২৩ মে ২০১৯, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, বুধবার

জলাবদ্ধতার আশঙ্কায় ৪১ ওয়ার্ডে ৪ জোনে কাজ করবে চসিক

প্রকাশিতঃ বৃহস্পতিবার, এপ্রিল ১১, ২০১৯, ১১:৩৭ অপরাহ্ণ

আসন্ন বর্ষা মওসুমে নগরের জলাবদ্ধতা দূরীকরণে চসিক, চউক ও সেনাবাহিনীর যৌথ বৈঠকে মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন-একুশে পত্রিকা

চট্টগ্রাম : আসন্ন বর্ষা মওসুমে নগরকে জলাবদ্ধতার আশঙ্কা থেকে মুক্ত রাখতে ৪১টি ওয়ার্ডকে ৪টি জোনে ভাগ করে কাজ করবে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন। এ লক্ষ্যে সহসা চসিক কাউন্সিলরদের নিয়ে বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে। সাধারণ কাউন্সিলর ও সংরক্ষিত ওয়ার্ড কাউন্সিরদের মতামতের ভিত্তিতে কাজ করবে জলাবদ্ধতা নিরসন প্রকল্প বাস্তবায়নকারী প্রতিষ্ঠান।

বৃহস্পতিবার (১১ এপ্রিল) চট্টগ্রাম সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীনের দফতর নগরভবনে আসন্ন বর্ষা মওসুমে নগরকে জলাবদ্ধতামুক্ত রাখতে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন (চসিক), চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (চউক) ও সেনাবাহিনীর যৌথ বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত হয়।

বৈঠকে জলবদ্ধতা নিরসনে ৬ হাজার কোটি টাকার মেগা প্রকল্প বাস্তবায়নকারী প্রতিষ্ঠান চউক ও সেনাবাহিনীর ৩৪ ইঞ্জিনিয়ার কনস্ট্রাকশন বিগ্রেডের কমান্ডারসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা অংশ নেন।

মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেন, নগরে জলজট সৃষ্টি হলেই নগরবাসী সিটি করপোরেশনকে দোষারোপ করে। নগরবাসীর এ ভোগান্তি লাঘবের জন্য সিটি করপোরেশন ইতিমধ্যে বহুবার সিডিএকে চিঠি দিয়ে আমন্ত্রণ জানিয়েছে। যাতে জলবদ্ধতা নিরসনে মেগাপ্রকল্প বাস্তবায়নে চসিক ও চউক সমন্বিতভাবে কাজ করতে পারে।

নগরের জলবদ্ধতা নিরসনে মেগা প্রকল্পটি প্রধানমন্ত্রীর ঐকান্তিক ইচ্ছার ফসল জানিয়ে মেয়র বলেন, এ প্রকল্প যাতে শতভাগ বাস্তবায়িত হয় সে ব্যাপারে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন সর্বাত্মক সহযোগিতা দেবে। এ কাজে চসিকের পূর্ব অভিজ্ঞতা রয়েছে। রয়েছে জনবলও। এ ছাড়া কাউন্সিলরদেরও এ কাজে অভিজ্ঞতা রয়েছে। তাদের সহযোগিতা গ্রহণের উপরও গুরুত্বারোপ করেন মেয়র।

দেড় বছর আগে গৃহীত মেগা প্রকল্পের উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি নেই জানিয়ে মেয়র বলেন, তাই এ বছরও জলাবদ্ধতার ভোগান্তি থেকে নগরবাসী রক্ষা পাবে না এমন আশঙ্কা রয়েছে।

উপস্থিত সেনাবাহিনীর বি. জেনারেল তানভীর সিটি মেয়রের উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়ে জলাবদ্ধতা নিরসনের লক্ষ্যে প্রকল্প বাস্তবায়নে চসিকের সহযোগিতা নেবেন বলে মেয়রকে আশ্বস্ত করেন।

বৈঠকে চসিকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ সামসুদ্দোহা, প্রধান প্রকৌশলী লে. কর্নেল মহিউদ্দিন আহমেদ, সেনাবাহিনীর ৩৪ ইঞ্জিনিয়ার কনস্ট্রাকশন বিগ্রেডের ভারপ্রাপ্ত প্রকল্প পরিচালক, চউকের প্রধান প্রকৌশলী উপস্থিত ছিলেন।

একুশে/প্রেসবিজ্ঞপ্তি/এটি