বুধবার, ২৪ অক্টোবর ২০১৯, ৮ কার্তিক ১৪২৬

আগামীবার ঢাকার ‘কাছাকাছি পর্যায়ের’ বইমেলা করবে চসিক: মেয়র নাছির

প্রকাশিতঃ রবিবার, ফেব্রুয়ারি ১০, ২০১৯, ৯:৩১ অপরাহ্ণ


চট্টগ্রাম: ঢাকা ও চট্টগ্রামের প্রকাশনা সংস্থাগুলোকে নিয়ে আগামীবার আরও বড় পরিসরে একুশে বইমেলা আয়োজনের উদ্যোগ চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন (চসিক) নেবে বলে জানিয়েছেন মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন।

উদ্বোধন অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্যে মেয়র বলেন, চসিক এর আগেও বই মেলার আয়োজন করেছে। কিন্তু এবারের বইমেলার সঙ্গে বিগত সময়ের বইমেলার অনেক ব্যবধান ও পার্থক্য আছে। চট্টগ্রামে বিভিন্ন ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে বইমেলা করা হতো অমর একুশকে ঘিরে। কিন্তু চট্টগ্রামের কবি-সাহিত্যিক, লেখক, প্রকাশকদের মনে এক ধরনের ক্ষোভ, অভিমান, কষ্ট, আক্ষেপ ছিল। আসলে ঢাকার পরে আমরা চট্টগ্রামকে স্থান দিয়ে থাকি। কিন্তু বইমেলা আয়োজনের ক্ষেত্রে যদি আমরা বিচার-বিশ্লেষণ করি তাহলে দেখা যাবে এখানে আকাশ আর পাতাল পার্থক্য।

তিনি বলেন, সেই কারণেই যারা কবি-সাহিত্যিক এবং লেখক-প্রকাশক প্রত্যেকের পক্ষ থেকে আওয়াজ উঠেছিল চসিক এমন একটি বইমেলার আয়োজন করুক। যে বইমেলার সাথে সবাই সম্পৃক্ত হবে। এবং যে বইমেলার একটা মান থাকবে। সেই চিন্তা থেকেই আমরা নাগরিক সমাজের সাথে যোগাযোগ করেছি। তাদের দাবির প্রেক্ষিতে এবারের বইমেলা সাজিয়েছি। প্রাথমিকভাবে আমরা সফল হয়েছি। ১১০ টি প্রকাশনা সংস্থা স্টল দিয়েছে, অনেক নতুন বই মেলায় এসেছে।

আগামীতে আরও বড় পরিসরে বইমেলা হবে জানিয়ে মেয়র আ জ ম নাছির বলেন, প্রধান অতিথি (তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ) আমাকে একটি পরামর্শ দিয়েছেন। উনার পরামর্শটা আমার কাছে অত্যন্ত যৌক্তিক মনে হয়েছে। সেটি হলো এবারের বইমেলার সফলতার উপর নির্ভর করে আমরা আগামীকে আরো বৃহত্তর পরিসরে এবং বৃহত্তর আঙ্গিকে চট্টগ্রামের বইমেলাটি করবো। যাতে ঢাকার কাছাকাছি পর্যায়ে আমরা পৌছতে পারি।

তিনি বলেন, এই বইমেলা আয়োজনের মাধ্যমে আমরা নতুন নতুন পাঠক সৃষ্টি নয়, আমরা লেখক ও প্রকাশক সৃষ্টি করবো। যাতে পাঠকদের মাধ্যমে লেখকদের উপর এক ধরনের চাপ তৈরী হবে, অনুকুল পরিবেশ সৃষ্টি হবে। পাশাপাশি প্রকাশকরাও উৎসুক হয়ে অপেক্ষা করবে, কখন আবার বইমেলা শুরু হচ্ছে।


চসিক মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেন, প্রতি বছর নির্ধারিত সময়ে নির্দিষ্ট স্থানে বইমেলা শুরু হবে। স্টেডিয়াম প্রাঙ্গণসহ আশপাশের সড়ক বন্ধ করে দেওয়া হবে। তাহলে অনেক বড় পরিসরে বইমেলা আমরা আয়োজন করতে পারবো। অনেক বেশি স্টল দিতে পারবো।

এর আগে তথ্যমন্ত্রী জাতীয় পতাকা, মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন চসিকের পতাকা উত্তোলন করেন। এ সময় জাতীয় সংগীত পরিবেশন করেন কাপাসগোলা সিটি করপোরেশন কলেজের ছাত্রীরা। পরে তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ ফেস্টুন উড়িয়ে মেলার উদ্বোধন করেন।

চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন (চসিক) চট্টগ্রাম সৃজনশীল প্রকাশক পরিষদের সহায়তায় ১৯ দিনব্যাপী এ বইমেলার আয়োজন করেছে। এতে ঢাকা ও চট্টগ্রামের ১১০টি প্রকাশনা সংস্থার প্রায় দেড়শটি স্টল রয়েছে।

উদ্বোধন অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন চসিক মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন।

স্বাগত বক্তব্য দেন চসিকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সামশুদ্দোহা। আরো বক্তব্য রাখেন বইমেলার আহ্বায়ক কাউন্সিলর নাজমুল হক ডিউক, বইমেলার যুগ্ম আহ্বায়ক মহিউদ্দিন শাহ আলম নিপু, জামাল উদ্দিন, সদস্য সচিব সুমন বড়ুয়া প্রমুখ।