শুক্রবার, ২৪ আগস্ট ২০১৯, ৮ ভাদ্র ১৪২৬

চট্টগ্রামে বসন্ত উৎসব

প্রকাশিতঃ বুধবার, ফেব্রুয়ারি ১৩, ২০১৯, ৫:৪১ অপরাহ্ণ


চট্টগ্রাম: চারপাশে প্রাণের মেলা। উচ্ছল তরুণ-তরুণীর ছুটোছুটি। তরুণীর খোঁপায় গাঁদা ফুলের মালা। পরনে বাসন্তী শাড়ি। আর তরুণের গায়ে রঙিন পাঞ্জাবি। সারা দিন গান-নাচ, আড্ডা আর হই-হুল্লোড়। পয়লা বসন্তে এমনই জমজমাট নগরীর সিআরবি শিরীষ তলা।

প্রমা আবৃত্তি সংগঠনের আয়োজনে বসন্ত উৎসবের সূচনা হয় ঢোল বাদন ও বেহালার সুরে।

বসন্ত উৎসবের উদ্বোধন করে একুশে পদকপ্রাপ্ত সাংবাদিক আবুল মোমেন বলেন, মানুষ প্রকৃতির মতো করে বসন্তকে ধারণ করে এগিয়ে যায়। বসন্তে প্রকৃতিতে যেমন প্রাণের স্পন্দন তৈরি হয়, তেমনি মানুষের জীবনেও।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে ভারতীয় সহকারী হাই কমিশনার অনিন্দ্য ব্যানার্জি বলেন, বসন্তে প্রকৃতি সেজেছে অন্যরূপে। বাংলাদেশ ও ভারত দুই দেশে প্রাচীনকাল থেকে বসন্ত উৎসব হয়ে আসছে। বসন্ত উৎসব বাঙালি জীবনের অবিচ্ছেদ্য অংশ।


সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেন, প্রকৃতির সময়কে ধারণ করে বিভিন্ন উৎসব পালন বাঙালির ঐতিহ্য, চিরায়ত রীতি। বাঙালির কৃষ্টি, সংস্কৃতি, ঐতিহ্য ধরে রেখে আমরা এগিয়ে যাব। এগুলো আমাদের শেকড়, বাঙালির অস্তিত্বের ভিত।

প্রমা আবৃত্তি সংগঠনের সভাপতি রাশেদ হাসানের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক বিশ্বজিৎ পালের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ টেলিভিশন চট্টগ্রাম কেন্দ্রের মহাব্যবস্থাপক নিতাই কুমার ভট্টাচার্য, দৈনিক আজাদীর পরিচালনা সম্পাদক ওয়াহিদ মালেক, ওয়ার্ড কাউন্সিলর হাসান মুরাদ বিপ্লব প্রমুখ।

এ উৎসব ঘিরে সকাল থেকে আমবাগান রেলওয়ে জাদুঘর, সিআরবিসহ বিভিন্ন স্থানে ছিল উৎসবপ্রেমী মানুষের ভীড়।

আয়োজকরা বলছেন, বসন্ত বাঙ্গালির একান্তই নিজস্ব উৎসব। এই উৎসবের মাধ্যমে বিলীন হতে বসা ঐতিহ্য সংরক্ষণ এবং ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে বাঙালির সম্প্রীতির বন্ধনকেও দৃঢ় করবে বলে আয়োজকরা আশা প্রকাশ করেছেন।

বসন্ত বরণে দিনব্যাপী পুরো নগরী জুড়ে চলে আবৃত্তি, নাচ-গান,আর কথামালাসহ বর্ণিল সাংস্কৃতিক আয়োজন।