রবিবার, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৯, ১ পৌষ ১৪২৬

থানায় নয়, জিডি করা যাবে অনলাইনে

প্রকাশিতঃ শনিবার, মার্চ ২৩, ২০১৯, ৩:২২ অপরাহ্ণ

ঢাকা : নির্দিষ্ট থানায় গিয়ে জিডি’র ভোগান্তি দুর হচ্ছে। এবার ঘরে বসেই অনলাইনে জিডি করতে পারবেন ভুক্তভোগীরা। পুলিশের সেবা জনগণের দারপ্রান্তে পৌঁছে দিতে শিগগিরই আপডেট ভার্সনে অনলাই জিডি পাইলট প্রকল্প চালুর উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। এর আগে দীর্ঘদিন এটি ব্যবহার না করারয় এর আইডি ব্লক হয়ে গেছে বলে সংশ্লিষ্ট সুত্র জানিয়েছে। তাই অনলাইন জিডির জন্য আপডেট ভার্সন চালুর উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

জানা গেছে, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এটুআই (একসেস টু ইনফরমেশন) প্রকল্পের আওতায় এটি চালু করা হচ্ছে। পাইলট প্রকল্প হিসেবে নতুন সার্ভারে একটি অথবা দুটি থানায় এটি পরীক্ষামূলকভাবে চালু করা হবে। ইতিবাচক ফল (ফিডব্যাক) পাওয়া গেলে দেশের সব থানা (৬৪৩টি) অনলাইন জিডি কার্যক্রমের আওতায় আনা হবে। এর আগে, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এটুআই প্রকল্পের অধীনে ২০১০ সালের ৩ মার্চ উত্তরা মডেল থানায় অনলাইন জিডির উদ্বোধন করা হয়। ওই বছরের এপ্রিলে ডিএমপির সব থানায় অনলাইন জিডির সেবা চালু করা হয়। সাধারণ বিষয়ে থানায় গিয়ে সময় নষ্ট বা হয়রানির শিকার হওয়া থেকে রক্ষা পাওয়া এবং ডিজিটাল বাংলাদেশের অংশ হিসেবে থানায় থানায় এ সেবা চালু করা হয়। চালুর পরবর্তী তিন বছরে লক্ষাধিক জিডি হয় অনলাইনে। সার্ভার ব্লক থাকায় অনলাইন জিডির সবশেষ অবস্থা সম্পর্কে জানাতে অপারগতা প্রকাশ করেছেন পুলিশের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা।

ডিআইজি হাবিবুর রহমান জানান, নতুন সিস্টেমে অনলাইন জিডি করার আগে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তির কাছে অনলাইনে কিছু বাধ্যতামূলক তথ্য চাওয়া হবে। প্রথমেই এনআইডি (জাতীয় পরিচয়পত্র) নম্বর চাওয়া হবে। এনআইডি নম্বর সঠিক হলে নাম ঠিকানা চাওয়া হবে। সঠিক নাম-ঠিকানা পুলিশের হাতে আসার পরই জিডির বিষয়বস্তু লিখে মেইল পাঠাতে পারবেন ওই ব্যক্তি।

পুলিশ সদর দফতরের অতিরিক্ত ডিআইজি মনিবুর রহমান বলেন, এবারের অনলাইন জিডির প্রক্রিয়াটি খুবই ভালো। নতুন ভার্সনের জিডিতে এনআইডির লিংক থাকায় কেউ হয়রানিমূলক জিডি করতে সাহস পাবে না। আশা করা যাচ্ছে, নতুন পদ্ধতিতে অনলাইন জিডি চালু করা হলে বড় ধরনের কোনো সমস্যা হবে না।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, আইজিপি ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারীর দেশে ফেরার পর চলতি মাসের শেষ সপ্তাহে এ বিষয়ে পুলিশ সদর দফতরে বৈঠক হবে। বৈঠকে আপডেট ভার্সনে অনলাইন জিডি কার্যক্রম উদ্বোধনের তারিখ নির্ধারণ করা হবে। তবে কোন থানায় অনলাইন জিডি কার্যক্রমের উদ্বোধন করা হবে তা এখনও সিদ্ধান্ত হয়নি।

একুশে/ডেস্ক/এসসি

মহান বিজয় দিবস ২০১৯ উপলক্ষে একুশে পত্রিকা কর্তৃক একটি বিশেষ সংখ্যা প্রকাশের উদ্যেগকে স্বাগত জানাই। বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদের পক্ষ হতে উক্ত প্রকাশনার সাথে সংশ্লিষ্ট সকলকে জানাই-

বিজয় দিবসের শুভেচ্ছা

একটি সুখী, সমৃদ্ধ, ক্ষুধা ও দারিদ্র স্বপ্নীল ও ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার অঙ্গীকার এবং সন্ত্রাসমুক্ত পরিবেশ প্রতিষ্টার প্রত্যয় নিয়ে বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদ নিজস্ব উন্নয়ন কর্মসূচি এবং ২৮ টি ন্যস্ত বিভাগের বিভাগীয় কার্যক্রমের সমন্বয় সাধনসহ নিম্নবর্ণিত কার্যদি গ্রহণ ও বাস্তবায়ন করছেঃ

১) শিক্ষা
২) স্বাস্থ্য সেবা
৩) কৃষি
৪) মৎস্য ও প্রাণি সম্পদ
৫) ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প
৬) যোগাযোগ
৭) পানীয় জল ও স্যানিটেশন
৮) সমবায় ও সমাজ সেবা কার্যক্রম
৯) ক্রীড়া ও সংস্কৃতি কর্মকান্ড
১০) স্থানীয় পর্যটন
১১) আইসিটি সেক্টর উন্নয়ন এবং
১২) মানব সম্পদ উন্নয়ন ইত্যাদি।

একটি উন্নত, সমৃদ্ধ, আধুনিক ও সম্প্রীতিত মডেল জেলা হিসেবে বান্দরবানকে গড়ে তোলাই হলো আমাদের দৃঢ় অঙ্গীকার-

ক্য শৈ হ্লা
চেয়ারম্যান
বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদ
বান্দরবানান