শনিবার, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৯, ৩০ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

দুর্নীতি দমন নয়, দুর্নীতি প্রতিরোধ করতে হবে : দুদক কমিশনার

প্রকাশিতঃ মঙ্গলবার, নভেম্বর ১২, ২০১৯, ৪:০৮ অপরাহ্ণ


চট্টগ্রাম: দুর্নীতি দমনের চেয়ে দুর্নীতি প্রতিরোধে সংশ্লিষ্ট সবাইকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়েছেন দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) কমিশনার এ এফ এম আমিনুল ইসলাম।

চট্টগ্রাম বন্দর ব্যবহারকারীদের হয়রানি বন্ধ ও সেবা গ্রহীতাদের সর্বোচ্চ সেবা পাওয়ার লক্ষে মঙ্গলবার বন্দর অডিটরিয়ামে দুদকের গণশুনানি অনুষ্ঠিত হয়েছে। দুর্নীতি দমন কমিশন ও দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটি চট্টগ্রাম এ গণশুনানির আয়োজন করে। দুদক কমিশনার এ এফ এম আমিনুল ইসলাম অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন।

শুনানিতে চট্টগ্রাম বন্দরের হাইস্টার অপারেটর, ক্রেন অপারেটর, হেলমেট অপারেটর এবং চেকার এর ঘুষ নেওয়াসহ নানা অনিয়ম তুলে ধরেণ সেবা গ্রহীতারা। এছাড়া বন্দরের কোন টেবিলে স্পিড মানি না দিলে সেবা মিলেনা বলে অভিযোগ করেন সিএনএফ ব্যবসায়ীরা ।

দুদক কমিশনার বলেন, ২০০৪ সালে দুদক প্রতিষ্ঠিত হওয়ার পর গণশুনানির মাধ্যমে সাধারণ মানুষের হাতের নাগালে সেবা পৌঁছে দেওয়ার লক্ষে কাজ করে যাচ্ছে। দুর্নীতি দমন নয়, দুর্নীতি প্রতিরোধ করতে হবে। যারা দুর্নীতি করে তারা দেশ ও জাতির শত্রু, তাকে সবাই ঘৃনা করে।

তিনি বলেন, বন্দর সেবা প্রদানকারী সংস্থা। দেশের আপামর জনতা সততা ও স্বচ্ছতার সাথে সেবা পাওয়ার আশা করে। তিনি আরো বলেন, দুদকের কাজ কারো হয়রানি করা নয়। কাউকে ছোট করার উদ্দেশ্যেও দুদক গণশুনানি করে না। তবে মাঠ পর্যায়ের অফিস গুলো কেমন চলছে তা সরেজমিনে দেখার জন্য দুদক এধরণের গণশুনানি করে থাকে।

বন্দর চেয়ারম্যান বলেন, গণতান্ত্রিক সরকার চট্টগ্রাম বন্দরের সক্ষমতা বৃদ্ধির জন্য সর্বাত্মক চেষ্টা করে যাচ্ছে। এতে বন্দরের সক্ষমতা বাড়ছে। পণ্য উঠা নামায় খরচ কমছে। বন্দরের নিরাপত্তা ও কন্টেনার হ্যান্ডলিং কার্যক্রম পূর্বের তুলনায় অনেক গুণ বৃদ্ধি পাচ্ছে।

অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (উন্নয়ন) মো. নুরুল আলম নিজামী এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে চট্টগ্রাম বন্দর চেয়ারম্যান রিয়ার এডমিরাল জুলফিকার আজিজসহ চট্টগ্রাম মহানগর দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ সিরাজুল ইসলাম কুমু উপস্থিত ছিলেন।