মঙ্গলবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ২ আশ্বিন ১৪২৬

২১ আগস্ট হত্যাকাণ্ডের বিচারে কমিশন গঠনের দাবী

প্রকাশিতঃ বৃহস্পতিবার, আগস্ট ২২, ২০১৯, ১০:০৩ অপরাহ্ণ

চট্টগ্রাম : ২০০৪ সালের ২১ আগস্ট ঢাকার বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে আওয়ামী লীগ দলীয় কার্যালয়ের সামনে সন্ত্রাসবিরোধী সমাবেশে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন জননেত্রী শেখ হাসিনাসহ আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দকে হত্যার উদ্দেশ্যে পরিচালিত গ্রেনেড হামলার বিচারে কমিশন গঠনের দাবী জানিয়েছেন চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি নঈম উদ্দিন চৌধুরী।

২১ আগস্ট নৃশংস গ্রেনেড হামলায় শাহাদাত বরণকারী সকল বীর শহীদদের স্মরণে বন্দর থানা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে আয়োজিত আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল ৩নং জেটি গেইট ফকিরহাটস্থ মেট্রো প্লাজায় সংগঠনের কার্যালয়ে সংগঠনের সভাপতি নুরুল আলমের সভাপতিত্বে এবং ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক হাজী মো. ইলিয়াছের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সভায় নঈম উদ্দিন চৌধুরী উপরোক্ত বক্তব্য রাখেন।

সভায় বক্তাগণ বলেন, ২১ আগস্টের গ্রেনেড হামলাটি ছিল বাংলাদেশের মাটিতে সবচেয়ে ন্যক্কারজনক সন্ত্রাসী হামলা। রাজনৈতিক বিরোধীদের নির্মূল করার জন্যই এই হামলা চালানো হয়। কমিশন গঠনের মাধ্যমে অপরাধী এবং এর পিছনের মদদদাতাদেরও খুঁজে বের করা প্রয়োজন।

এ সময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সাবেক তথ্য ও গবেষনা সম্পাদক শফিকুল হাসান, সংগঠনের সহ-সভাপতি সুলতান আহম্মদ, শাহনেওয়াজ চৌধুরী, রশিদ আহাম্মদ চৌধুরী, যুগ্ম-সাধারন সম্পাদক মোঃ ইউনুছ, সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ ইসকান্দর মিয়া, ৩৮নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ সভাপতি এম হাসান মুরাদ, মোঃ নাসির উদ্দিন, জানু মিয়া চৌধুরী, মোঃ জানে আলম, মোঃ কামাল উদ্দিন, মোঃ আব্দুল হাকিম, মোঃ সাহেদ বশর, কামাল ইছহাকী, মোঃ জসিম উদ্দিন, শের আলী সওদাগর, ছালামত আলী, সালাউদ্দিন বাদশা, হাজী মোঃ রফিক, ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ নেতা আবুল কালাম বিএসসি, মোঃ নুর হোসেন, দেলোয়ার হোসেন, মোঃ জসিম, এস.এম.ইউছুপ, কাইছার তালুকদার, মোঃ ইকবাল, রিফাত আলম, মোঃ নাছির, মোঃ এসকান্দর, দেলোয়ার হোসেন তাহের, সরওয়ার জাহান চৌধুরী, মোঃ মুজিব, এস.এম.ফারুক, মোঃ মোজাম্মেল হক চৌধুরী, কামরুল হুদা চৌধুরী, আলমগীর বাদশা, মহিউদ্দিন হোসেন জুয়েল, মোঃ খুরশেদ আলম, মোঃ আবদুল হামিদ, মোঃ তৌহিদুল ইসলাম তৌহিদ, মোঃ আলী, মোঃ জাহাঙ্গীর, মোঃ ইদ্রিস, হাসান মোঃ মুরাদ, মোঃ সালাউদ্দিন প্রমুখ।

আলোচনা সভা শেষে মিলাদ ও দোয়া মাহফিল পরিচালনা করেন মাওলানা রফিকুল ইসলাম।