বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

রাঙ্গুনিয়ায় ইছামতী খালে নিখোঁজ নানি-নাতির লাশ মিলেছে

প্রকাশিতঃ ১১ জুন ২০২৪ | ৭:১২ অপরাহ্ন


রাঙ্গুনিয়া (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি : চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়া উপজেলায় খাল পার হতে গিয়ে পানির স্রোতে নিখোঁজ হওয়া নাতির লাশ প্রায় ২৭ ঘন্টা পর আজ মঙ্গলবার (১১ জুন) বিকেল সাড়ে ৪ টার দিকে ইছামতী খালে পাওয়া গেছে। আর তাকে পাওয়ার দুই ঘন্টা পর সন্ধ্যা ৬ টার দিকে একই খালে মিলেছে নিখোঁজ নানির লাশও।

নাতি মো. ইসমাইল (১০) এর লাশ শিয়ালবুক্কা খালের যেখান থেকে নিখোঁজ হয়েছেন সেখান থেকে প্রায় আড়াই মাইল দূরে ইছামতী খালের দক্ষিণ রাজানগর ইউনিয়নের দক্ষিণ খন্ডলিয়াপাড়া এলাকায় পাওয়া যায়। আর নানির লাশ পাওয়া যায় ইছামতী খালের পারুয়া ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডের সৈয়দ নগর এলাকায়।

এর আগে গতকাল সোমবার বেলা সাড়ে ১২ টার দিকে উপজেলার ১নং রাজানগর ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ডের শিয়ালবুক্কা এলাকায় শিয়ালবুক্কা খাল পার হতে গেলে পানির স্রোতে নিখোঁজ হয় রোকেয়া বেগম (৪৫) এবং তার নাতি মোহাম্মদ ইসমাইল (১০)। রোকেয়া বেগম একই এলাকার বাসিন্দা।

ঘটনার পর থেকে স্থানীয়রা এই খাল এবং খাল যেখানে যুক্ত হয়েছে সেই ইছামতী খালেও খোঁজাখুঁজি করেন। পরে খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরাও ঘটনাস্থলে যান। তবে হঠাৎ বৃষ্টির কারণে খালের পানি বৃদ্ধি পাওয়া এবং পানির স্রোতের কারণে তারা অপেক্ষা করেন ডুবুরি দলের জন্য। বিকেলের দিকে ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দলও যায় ঘটনাস্থলে। তারাও উদ্ধার অভিযান চালায়। তবে গতকাল রাত পর্যন্ত অভিযান পরিচালনা করেও তাদের খোঁজ মেলেনি।

স্থানীয় ইউপি সদস্য ইউসুফ একুশে পত্রিকাকে বলেন, তারা খালের এপাশ থেকে পার হয়ে অপর পাশে চাষাবাদ করেন আর সেখানে গবাদি পশুও পালেন তারা। হঠাৎ শুনেন সেখানে পাগলা কুকুর তাদের গরুকে আক্রমণ করেছে আর এ খবর শুনেই গতকাল দুপুরে নাতিকে নিয়ে খাল পার হওয়ার সময় এই ঘটনা ঘটে। নাতি নানার বাড়িতে বেড়াতে এসেছিলেন। খালে পানির স্রোত থাকার কারণে তারা এক স্থানে নাও থাকতে পারে, অন্যস্থানে ভেসে যেতে পারে। তাই ঘটনার পর হতে তাদেরকে খুঁজতে খালের বিভিন্ন স্থানে লোকজন রাখা হয়েছিল। আর আজ খোঁজাখুঁজির এক পর্যায়ে বিকেল সাড়ে ৪ টার দিকে নাতির লাশ এবং সন্ধ্যা ৬ টার দিকে নানির লাশ ইছামতী খালে পাওয়া যায়।