহমেদ জয় বলেন, তানজিন তিশা ২৪ ঘণ্টার মধ্যে ক্ষমা না চাইলে আমরা তার সংবাদ প্রকাশ থেকে বিরত থাকব। পাশাপাশি তার বিরুদ্ধে পরবর্তী কর্মসূচি ঘোষণা করবো।

সিনিয়র সাংবাদিক তানভীর তারেক বলেন, আমি এ অভিনেত্রীর নাম ‍মুখে আনতে চাই না। তবে তার আচরণ খুবই অপেশাদার। তিনি সাংবাদিকদের উড়িয়ে দেওয়ার হুমকি তো দিয়েছেনই আবার ডিবি অফিসে গিয়ে ভিত্তিহীন অভিযোগ করেছেন। এর তীব্র নিন্দা জানাই। আর তিনি যদি দুঃখ প্রকাশ না করেন তবে আমরা তার সংবাদ প্রকাশ থেকে বিরত থাকব।

সিনিয়র সাংবাদিক নাজমুল আনম রানা বলেন, তিশার যদি কোনো অভিযোগ থাকে তবে সে আমাদের জানাতে পারতো। কিন্তু সেটা না করে সে হুমকি ধমকি দিয়েছে। পাশাপাশি ডিবি অফিসে গিয়ে অভিযোগ করেছে। চ্যানেল ২৪ তার বিরুদ্ধে মামলা করবে কিনা সেটা চ্যানেল কর্তৃপক্ষ বলবে। তবে আমি মনে করি তার এমন আচরণ অপেশাদার। সে যদি তার অপেশাদার আচরণের জন্য ক্ষমা প্রকাশ না করে তবে আমরা যে যার জায়গা থেকে সাংবাদিকরা তার সংবাদ প্রকাশ থেকে বিরত থাকব।

মূলত তানজিন তিশার সঙ্গে সাংবাদিকদের দূরত্বের সূত্রপাত হয় অভিনেত্রীর ‘আত্মহত্যাচেষ্টা’র খবর প্রকাশের মধ্য দিয়ে। ১৫ নভেম্বর মধ্যরাতে অচেতন তিশাকে তার বোন ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নেওয়ার পর এই খবরটি গণমাধ্যমে চলে আসে।

মূলত এরপরই তানজিন তিশা ঘটনাটিকে ‘শাক দিয়ে মাছ ঢাকা’র নানান চেষ্টা-অপচেষ্টা শেষে সর্বশেষ ২০ নভেম্বর ডিবি অফিসে গিয়ে সাইবার বুলিংয়ের অভিযোগ তোলেন এক বিরুদ্ধে। তারও আগে তিশা সাংবাদিকদের ‘উড়ায়ে’ দেওয়ার হুমকি দেন, আবার সামাজিকমাধ্যমে এর জন্য ক্ষমাও প্রার্থনা করেন।

অভিযোগ রয়েছে, সংগীত তারকা হাবিব ওয়াহিদের সংসার ভাঙার নেপথ্যে রয়েছেন তানজিন তিশা। আর শেষ ঘটনাটির সঙ্গে জড়িয়ে আছেন আরেক উঠতি অভিনেতা মুশফিক আর ফারহান।