২৩ মে ২০১৯, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, বুধবার

টিএসসিতে বঙ্গবন্ধুর দুর্লভ ছবি

প্রকাশিতঃ বৃহস্পতিবার, এপ্রিল ১৮, ২০১৯, ৮:২৬ অপরাহ্ণ


বাসস: ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র শিক্ষক কেন্দ্রের (টিএসসি) উপদেষ্টার কার্যালয়ে ৪৭ বছর পর বঙ্গবন্ধুর একটি দূর্লভ ছবির আনুষ্ঠানিক উত্তোলন করা হয়েছে।
ফরাসি লেখক-দার্শনিক এবং দ্য গল সরকারের মন্ত্রী ‘আঁদ্রে মার্লো’র সংবর্ধনা অনুষ্ঠান উপলক্ষে বঙ্গবন্ধুর এই দূর্লভ ছবির আনুষ্ঠানিক উত্তোলন করা হয়।

টিএসসির উপদেষ্টা অধ্যাপক ড. সৌমিত্র শেখর আজ ছবিটি উত্তোলন করে বলেন, জাতির পিতা আমাদের চেতনার ধ্রুব তারকা। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের যে যে স্থানে বিচরণ করেছেন তা ইতিহাসের অংশ। সেই স্থান স্মারকের মাধ্যমে অবশ্যই সংরক্ষিত হওয়া প্রয়োজন।

তিনি বলেন, টিএসসিতে বঙ্গবন্ধুর আগমনে আমরা গর্বিত। এই গর্ব প্রকাশ এবং ইতিহাস স্মরণ করার জন্য টিএসসিতে বঙ্গবন্ধুর আগমনের ছবি আনুষ্ঠানিকভাবে উত্তোলন করা হয়েছে। এতে টিএসসিতে যারা আসবে, সেই সব শিক্ষার্থী ও অন্যরা অনুধাবন করতে পারবেন, বঙ্গবন্ধুর পদধুলিতে পবিত্র অঙ্গনে তারা এসেছেন। এটিও গর্বের।

বঙ্গবন্ধু টিএসসিতে ১৯৭৩ সালে এসেছিলেন মুক্তিযুদ্ধ চলাকালে বাংলাদেশের পরমবন্ধু ফরাসি লেখক ও দার্শনিক এবং দ্য গল সরকারের মন্ত্রী ‘আঁদ্রে মার্লো’র সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে। আঁদ্রে মার্লো বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আমন্ত্রণে বাংলাদেশ সফরে আসলে তাকে টিএসসিতে বীরোচিত সংবর্ধনা দেয়া হয়।

এসময় বঙ্গবন্ধু টিএসসিতে আসেন। অনুষ্ঠানস্থলে প্রবেশের আগে টিএসসি প্রাঙ্গণে হেঁটে অগ্রসরমান বঙ্গবন্ধু, পাশে তৎকালীন উপাচার্য অধ্যাপক আবদুল মতিন চৌধুরী, ছাত্রনেতৃবৃন্দের একটি ছবি পাওয়া যায়। ইতিহাসের ধারাবাহিকতা বজায় ও টিএসসিতে বঙ্গবন্ধুর শুভ পদার্পণ স্মরণ করার জন্য সেই ছবি আজ টিএসসির উপদেষ্টার অফিস কক্ষে আনুষ্ঠানিকভাবে উত্তোলন করা হয়।

এর আগে দেশ স্বাধীন হবার পর ডাকসুর আমন্ত্রণে ১৯৭২ সালের ৬ মে বঙ্গবন্ধু প্রথম বারের মতো ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে আসেন। ১৯৭৫ সালের ১৫ই আগস্ট ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে সমাবর্তনে চ্যান্সেলর হিসেবে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের উপস্থিত হবার কথা ছিল। কিন্তু ঘাতকের হাতে নির্মমভাবে তিনি ও তাঁর পরিবারের সদস্যরা নিহত হবার কারণে বঙ্গবন্ধুর ঐ দিন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে উপস্থিত হওয়া হয়নি।

সেদিন কর্মসূচির মধ্যে টিএসসি মিলনায়তনে এসে বঙ্গবন্ধুর ছাত্র-শিক্ষকদের উদ্দেশে বক্তব্য প্রদানের কথা ছিল। তৎকালীন উপাচার্য প্রফেসর আবদুল মতিন চৌধুরী বঙ্গবন্ধুর উদ্দেশে মানপত্র পাঠ করবেন বলেও ঠিক ছিল। বঙ্গবন্ধু টিএসসিতে এসে যে চেয়ারে উপবেশন করবেন তা বিশেষভাবে নির্মাণ করা হয়েছিল। চেয়ারটি এখনো টিএসসিতে সংরক্ষিত আছে।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন টিএসসির কর্মকর্তা উপ-পরিচালক ফারজানা বাসার, সহকারী পরিচালক সুস্মিত জামান, সহকারী পরিচালক নজীর আহমদ সিমাব প্রমুখ।