মঙ্গলবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ২ আশ্বিন ১৪২৬

ফের ওয়াসা বোর্ডে আসতে মরিয়া বিতর্কিত শেঠ

প্রকাশিতঃ বুধবার, আগস্ট ৭, ২০১৯, ৮:৪৬ অপরাহ্ণ

চট্টগ্রাম : বোর্ড সদস্যদের মতামতের ভিত্তিতে চট্টগ্রাম ওয়াসা বোর্ডে গ্রাহকদের প্রতিনিধি পদে একজনকে মনোনয়ন দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন চট্টগ্রাম ওয়াসার চেয়ারম্যান ড. এস এম নজরুল ইসলাম। তবে নানা অভিযোগে বিতর্কিত বর্তমান গ্রাহক প্রতিনিধি সোলায়মান আলম শেঠ ফের একই পদে নিয়োগ পেতে মরিয়া চেষ্টা চালাচ্ছেন।

এর আগে ওয়াসা বোর্ডে গ্রাহকদের প্রতিনিধি সোলায়মান আলম শেঠের মেয়াদ শেষ হওয়ায় ওই পদে নতুন একজন প্রতিনিধি মনোনয়ন দিতে গত ২৯ জুলাই চট্টগ্রাম ওয়াসার চেয়ারম্যান বরাবর চিঠি দেওয়া হয় স্থানীয় সরকার বিভাগ থেকে।

অভিযোগ রয়েছে, ফের চট্টগ্রাম ওয়াসা বোর্ডে আসতে কয়েকজন মন্ত্রী ও সচিব, সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন,  চট্টগ্রাম ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী একেএম ফজলুল্লাহসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পদে থাকা দায়িত্বশীল ব্যক্তিদের দুয়ারে দুয়ারে ঘুরছেন সোলায়মান আলম শেঠ।

এ বিষয়ে বুধবার একুশে পত্রিকাকে চট্টগ্রাম ওয়াসার চেয়ারম্যান ড. এস এম নজরুল ইসলাম বলেন, আমি চট্টগ্রামে না থাকায় সেখানকার অনেক লোকজনকে ভালো করে চিনি না। তাই গ্রাহকদের প্রতিনিধি পদে কাউকে মনোনয়ন দেয়ার ক্ষেত্রে আমি বোর্ড সদস্যদের মতামত নেবো। এদিকে গত ১৯ জুন চট্টগ্রাম ওয়াসা বোর্ডে ভোক্তা প্রতিনিধি অন্তর্ভুক্তির আবেদন জানায় কনজুমারস এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ক্যাব)।

এ প্রেক্ষিতে ২৯ জুলাই উপ-সচিব মোহাম্মদ সাঈদ-উর-রহমান সাক্ষরিত পৃথক আরেকটি পত্রে ওয়াসার গ্রাহকদের প্রতিনিধি হিসেবে একজন ভোক্তা প্রতিনিধি অন্তর্ভুক্তি সংক্রান্ত বিষয়ে ৭ কর্মদিবসের মধ্যে মতামত দিতে চেয়ারম্যানের প্রতি অনুরোধ জানানো হয়েছে।

এ বিষয়ে চট্টগ্রাম ওয়াসার চেয়ারম্যান ড. এস এম নজরুল ইসলাম বলেন, আমি চেয়ারম্যান হলেও নিজে একক সিদ্ধান্ত নিতে পারি না। বোর্ড সদস্যরা যদি ভোক্তা প্রতিনিধি নিতে মতামত দেন, তাহলে সেটাই করা হবে।

এদিকে কনজুমারস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (ক্যাব) চট্টগ্রাম বিভাগীয় সভাপতি নাজির হোসেন একুশে পত্রিকাকে বলেন, ওয়াসা বোর্ডে সাংবাদিক প্রতিনিধি, সিটি করপোরেশন প্রতিনিধি, চিকিৎসক প্রতিনিধি, চাটার্ড অ্যাকাউন্টেন্ট, চট্টগ্রাম চেম্বার অব কমার্স, ইঞ্জিনিয়ার, বার কাউন্সিল থেকে প্রতিনিধি আছে। কিন্তু ওয়াসার আইনটি অনেক আগে হওয়ায় সেখানে ভোক্তা প্রতিনিধি রাখার বিষয়টি উল্লেখ করা হয়নি। এখন এ ধরনের বোর্ডে ভোক্তা প্রতিনিধি থাকার বিষয়ে আইনেই বলা আছে। এখন ভোক্তা প্রতিনিধি অন্তর্ভুক্ত না করলে আমরা অবশ্যই আদালতে গিয়ে প্রতিকার চাইবো।

এদিকে ৭ কর্মদিবসের মধ্যে গ্রাহক প্রতিনিধি পদে নতুন একজনকে মনোনয়ন দিতে গত ২৯ জুলাই স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ-সচিব মোহাম্মদ সাঈদ-উর-রহমান সাক্ষরিত চিঠিতে উল্লেখ করা হয়।

তবে আজ বুধবার ৭ কর্মদিবস পার হলেও সন্ধ্যা পর্যন্ত সেই চিঠিটি পাননি বলে জানিয়েছেন চট্টগ্রাম ওয়াসার চেয়ারম্যান ড. এস এম নজরুল ইসলাম। তিনি বলেন, চিঠি হাতে না আসলেও বিষয়টি আমি জেনেছি। আগামী শুক্রবার বোর্ড মিটিংয়ে এসব বিষয়ে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেওয়ার চেষ্টা করবো।

প্রসঙ্গত, স্থানীয় সরকার বিভাগ ২০১২ সালে ওয়াসার গ্রাহক প্রতিনিধি কোটায় জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য সোলায়মান আলম শেঠকে নিয়োগ দেয়। তবে সেই মেয়াদ শেষ হয়ে গেছে চার বছর আগে ২০১৫ সালে।

নানা অভিযোগে সমালোচিত শেঠকে মেয়াদ পূর্তির চার বছর পরও ওয়াসার বোর্ড সদস্য হিসেবে বহাল রাখায় খোদ ওয়াসার বোর্ডেই ছিল ক্ষোভ।

অবশেষে চট্টগ্রাম ওয়াসা বোর্ডে গ্রাহকদের প্রতিনিধি সোলায়মান আলম শেঠকে বিদায় দেওয়ার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে।