বৃহস্পতিবার, ১৮ অক্টোবর ২০১৯, ২ কার্তিক ১৪২৬

একুশে পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশের পর টনক নড়ল চবি প্রশাসনের

তিন শিক্ষককে শোকজ, তদন্ত কমিটি

প্রকাশিতঃ মঙ্গলবার, জুলাই ৯, ২০১৯, ৭:২১ অপরাহ্ণ


চট্টগ্রাম: চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে ইসলামী ছাত্রশিবিরের সাবেক কেন্দ্রীয় সভাপতি ও ঢাকা মহানগর জামায়াতের আমীর হামিদুর রহমানকে বিশেষ ব্যবস্থায় পিএইচডি সেমিনার আয়োজন সুযোগ করে দেয়ার ঘটনায় তিন শিক্ষককে শোকজ করা হয়েছে।

তিন শিক্ষক হলেন- ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ এনামুল হক, পিএইচডির সুপারভাইজার অধ্যাপক ড. এএফএম আমীনুল হক ও সেমিনার আয়োজন কমিটির আহ্বায়ক ড. মুহাম্মদ মমতাজ উদ্দীন।

এ ছাড়া ঘটনা তদন্তে বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজতত্ত্ব বিভাগের অধ্যাপক এসএম মনিরুল হাসানকে আহ্বায়ক এবং উচ্চ শিক্ষা ও গবেষণা শাখার ডেপুটি রেজিস্ট্রার জনাব মো. দেলোয়ার হোসেনকে সদস্য সচিব করে দুই সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

এসব তথ্য নিশ্চিত করে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) কেএম নুর আহমদ বলেন, আগামী তিন কার্যদিবসের মধ্যে তিন শিক্ষককে শোকজের জবাব দিতে বলা হয়েছে। অন্যদিকে দুই সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটিকে দ্রুততম সময়ের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে।

এর আগে গতকাল বুধবার একুশে পত্রিকায় ‘চবিতে বিশেষ ব্যবস্থায় সেমিনার করলেন জামায়াতের শীর্ষ নেতা’ শিরোনামে একটি বিশেষ সংবাদ প্রকাশিত হয়। এ প্রেক্ষিতে পদক্ষেপ নেওয়ার কথা জানিয়ে মঙ্গলবার বিকালে গণমাধ্যমে সংবাদ বিজ্ঞপ্তি পাঠিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ডেপুটি রেজিস্ট্রার (তথ্য ও ফটোগ্রাফি) দিবাকর বড়ুয়া।

এতে উল্লেখ করা হয়, পিএইচডি গবেষক হামিদুর রহমান আযাদ-এর পিএইচডি গবেষণার রেজিস্ট্রেশনের মেয়াদ গত ১৩ ফেব্রুয়ারি শেষ হয়। রেজিস্ট্রেশনের মেয়াদ শেষ হওয়ার পরও চবি ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগ বিধিবহির্ভূতভাবে সেমিনার আয়োজন করেছে। এজন্য তিন শিক্ষককে শোকজ করা হয়েছে বলে এতে উল্লেখ করা হয়।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়, গত ৮ জুলাই দেশের কয়েকটি অনলাইন পোর্টালে প্রকাশিত ‘চবিতে বিশেষ ব্যবস্থায় সেমিনার করলেন জামায়াতের শীর্ষ নেতা’ এবং চবি উপাচার্য (রুটিন দায়িত্বপ্রাপ্ত) অধ্যাপক ড. শিরীণ আখতারকে জড়িয়ে যে সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে তা উদ্দেশ্যপ্রণোদিত ও দূরভিসন্ধীমূলক।

এর আগে গত ২০ জুন সকালে বিশ্ববিদ্যালয় কলা অনুষদভুক্ত ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগে হামিদুর রহমান আযাদ বিশেষ ব্যবস্থায় পিএইচডি সেমিনার সম্পন্ন করেছেন। পিএইচডি রেজিস্ট্রেশনের মেয়াদ শেষ হওয়ার পরও তাকে সেমিনার করার সুযোগ প্রদান করায় বিশ্ববিদ্যালয় প্রগতিশীল শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা এ নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন।

হামিদুর রহমান আযাদ ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের অধীনে ২০১১ সালে ‘বাংলায় ইসলামী রাজনীতির উৎপত্তি ও বিকাশ’ শীর্ষক পিএইচডি বিষয়ে ভর্তি হন।

গত ১৪ জুন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরীর মেয়াদ শেষ হয়। মেয়াদ শেষে বিশ্ববিদ্যালয় উপ উপাচার্য প্রফেসর ড. শিরীণ আখতারকে উপাচার্যের রুটিন দায়িত্ব পালন করতে চিঠি দেয় শিক্ষা মন্ত্রণালয়। প্রায় শতাধিক মামলার আসামী কক্সবাজারের মহেশখালী-কুতুবদিয়া আসনে জামায়াতের সাবেক এই সংসদ সদস্যের বিশ্ববিদ্যালয়ে সেমিনার করার বিষয়টি জানাজানি হলে সমালোচনা শুরু হয়।

### ‘চবিতে বিশেষ ব্যবস্থায় সেমিনার করলেন জামায়াতের শীর্ষ নেতা’