শনিবার, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৯, ৩০ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

‘নবজাতকের লাশ’ নিয়ে গুজব ছড়ানোয় চট্টগ্রামে গ্রেপ্তার ১

প্রকাশিতঃ মঙ্গলবার, নভেম্বর ১২, ২০১৯, ২:০৫ অপরাহ্ণ


চট্টগ্রাম: চট্টগ্রাম নগরের জমিয়তুল ফালাহ মসজিদের পাশে ‘অসংখ্য নবজাতকের লাশ’ ফেলে দেয়া হয়েছে বলে ফেইসবুকে গুজব ছড়ানোর অভিযোগে এক যুবককে গ্রেপ্তার করেছে কোতোয়ালী থানা পুলিশ।

সোমবার রাতে নগরীর পুরাতন রেলওয়ে স্টেশন সংলগ্ন হোটেল এলিনার সামনে থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলে কোতোয়ালী থানার ওসি মোহাম্মদ মহসীন জানান।

গ্রেপ্তার মো. সাঈদ হোসাইন কানন (২৭) কুমিল্লার লাকসাম থানার কান্দিরপাড় ইউনিয়নের হামিরাবাগ পশ্চিম পাড়ার কোরবান আলীর ছেলে। তিনি নগরের রিয়াজউদ্দিন বাজারের বানিয়াটিলা ইব্রাহিম কমিশনারের ভবনে ব্যাচেলর হিসেবে ভাড়ায় থাকতেন।

একই ঘটনায় মোঃ পারভেজ (২৫) নামের একজন পলাতক আছেন জানিয়ে কোতোয়ালী থানার ওসি মোহাম্মদ মহসীন বলেন, গত ৯ সেপ্টেম্বর বিকেলে MD Parvey SP নামের একটি ফেইসবুক আইডি থেকে পলাতক আসামি পারভেজ লাইভে আসেন। একই লাইভে গ্রেপ্তার সাঈদও ছিলেন। তারা ফেইসবুক লাইভে উল্লেখ করেন জমিয়তুল ফালাহ মসজিদের পাশে অসংখ্য নবজাতকের লাশ ফেলে দেয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, প্রকৃত সত্য হচ্ছে জমিয়তুল ফালাহ কমপ্লেক্স এর কম্পিউটার অপারেটর মো. ইলিয়াছের বাসার পিছনে ঘটনার দিনসহ বহুদিন আগের তার শিশু বাচ্চার ব্যবহৃত পেম্পাস ঘরের পিছনে ময়লা আর্বজনার মধ্যে ফেলে দেয়। বৃষ্টির পানিতে উক্ত পেম্পাস ফুলে জেলি আকৃতি ধারণ করে। এসব দেখিয়ে দুই আসামি ফেইসবুকে বর্ননা দেয়, অনেকগুলো অবৈধ বাচ্চা, অবৈধ না বৈধ সেটা আমরা সঠিক জানতে পারতেছি না। নড়াচড়া করে দেখায় যে সবগুলো অবৈধ বাচ্চা। উক্ত ভিডিওটি মুহুর্তের মধ্যে ফেইসবুক তথা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব্যাপক আলোড়ন সৃষ্টি করে।

ওসি মোহাম্মদ মহসীন বলেন, ফেইসুবকে এ ধরনের গুজব প্রচার করে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি অবনতি করার চেষ্টাসহ তারা সামাজিক যোগযোগ মাধ্যমে অতি পরিচিত মুখ হিসাবে পরিচিতি লাভ করার চেষ্টা করে। এ ঘটনায় জড়িত দুইজনের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করা হয়েছে। পলাতক পারভেজকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।