রবিবার, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৯, ১ পৌষ ১৪২৬

সাংবাদিকদের আয়কর নিয়ে আপত্তি, তথ্যমন্ত্রীকে দেখতে বললেন প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিতঃ বুধবার, অক্টোবর ৯, ২০১৯, ৫:০৮ অপরাহ্ণ


ঢাকা: সংবাদপত্র ও বার্তা সংস্থাগুলোর কর্মীদের নবম বেতন কাঠামোর রোয়েদাদ গেজেটের কয়েকটি ধারা নিয়ে সাংবাদিকদের আপত্তির বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদকে দায়িত্ব দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বুধবার গণভবনে ভারত ও যুক্তরাষ্ট্র সফর পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী।

এর আগে ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক সোহেল হায়দার চৌধুরী প্রধানমন্ত্রীকে জানান, নবম সংবাদপত্র মজুরি বোর্ড রোয়েদাদ গেজেটে গ্র্যাচুইটি দুটির স্থলে একটি করা এবং আয়কর সাংবাদিকদের উপর চাপিয়ে দেওয়া হয়েছে।

এ প্রেক্ষিতে প্রধানমন্ত্রী বলেন, এখানে সংবাদপত্রের মালিকরা আছেন। তাদের তো টাকার অভাব নেই। সাংবাদিকদের কল্যাণের বিষয় তো তাদেরও ভাবতে হবে। আমি এ বিষয়টি দেখতে তথ্যমন্ত্রীকে দায়িত্ব দিয়ে দিলাম।

দীর্ঘদিন ঝুলে থাকার পর গত ১২ সেপ্টেম্বর তথ্য মন্ত্রণালয় ‘নবম মজুরি বোর্ড রোয়েদাদ’ গেজেট প্রকাশ করে।

গেজেট প্রকাশের পর থেকে কিছু সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ অভিযোগ করেন, গেজেটে কয়েকটি অসঙ্গতি রয়েছে। তারা বলছেন, এতদিন পর্যন্ত দুটি গ্রাচ্যুইটি পেয়ে আসছিল সাংবাদিকরা। একই ভাবে আয়কর পরিশোধ করে আসছিল মালিক কর্তৃপক্ষ। কিন্তু নবম সংবাদপত্র মজুরি বোর্ড রোয়েদাদ গেজেটে গ্র্যাচুইটি দুটির স্থলে একটি করা এবং আয়কর সাংবাদিকদের উপর চাপিয়ে দেওয়া হয়েছে।

মহান বিজয় দিবস ২০১৯ উপলক্ষে একুশে পত্রিকা কর্তৃক একটি বিশেষ সংখ্যা প্রকাশের উদ্যেগকে স্বাগত জানাই। বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদের পক্ষ হতে উক্ত প্রকাশনার সাথে সংশ্লিষ্ট সকলকে জানাই-

বিজয় দিবসের শুভেচ্ছা

একটি সুখী, সমৃদ্ধ, ক্ষুধা ও দারিদ্র স্বপ্নীল ও ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার অঙ্গীকার এবং সন্ত্রাসমুক্ত পরিবেশ প্রতিষ্টার প্রত্যয় নিয়ে বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদ নিজস্ব উন্নয়ন কর্মসূচি এবং ২৮ টি ন্যস্ত বিভাগের বিভাগীয় কার্যক্রমের সমন্বয় সাধনসহ নিম্নবর্ণিত কার্যদি গ্রহণ ও বাস্তবায়ন করছেঃ

১) শিক্ষা
২) স্বাস্থ্য সেবা
৩) কৃষি
৪) মৎস্য ও প্রাণি সম্পদ
৫) ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প
৬) যোগাযোগ
৭) পানীয় জল ও স্যানিটেশন
৮) সমবায় ও সমাজ সেবা কার্যক্রম
৯) ক্রীড়া ও সংস্কৃতি কর্মকান্ড
১০) স্থানীয় পর্যটন
১১) আইসিটি সেক্টর উন্নয়ন এবং
১২) মানব সম্পদ উন্নয়ন ইত্যাদি।

একটি উন্নত, সমৃদ্ধ, আধুনিক ও সম্প্রীতিত মডেল জেলা হিসেবে বান্দরবানকে গড়ে তোলাই হলো আমাদের দৃঢ় অঙ্গীকার-

ক্য শৈ হ্লা
চেয়ারম্যান
বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদ
বান্দরবানান