২৪ মে ২০১৯, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, বৃহস্পতিবার

নুসরাতের মতো ঘটনার পুনরাবৃত্তি যাতে না হয়: তথ্যমন্ত্রী

প্রকাশিতঃ শুক্রবার, এপ্রিল ১২, ২০১৯, ৩:১৪ অপরাহ্ণ


চট্টগ্রাম: ফেনীর সোনাগাজীতে নিপীড়নের প্রতিবাদ করায় মাদ্রাসা অধ্যক্ষের লোকজনের দেয়া আগুনে দগ্ধ হয়ে মারা যাওয়া নুসরাত জাহান রাফির মতো ঘটনা যাতে আর না ঘটে সেজন্য সবাইকে সচেতন হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।

শুক্রবার সকালে নগরের টাইগারপাস এলাকায় নেভি কনভেনশন হলে লায়ন্স ক্লাব ইন্টারন্যাশনাল ২২তম বার্ষিক কনভেনশন অনুষ্ঠানে যোগদান শেষে তিনি সাংবাদিকদের এ কথা বলেন।

তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেন, নুসরাতকে বাঁচানোর জন্য ডাক্তাররা শত চেষ্টা করেছে। উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে সিঙ্গাপুরে পাঠাতে বলেছিলেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী এবং সে আয়োজনও করা হয়েছিল। কিন্তু সব চেষ্টাকে ব্যর্থ করে দিয়ে নুসরাত চলে গেছে।

তিনি বলেন, এ ঘটনায় জড়িতদের যাতে উপযুক্ত শাস্তি হয় সেজন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী প্রশাসন ও তদন্তকারী সংস্থাকে নির্দেশনা দিয়েছেন। হাইকোর্ট থেকেও নির্দেশনা এসেছে। আমরা দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি এ ঘটনায় সর্বোচ্চ শাস্তি হবে। আইনি প্রক্রিয়া অনুসরণ করেই এ হত্যার বিচার নিশ্চিত হবে।

এ ধরনের ঘটনার পুনরাবৃত্তি যাতে না হয় সেজন্য আমাদের সবাইকে সচেতন থাকতে হবে বলেও মন্তব্য করেন তথ্যমন্ত্রী।

তিনি বলেন, নুসরাতের ঘটনার পর সবাই যেভাবে প্রতিবাদ করছেন, এটা তদন্তের জন্য সহায়ক হবে।

বিএনপির আন্দোলন প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেন, বেগম খালেদা জিয়া কোনো রাজবন্দি নন যে তাকে আন্দোলনের মাধ্যমে মুক্ত করতে হবে। বিএনপি যে আন্দোলনের কথা বলছে তার কথা আমরা গত দশ বছর ধরে শুনছি।

তিনি বলেন, শীতের পর আন্দোলন, গ্রীষ্মের পর আন্দোলন, বর্ষার পর আন্দোলন, বার্ষিক পরীক্ষার পর আন্দোলন, এ ধরনের বহু আন্দোলনের কথা শুনেছি। তাদের এ আন্দোলনের ডাক মানুষের কাছে হাস্যকর হয়ে গেছে।

এর আগে লায়ন্স ক্লাবের ২২তম বার্ষিক কনভেনশনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে ড. হাছান মাহমুদ বলেন, পৃথিবীতে ৮০ কোটি মানুষ এখনও দারিদ্রতার সঙ্গে লড়াই করে। দারিদ্রতা-ক্ষুধা এখনও দূর হয়নি। কিন্তু বাংলাদেশে এ পরিস্থিতি নেই। ভিক্ষুককে এখন কেউ বাসি ভাত দিলে মুখের উপর ছুঁড়ে মারে। কারণ ক্ষুধার জ্বালা দেশে নেই। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জাদুকরী নেতৃত্বে বদলে গেছে বাংলাদেশ।

লায়ন্স ক্লাবের ডিস্ট্রিক্ট গভর্নর নাসিরুদ্দিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন লায়ন্স ক্লাবের আন্তর্জাতিক পরিচালক কাজী আকরাম উদ্দিন আহমেদ, প্রাক্তন ডিস্ট্রিক্ট গভর্নর মনজুর আলম মনজু, রুপম কিশোর বড়ুয়া, ১ম সহ-ডিস্ট্রিক্ট গভর্নর কামরুন মালেক প্রমুখ।