সোমবার, ২১ অক্টোবর ২০১৯, ৬ কার্তিক ১৪২৬

আদালতের বিবেচ্য দৃষ্টি সাংবাদিকদের স্বার্থে বিবেচিত হবে, আশা তথ্যমন্ত্রীর

প্রকাশিতঃ বৃহস্পতিবার, আগস্ট ৮, ২০১৯, ৮:১৫ অপরাহ্ণ


চট্টগ্রাম: নবম ওয়েজ বোর্ডের গেজেট প্রকাশের ওপর দুই মাসের স্থিতাবস্থা বজায় রাখার আদেশের ব্যাপারে সরকারের পদক্ষেপের কথা জানিয়েছেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।

বৃহস্পতিবার বিকেলে চট্টগ্রামে এশিয়ান ইউনিভার্সিটি ফর উইম্যান (এইউডব্লিউ) আয়োজিত ম্যাথ অ্যান্ড সায়েন্স সামার স্কুলের সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে অংশগ্রহণের পর সাংবাদিকদের সাথে নবম ওয়েজ বোর্ডের গেজেট প্রকাশের বিষয়ে কথা বলেন তিনি।

এর আগে গত মঙ্গলবার নিউজ পেপার ওনার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (নোয়াব) করা এক রিটের প্রাথমিক শুনানি নিয়ে নবম ওয়েজবোর্ডের গেজেট প্রকাশের ওপর দুই মাসের স্থিতাবস্থা বজায় রাখার আদেশ দেয় হাইকোর্ট। ফলে, এই সময়ে ওই গেজেট প্রকাশ করা যাবে না।

বৃহস্পতিবার বিকেলে প্রশ্নের জবাবে তথ্যমন্ত্রী বলেন, সংবাদপত্রে কর্মরতদের জন্য নবম ওয়েজবোর্ড বাস্তবায়নের লক্ষ্যে আদালতে সরকারের বক্তব্য উপস্থাপন করা হবে। আমরা আশা করছি আদালতের বিবেচ্য দৃষ্টি নিশ্চয়ই সাংবাদিকদের স্বার্থে বিবেচিত হবে। তবে যেহেতু এটি বিচারাধীন বিষয় আমি এর চেয়ে বেশি বলতে পারিনা। শুধু আশা প্রকাশ করতে পারি।

তিনি বলেন, সরকারের পক্ষ থেকে নবম ওয়েজবোর্ড প্রজ্ঞাপন জারী করার জন্য সকল প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছিল। মন্ত্রীসভা কমিটি চুড়ান্ত করে সেটি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে কেবিনেটে পাঠানোর জন্য আমরা সমস্ত কাগজপত্র তৈরী করে ফেলেছি। সেই পর্যায়ে আদালত থেকে স্থিতাবস্থার একটি রায় এসেছে। সংবাদপত্র মালিকদের পক্ষ থেকে আদালতে গেছে।

‘সংবাদপত্র মালিকদের যে মামলা সেটাতে সরকার এবং ওয়েজবোর্ডকে বিবাদী করা হয়েছে। যেহেতু তারা আদালতে গেছে, আদালতে আমরা এটি বাস্তবায়নের লক্ষ্যে সরকারের পক্ষ থেকে আমাদের বক্তব্য অবশ্যই উপস্থাপন করবো। যাতে করে এটি বাস্তবায়ন করা সম্ভব পর হয়। স্থিতাবস্থা ও যেসব ব্যাখ্যা চেয়েছে সেগুলো আইনজীবির মাধ্যমে আদালতে উপস্থাপন করা হবে।’ বলেন তথ্যমন্ত্রী।

ড. হাছান মাহমুদ বলেন, ডেঙ্গুর কারণে সারাদেশে উদ্বেগজনক পরিবেশ সৃষ্টি হয়েছে এমতাবস্থায় ডেঙ্গু নিয়ে সরকারের মন্ত্রীদের প্রতিকী কর্মসূচি নিয়ে কেউ কেউ নানা সমালোচনা ও প্রোপাগান্ডা ছড়াচ্ছেন এক সাংবাদিকের এমন প্রশ্নের জবাবে তথ্যমন্ত্রী বলেন কিছু লোক আছে যারা কোন কাজ করেননা, অন্য কেউ কাজ করলে সমালোচনা করে। বিএনপি’রও একই দশা হয়েছে। এখন কি দেশের মানুষ নির্বাচন দাবীর দিশায় আছে এমন প্রশ্ন রাখেন তথ্যমন্ত্রী।

তিনি বলেন, যেখানে ডেঙ্গু মোকাবেলা করার জন্য সমস্ত বাংলাদেশের মানুষ আজকে উদ্বিগ্ন সেখানে দেখলাম মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর কয়েকদিন আগে নতুন নির্বাচনের দাবি নিয়ে ব্যস্ত রয়েছেন। সবাই আত্মপীড়িত মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে। তারা পাশে না দাঁড়িয়ে বরং সমালোচনা করছে, আবার নতুন নির্বাচন দাবী করছে। এতেই প্রমাণিত হয় বিএনপি আসলে জনগণের জন্য রাজনীতি করে না।