২৪ মে ২০১৯, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, বৃহস্পতিবার

জুলাইতেই রাঙ্গুনিয়া আ. লীগের সম্মেলন, নেতাকর্মীদের মাঝে প্রাণচাঞ্চল্য

প্রকাশিতঃ শনিবার, এপ্রিল ২০, ২০১৯, ৯:১৯ অপরাহ্ণ

চট্টগ্রাম : আগামি জুলাই মাসের দ্বিতীয় সপ্তাহে রাঙ্গুনিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনের ঘোষণা দিয়েছেন রাঙ্গুনিয়া থেকে নির্বাচিত সাংসদ, তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।

শনিবার সন্ধ্যায় নবনির্মিত রাঙ্গুনিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে দলের বর্ধিত সভায় মন্ত্রী এই ঘোষণা দেন। এসময় উপস্থিত নেতাকর্মীরা করতালির মাধ্যমে মন্ত্রীকে স্বাগত জানান।

এছাড়া তথ্যমন্ত্রী আগামি ২০ জুনের মধ্যে যেসব ইউনিয়নে এখনো সম্মেলন হয়নি সেই ইউনিয়নগুলোতে সম্মেলন করে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি, সাধারণ সম্পাদকের কাছে কমিটি জমা দিতে বলেন।

এসময় তথ্যমন্ত্রী উপজেলা আওয়ামী লীগের চারতলা বিশিষ্ট কার্যালয়ের চলমান কাজ এগিয়ে নেয়ার পাশাপাশি ১৫টি ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ ও অঙ্গসংগঠনের জন্য একটি করে দলীয় কার্যালয় করার ঘোষণা দেন এবং এজন্য সংশ্লিষ্ট সকলের সহযোগিতা কামনা করেন। ইউনিয়নগুলোতে দলীয় কার্যালয়ের কী অবস্থা বা চিত্র সে ব্যাপারে উপজেলা নেতৃবৃন্দের কাছে জানাতে ইউনিয়ন নেতাদের কাছে অনুরোধ জানান মন্ত্রী।

ড. হাছান মাহমুদ উপজেলা চেয়ারম্যান, পৌর মেয়রসহ ইউনিয়ন পরিষদের দলীয় চেয়ারম্যান এবং জনপ্রতিনিধিদেরকে সেবার প্রতি আরো বেশি ব্রতী হওয়ার আহ্বান জানিয়ে বলেন, যেহেতু অনেকেই দলীয় চেয়ারম্যান, জনপ্রতিনিধি কাজেই তাদের সেবার উপর দলের জনপ্রিয়তা অনেকাংশে নির্ভর করে। তাই সর্বাগ্রে জনসেবার দিকে খেয়াল রাখতে আমি আহ্বান জানাবো।

‘আপনি কাউকে একটা চাকরি দিতে পারছেন না, কিংবা পারছেন না ১০টি টাকা দিতে। তাতে সমস্যা নেই। অন্তত জনগণকে ভালো আচরণ, ভালো ব্যবহার দেওয়ার চেষ্টা করবেন। আপনি জনগণের জন্য কিছু করতে আন্তরিকভাবে চেষ্টা করছেন, জনগণ সেটি বুঝতে পারলে আপনাকে আর গালি দিবে না। যোগ করেন তথ্যমন্ত্রী।

এদিকে, দীর্ঘ ৬ বছর পর উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনের ঘোষণা দেওয়ায় রাঙ্গুনিয়া আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের মাঝে তাৎক্ষণিকভাবে ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনা লক্ষ করা গেছে।

এর আগে ২০১৩ সালের শেষের দিকে দুইবছরের জন্য উপজেলা আওয়ামী লীগের কমিটি গঠিত হয়েছিল। প্রবীণ আওয়ামী লীগ নেতা খলিলুর রহমান চৌধুরী সভাপতি এবং কাজী মোহাম্মদ জসিম ছিলেন ৭১ সদস্য বিশিষ্ট সেই কমিটির সাধারণ সম্পাদক। কিন্তু অল্পদিনের মাথায় দলীয় সিদ্ধান্তের বাইরে গিয়ে উপজেলা চেয়ারম্যান পদে বিদ্রোহী প্রার্থী হওয়ায় দল থেকে বহিষ্কৃত হন কাজী জসিম। এরপর সেই থেকে সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার শামসুল ইসলাম তালুকদার ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করছেন।

এ প্রসঙ্গে রাঙ্গুনিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান ও উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের কৃষি বিষয়ক সম্পাদক মুহাম্মদ আলী শাহ একুশে পত্রিকাকে বলেন, ‘দীর্ঘদিন কমিটি না হওয়া এবং নতুন নেতৃত্ব সৃষ্টি না হওয়ায় নেতকর্মীদের মাঝে একধরনের হতাশা বিরাজ করছিল। মন্ত্রী মহোদয়ের এই ঘোষণায় নেতাকর্মীদের মাঝে প্রাণ ফিরে এসেছে। আশা করি আগামি জুলাই মাসে সম্মেলনের মাধ্যমে যোগ্য নেতৃত্ব প্রতিষ্ঠিত হবে।’

রাঙ্গুনিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার শামসুল ইসলাম তালুকদার বলেন, মন্ত্রী মহোদয় আজ সম্মেলনের ঘোষণা দিয়ে রাঙ্গুনিয়া আওয়ামী লীগে উৎসবের শুভ সূচনা করেছেন। একটি ভালো, স্বত:স্ফূর্ত সম্মেলন অনুষ্ঠানের জন্য আমরা এখন থেকেই নেমে পড়বো। আশা করছি একটি শক্তিশালী সম্মেলনের মধ্যদিয়ে রাঙ্গুনিয়া আওয়ামী লীগ আরও বেশি চাঙ্গা এবং উজ্জীবিত হবে।

একুশে/এসসি/এটি