২৪ মে ২০১৯, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, বৃহস্পতিবার

বিএনপি-জামায়াতের সঙ্গে আওয়ামী লীগের পার্থক্য দেখালেন তথ্যমন্ত্রী

প্রকাশিতঃ শুক্রবার, মার্চ ২৯, ২০১৯, ৮:৫১ অপরাহ্ণ


চট্টগ্রাম: বিএনপি-জামায়াত যেন আর কোনদিন ক্ষমতায় আসতে না পারে সেজন্য কাজ করতে সংশ্লিষ্ট সবার প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।

শুক্রবার সন্ধ্যায় নগরের পাঁচলাইশ থানাধীন সুগন্ধা আবাসিক এলাকার ১ নম্বর সড়কে প্রবর্ত্তক সংঘের নতুন ৬ তলা ৫০০ ছাত্রীর আবাসিক হোস্টেল ‘মৈত্রেয়ী’ ভবনের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেন, রাষ্ট্রকে সাম্প্রদায়িক বানাতে চেয়েছিল বিএনপি-জামায়াত, তাদের সঙ্গে আওয়ামী লীগের পার্থক্য আছে। আমরা মনে করি আমাদের প্রথম পরিচয় বাঙালি। দ্বিতীয় পরিচয় আমি হিন্দু, মুসলিম, বৌদ্ধ, খ্রিস্টান। আর অন্যরা মনে করে, তাদের প্রথম পরিচয় মুসলিম কিংবা হিন্দু। এরপর তারা বাঙালি না বাংলাদেশী সেটা নিয়ে দ্বিধা-দ্বন্ধে ভুগে। এখানেই হচ্ছে আমাদের সাথে তাদের পার্থক্য।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, ৩০ লক্ষ শহীদ ও দুই লক্ষ মা-বোনের ইজ্জতের বিনিময়ে যে রাষ্ট্র রচিত হয়েছে, সে রাষ্ট্রকে বিএনপি-জামায়াত সাম্প্রদায়িক বানাতে চায়, চেষ্টা করেছিল এবং অনেক পরিবর্তনও এনেছিল। রাষ্ট্রকে যারা সাম্প্রদায়িকতার ভিত্তিতে ভাগ করতে চায় তারা যেন ভবিষ্যতে কোনদিন ক্ষমতায় আসতে না পারে সেজন্য কাজ করতে হবে। নয়তো রাষ্ট্রকে তারা ভাগ করবে সাম্প্রদায়িকতার ভিত্তিতে। একটি ঐক্যবদ্ধ সমাজ গঠন করা আমাদের পক্ষে সম্ভব হবে না।

আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেন, সকাল, দুপুর, বিকাল তিন বেলা টেলিভিশনের সামনে আমাদেরকে গালি দিয়ে তারা (বিএনপি) বলেন, দেশে কথা বলার অধিকার নেই। আমি অনুরোধ জানাবো, আপনারা সমালোচনা করুন। দায়িত্বে থাকলে অবশ্যই সমালোচনা হবে। গাছে আম থাকলে ঢিল পড়বেই। আমরাও চাই সমালোচনা হোক। কিন্তু অন্ধের মত, অজ্ঞের মত সমালোচনা দয়া করে করবেন না। পড়াশোনা করে সমালোচনা করবেন।

তিনি বলেন, জীবন আমার কাছে যুদ্ধক্ষেত্রের মতো। যুদ্ধের ময়দানে থমকে দাঁড়ানোর সুযোগ নেই। অভীষ্ট লক্ষ্যে পৌঁছাতে যুদ্ধ চালিয়ে যেতে হয়। জীবনটাও তেমন। অনেক আচ্ছাদন হারিয়ে যাবে। কিন্তু অভীষ্ট লক্ষ্যে পৌঁছাতে হবে। স্বপ্ন দেখার পাশাপাশি তা বাস্তবায়নের প্রচেষ্টা থাকতে হবে।

অনুষ্ঠানে প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন। প্রবর্তক সংঘের সভাপতি অ্যাডভোকেট সুভাষ চন্দ্র লালার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন সম্পাদক তিনকড়ি চক্রবর্তী।

অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন সংঘের সহ-সভাপতি প্রফেসর রণজিৎ কুমার ধর, শুলকবহর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মোরশেদুল আলম প্রমুখ।