বুধবার, ১৪ নভেম্বর ২০১৯, ২৯ কার্তিক ১৪২৬

চট্টগ্রামে চামড়া নিয়ে অরাজকতা, রাস্তায় ফেলে প্রতিবাদ

প্রকাশিতঃ মঙ্গলবার, আগস্ট ১৩, ২০১৯, ৭:৩৭ অপরাহ্ণ


চট্টগ্রাম: সরকার নির্ধারিত দামের তোয়াক্কা না করেই পানির দামে বেচা কেনা হচ্ছে কোরবানির পশুর চামড়া। গতকাল সোমবারের মতোই আজ মঙ্গলবারও নগরীর আতুরার ডিপোতে এলাকায় একই দৃশ্য দেখা গেছে।

ক্ষুদ্র ব্যবসায়িদের অভিযোগ, যে দামে চামড়া কিনেছেন তার অর্ধেকেরও কম দামে আড়তদারদের কাছে বিক্রি করতে বাধ্য হচ্ছেন তারা। ৫০ টাকার উপরে চামড়ার দাম উঠছেই না।

পটিয়া থেকে শতাধিক চামড়া নিয়ে আতুরার ডিপোতে যাওয়া মো. শুক্কুর বলেন, হাতে-পায়ে ধরার পরও আড়তদাররা প্রতিটি চামড়ার দাম ৫০ টাকার বেশী দিতে চাচ্ছে না। অথচ গড়ে ৪০০ টাকায় এসব চামড়া আমি সংগ্রহ করেছি।

দুুপরে আতুরার ডিপোতে ঘুরে দেখা গেছে, সঠিক দামে বিক্রি করতে না পারার প্রতিবাদে চামড়া রাস্তায় ছুড়ে ফেলছেন অনেকেই। পরে সিটি করপোরেশনের পরিচ্ছন্ন কর্মীদের দেখা গেছে এসব চামড়া অপসারণ করতে।

এদিকে দাম কমার বিষয়ে আড়তদাররা বলছেন, কয়েক বছর ধরেই ট্যানারি মালিকেরা আগের দেনার টাকা পরিশোধ করছেন না। যার কারণে সঠিক মূল্যে চামড়া কেনা যাচ্ছে না।

মঙ্গলবার পর্যন্ত তারা প্রায় তিন লাখ চামড়া সংগ্রহ করা হয়েছে জানিয়ে চট্টগ্রামের বৃহত্তর কাঁচা চামড়া আড়তদার সমবায় সমিতির সভাপতি আবদুল কাদের বলেন, প্রতিটি চামড়া সর্বোচ্চ ৫০ টাকায় সংগ্রহ করা হয়েছে। ঢাকার ট্যানারি মালিকদের কাছে প্রায় ৫০ কোটি টাকা পাওনা আছেন চট্টগ্রামের আড়তদাররা। এ কারণে সংগঠনের ৮০ শতাংশ সদস্য এবার কাঁচা চামড়া কেনেননি।

দেশে সারা বছর যে সংখ্যক পশু জবাই হয়, তার অর্ধেক হয় এই কোরবানির মৌসুমে। কোরবানি যারা দেন, তাদের কাছ থেকে কাঁচা চামড়া কিনে মৌসুমি ব্যবসায়ীরা বিক্রি করেন ট্যানারিতে। এ সময়ই সবচেয়ে বেশি চামড়া সংগ্রহ করেন ট্যানারি মালিকরা।

প্রতিবছর কোরবানির ঈদের আগে চামড়া শিল্প সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন পক্ষের প্রতিনিধিদের সঙ্গে বৈঠক করে কোরবানির পশুর চামড়া সংগ্রহের জন্য ন্যূনতম দাম ঠিক করে দেয় বাণিজ্য মন্ত্রণালয়। তবে ট্যানারি মালিকদের দাবিতে গত বেশ কয়েক বছর ধরে ওই দাম কমতির দিকে।

এবার ঈদের আগে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় জানায়, গতবছর কোরবানির পশুর কাঁচা চামড়ার যে দাম সরকার ঠিক করে দিয়েছিল, এবারও সেটাই রাখা হয়েছে। ঢাকায় প্রতি বর্গফুট গরুর কাঁচা চামড়া ৪৫ থেকে ৫০ টাকা এবং ঢাকার বাইরে ৩৫ থেকে ৪০ টাকায় কিনবেন ব্যবসায়ীরা। আর খাসির কাঁচা চামড়া সারাদেশে ১৮-২০ এবং বকরির চামড়া ১৩-১৫ টাকা দরে কেনাবেচা হবে।

কিন্তু এবারও ঈদের দিন বিকালে চামড়ার দাম পড়ে গেলে ‘সিন্ডিকেটের কারসাজির’ অভিযোগ তোলেন মৌসুমি ব্যবসায়ীরা।