- একুশে পত্রিকা - https://www.ekusheypatrika.com -

সমুদ্রতলের রেস্টুরেন্টে মানুষের আগ্রহ বাড়ছে

রোমাঞ্চকর পরিবেশের কারণে সমুদ্রতলের রেস্টুরেন্টের প্রতি মানুষের আগ্রহ বাড়ছে। বিশ্বের অনেক দেশে গভীর পানিতে হোটেলের স্বচ্ছ জানালা দিয়ে সামুদ্রিক মাছসহ নানা প্রাণী দেখা যায় এমন রেস্টুরেন্ট চালু আছে। তারা এখন আরও উন্নত পরিবেশ চায়। মানুষের এমন চাহিদার বিষয়টি মাথায় নিয়েই নরওয়েতে প্রায় সাড়ে ১৬ ফুট পানির নিচে তৈরি হচ্ছে রেস্টুরেন্ট। এটাকে ‘আন্ডার’ নামে ডাকা হবে।

সিএনএনের খবরে বলা হয়েছে, আন্ডারই পৃথিবীর সবচেয়ে বড় সমুদ্রতলের রেস্টুরেন্ট। যার কাজ শেষ পর্যায়ে রয়েছে। সম্পূর্ণ কাজ শেষ হলে এতে ১০০ জন অতিথি একইসাথে প্রবেশ করতে পারবেন। মোট ৫ হাজার ৩০০ স্কয়ার ফিট জায়গার ওপর নির্মিত ৩টি ফ্লোর বিশিষ্ট এই রেস্টুরেট থেকে ৩৬ ফিট গভীর সমুদ্রতলের পরিবেশ উপভোগ করা যাবে। ইউরোপের প্রথম সমুদ্রতলের এই রেস্টুরেন্ট লম্বায় ১১০ ফুট।

ধারণা করা হচ্ছে, ২০১৯ সালের বসন্তে আনুষ্ঠানিকভাবে এই রেস্টুরেন্ট সবার জন্য উন্মুক্ত করে দেওয়া হবে।

নরওয়ের এই রেস্টুরেন্টকে সাগরতলের রেস্টুরেন্ট বলা হলেও এর কাঠামোর কিছু অংশ পানির ওপরেও রয়েছে। তবে বেশিরভাগটিই পানির নিচে। অতিথিরা রেস্টুরেন্টে প্রবেশ করবেন কাঁচের তৈরি একটি রাস্তা দিয়ে।

আন্ডারের নির্মাণ সম্পর্কে কর্তৃপক্ষ জানায়, সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ১৬ ফুট গভীরে হওয়ায় নির্মাণের প্রথম সমস্যা ছিল পানির চাপ। কিন্তু সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ ছিল ঢেউ। এখানে তীব্র স্রোত ও ঢেউ রয়েছে। আর এগুলো মোকাবেলা করতেই ভবনটি কিছুটা বাঁকা করে তৈরি করা হয়েছে।