২৩ মে ২০১৯, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, বুধবার

‘প্রতিটি গ্রামে শহরের নাগরিক সুবিধা পৌঁছে দেয়া হবে’

প্রকাশিতঃ মঙ্গলবার, জানুয়ারি ৮, ২০১৯, ১১:২৬ অপরাহ্ণ


ঢাকা : স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম বলেছেন, আগামী ৫ বছর দেশের প্রতিটি গ্রামে শহরের সকল নাগরিক সুবিধা পৌঁছে দেয়া হবে।

তিনি বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলাদেশ গঠনে দেশের অবকাঠামো খাতে উন্নয়নের চমক থাকবে।’

মন্ত্রী আজ সচিবালয়ে তার অফিস কক্ষে প্রথম কর্মদিবসে স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তাদের সাথে অভিনন্দন জ্ঞাপন ও মন্ত্রণালয়ের কার্যক্রম অবহিতকরণ অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন।

অনুষ্ঠানে স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী স্বপন ভট্টাচার্য, স্থানীয় সরকার বিভাগের সিনিয়র সচিব এস এম গোলাম ফারুক এবং পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় বিভাগের সচিব মো. কামাল উদ্দিন তালুকদারসহ মন্ত্রণালয়ের উর্ধ্বতন কর্মকর্তা ও দপ্তর-সংস্থার প্রধানগণ উপস্থিত ছিলেন।

মন্ত্রী বলেন, ‘স্থানীয় সরকারকে শক্তিশালী করলে দেশ সুষম উন্নয়নের ছোঁয়া পাবে। বাংলাদেশ এখন অপার সম্ভাবনার দেশ। আমাদের বিশাল পরিমান জনসংখ্যা রয়েছে। এ জনসংখ্যাকে দারিদ্রের হাত থেকে মুক্ত করে জনসম্পদ হিসেবে ব্যবহার করলে ২০৪১ সালের পূর্বেই আমরা বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলায় পরিণত হবো।’

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দারিদ্রমুক্ত একটি সমৃদ্ধ জনপদে পরিণত হওয়ার লক্ষ্যে আমরা কাজ করছি। প্রতিটি গ্রামকে শহরে পরিণত করার অঙ্গীকার বাস্তবায়ন করার জন্য পরিকল্পনা গ্রহণ করেছি। গুণগত কাজ ও সম্পদের সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনার মাধ্যমে আমরা দেশে আগামী পাঁচ বছরে উন্নয়নে চমক দেখাতে চাই। সকল ধরণের উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়নে দুর্নীতির প্রতি ‘জিরো টলারেন্স’ নীতিতে আমরা কাজ করবো।’

তিনি কর্মকর্তাদের উদ্দেশ্যে বলেন, মানুষের অর্থনৈতিক মুক্তি ও উন্নত জীবন-যাপনের পবিত্র দায়িত্ব এ মন্ত্রণালয়ের উপর ন্যাস্ত। প্রজাতন্ত্রের কর্মচারীগণ দেশপ্রেম ও নিষ্ঠার সাথে এ দেশের দুঃখী জনগণের ভাগ্যোন্নয়নে কাজ করবেন।

পরে মন্ত্রণালয় ও অধীনস্ত দপ্তর-সংস্থার পক্ষ হতে মন্ত্রী ও প্রতিমন্ত্রীকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানানো হয়।