২৩ মে ২০১৯, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, বৃহস্পতিবার

বিমানবন্দর দিয়ে ইয়াবা পাচার হচ্ছে, অভিযোগ প্রবাসীদের

প্রকাশিতঃ শনিবার, জানুয়ারি ৫, ২০১৯, ১০:১০ অপরাহ্ণ


চট্টগ্রাম: ইমিগ্রেশন কর্তৃপক্ষ’কে ফাঁকি দিয়ে বিমানবন্দর দিয়ে মধ্যপ্রাচ্যসহ বিভিন্ন দেশে ইয়াবার মতো মাদকদ্রব্য পাচার করা হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন প্রবাসীরা।

শনিবার বিকেলে চট্টগ্রামে প্রবাসীদের সহায়তার জন্য হেল্পডেস্ক কার্যক্রমের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রবাসীরা এসব অভিযোগের কথা জানান।

প্রবাসীদের হয়রানি রোধে চট্টগ্রাম জেলা পুলিশ হালিশহরের জেলা পুলিশ লাইনে এই হেল্পডেস্ক চালু করে।

এর হটলাইন নম্বর হলো ৮৮-০১৭৬৯৬৯৪২৭৪। ই-মেইল এ্যাড্রেস spchittagong@police.gov.bd/dsbchittagong@police.gov.bd ও ফ্যাক্স নং- ০৩১৭২৬৮৬৪/০৩১৭২৬৮৬৬।

জেলা পুলিশ জানায়, যোগাযোগের এসব মাধ্যম ব্যবহার করে প্রবাসীরা সারা সপ্তাহ রাতদিন ২৪ ঘণ্টা সহায়তা পাবেন।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম জেলা পুলিশ সুপার নুরেআলম মিনা। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন দুবাই বঙ্গবন্ধু পরিষদের সভাপতি ইফতেখার হোসেন বাবুল, চট্টগ্রাম সমিতি ওমান শাখার সভাপতি ইয়াছিন চৌধুরী, জাপান প্রবাসী গাজী হাফিজ, কাতার প্রবাসী লেখক-সাংবাদিক সমিতির সভাপতি নুর মোহাম্মদ।

এছাড়াও অনুষ্ঠানে বক্তব্য প্রদান করেন ওমান প্রবাসী নিউরো-সার্জন ডা: নাজিম উদ্দিন, দুবাই প্রবাসী নুর আলম সিকদার, ওমান প্রবাসী মোসাদ্দেক চৌধুরী, আবুধাবী প্রবাসী আলাউদ্দিন, বঙ্গবন্ধু পরিষদ ওমান শাখার সাধারণ সম্পাদক জসিম উদ্দিন, আবুধাবী প্রবাসী নাসির তালুকদার, আরবআমিরাত প্রবাসী সেলিম উদ্দিন, কাতার বঙ্গবন্ধু পরিষদ সংগঠনের সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল জলিলসহ বিভিন্ন প্রবাসী নাগরিকবৃন্দ।

সভায় প্রবাসীরা তাদের বক্তব্যে চট্টগ্রাম জেলা পুলিশের এ উদ্যোগকে স্বাগত জানান। তারা প্রবাসীদের পরিবার পরিজনের নিরাপত্তা বিধান ও তাদের প্রয়োজনীয় আইনগত সহায়তা প্রদানের আবেদন করেন। বাংলাদেশ হতে ইমিগ্রেশন কর্তৃপক্ষকে ফাঁকি দিয়ে বিভিন্নভাবে মাদক বহি:র্বিশ্বে পাচার হওয়ায় দেশের সুনাম ক্ষুন্ন হচ্ছে এবং এজন্য ইমিগ্রেশন পুলিশ কর্তৃক বিদেশ গমনাগমনকারীদের লাগেজ ভালোভাবে স্ক্যানিং করার উপর গুরুত্বারোপ করেন।

তারা আরো বলেন, হুন্ডির মাধ্যমে বিদেশ হতে অর্থ প্রেরণ বন্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার অনুরোধ করেন। এতে দেশ বিপুল পরিমান রাজস্ব হতে বঞ্চিত হচ্ছে। তারা বৈধভাবে দেশে সর্বোচ্চ রেমিটেন্স প্রেরণকারী প্রবাসীদের যথাযথ সম্মাননা প্রদানের দাবী জানান।

দুবাই বঙ্গবন্ধু পরিষদের সভাপতি ইফতেখার হোসেন বাবুল তার বক্তব্যে প্রত্যেকটি থানায় প্রবাসী সহায়তা ডেস্ক চালু করার আহ্বান জানান।

তিনি আরো বলেন, প্রবাসী সহায়তা ডেস্ক চালু হলে প্রবাসীদের সাথে পুলিশের দূরত্ব কমবে।

চট্টগ্রাম সমিতি ওমান শাখার সভাপতি ইয়াছিন চৌধুরী বলেন, প্রবাসীরা অনেক কষ্ট করে বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন করে। প্রবাসীরা থানায় সমস্যা নিয়ে গেলে প্রয়োজনীয় সহায়তা প্রদান করার জন্য পুলিশ সুপারের নিকট অনুরোধ জানান।

এছাড়াও তিনি দেশের বিভিন্ন বিমান বন্দর দিয়ে ওমানসহ মধ্যপ্রাচ্যে মাদক পাচার রোধ করার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের অনুরোধ জানান।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে চট্টগ্রাম জেলা পুলিশ সুপার নুরেআলম মিনা বলেন, দলমত নির্বিশেষে সকল প্রবাসীদের কল্যাণে এ হেল্প ডেস্ক চালু করা হয়েছে। তিনি প্রবাসীদের এ হেল্প ডেস্কের সহায়তা নেয়ার অনুরোধ করেন।

চট্টগ্রাম জেলার ১৬টি থানা এলাকায় পর্যায়ক্রমে এ হেল্প ডেস্কের শাখা চালু করা হবে এবং প্রবাসীদের সমস্যা সমাধান ও নিরাপত্তা বিধানে চট্টগ্রাম জেলা পুলিশ সার্বিক আইনগত সহায়তা প্রদান করবে বলে আশ্বস্ত করেন পুলিশ সুপার।

তিনি বলেন, অনেকের ধারণা পুলিশের সব কাজ থানায়। থানার ওপরে আর কিছু নেই। সবার একটি ভুল ধারণা আছে। প্রতিটি থানায় একটি দুটি করে দুষ্ট লোক থাকে। অধিকাংশ ভালো। দুষ্টচক্র মানুষকে হয়রানি করে।

অবৈধ জিনিসপত্র বাংলাদেশ হতে বিদেশে পাচার বন্ধে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে বলেও জানান তিনি।