শুক্রবার, ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১৪ ফাল্গুন ১৪২৭

প্রাতিষ্ঠানিক ইমেইলের অভাবে পিছিয়ে পড়ছে চবির অনার্সের শিক্ষার্থীরা

প্রকাশিতঃ রবিবার, ডিসেম্বর ১৩, ২০২০, ৭:৫৫ অপরাহ্ণ


ইফতেখার সৈকত, চবি : প্রাতিষ্ঠানিক ইমেইল অ্যাড্রেস না থাকায় পড়াশোনা-গবেষণাসহ নানা ক্ষেত্রে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) অনার্সের শিক্ষার্থীরা পিছিয়ে পড়ছেন।

শিক্ষার্থীদের প্রাতিষ্ঠানিক ইমেইল হচ্ছে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় অথবা ইনস্টিটিউটের ডোমেইন থেকে ইস্যুকৃত ই–মেইল।

একটি প্রাতিষ্ঠানিক ইমেইল অ্যাড্রেসের অভাবে উচ্চশিক্ষা, গবেষণার কাজে অনার্সের শিক্ষার্থীদের গুনতে হচ্ছে বিপুল পরিমাণ অর্থ। অথচ প্রাতিষ্ঠানিক ইমেইল অ্যাড্রেস থাকলে একজন শিক্ষার্থী একই ধরনের সেবা পেতে পারেন অনেক কম খরচে অথবা বিনামূল্যে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় ও নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়সহ দেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে অনার্সের শিক্ষার্থীদের জন্য এই মেইল সুবিধা থাকলেও নেই চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে।

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রাতিষ্ঠানিক ইমেইল অ্যাড্রেসের এই সুবিধা পেতে হলে শিক্ষার্থীদের অপেক্ষা করতে হয় মাস্টার্স পর্যন্ত। যার ফলে অনার্সে অধ্যায়নরত শিক্ষার্থীরা পিছিয়ে পড়ছেন।

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় রিসার্চ এন্ড হায়ার স্টাডি সোসাইটির এক্সিকিউটিভ মেম্বার তানজিলুর রহমান নাইম একুশে পত্রিকাকে বলেন, ‘একটি প্রাতিষ্ঠানিক ইমেইল একজন বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীর জন্য আন্তর্জাতিকভাবে তার পরিচয়পত্র। এটি পাওয়া যে কোনো বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীর অধিকার। হোক সে স্নাতক পর্যায়ের শিক্ষার্থী কিংবা স্নাতকোত্তর কিংবা অন্য ডিগ্রিতে অধ্যয়নরত।’

তিনি বলেন, ‘প্রাতিষ্ঠানিক ইমেইল যে কোনো বিশ্ববিদ্যালয়ের যে কোনো পর্যায়ের শিক্ষার্থীকে অনেক সুবিধা দিয়ে থাকে। এই ধরনের ইমেইলের অভাবে শিক্ষার্থীরা অনেক সুযোগ পেয়েও তা গ্রহণ করতে পারেন না, যা একজন শিক্ষার্থীকে অনেক ক্ষেত্রেই পিছিয়ে রাখে এবং পরবর্তীতে যা প্রতিষ্ঠানের প্রতি হতাশা তৈরি করে। প্রতিষ্ঠানিক ইমেইল থাকলে বিভিন্ন কম্পিউটারভিত্তিক গবেষণাতে ব্যবহৃত সফটওয়ার, টুলস ফ্রিতে ব্যবহার করা যায়।’

‘অনেক নামি-দামী রিসার্চ জার্নাল শিক্ষার্থীদের জন্যে গবেষণাপত্র ফ্রি বা স্বল্পমূল্যে প্রদান করে থাকে। কিন্তু প্রাতিষ্ঠানিক ইমেইলের অভাবে শিক্ষার্থীরা প্রমাণ দিতে পারে না যে তারা আদৌ শিক্ষার্থী। এই ধরনের আরো অসংখ্য সুযোগ-সুবিধা গ্রহণে একজন শিক্ষার্থীকে ব্যর্থ হওয়া লাগে শুধুমাত্র একটি প্রাতিষ্ঠানিক ইমেইলের অভাবে।’ বলেন তানজিলুর রহমান নাইম।

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় রিসার্চ এন্ড হাইয়ার স্টাডিজ সোসাইটির রিসার্চ ইন্টার্ন মো. আব্দুল্লাহ বলেন, ‘প্রাতিষ্ঠানিক মেইল ছাড়া কিছু রিসার্চ রিলেটেড ওয়েবসাইটে একাউন্ট খোলা যায় না, ফলে গবেষণাপত্র রিভিউ ও গবেষকদের সাথে যোগাযোগে সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়। তাছাড়া গুগলের কিছু দামি ফিচার আছে যেগুলো বিনামূল্যে পেতে গেলে প্রাতিষ্ঠানিক মেইলের প্রয়োজন হয়।’

অর্থনীতি বিভাগের শিক্ষার্থী দেওয়ান তাহমিদ বলেন, ‘বিশ্বের সবচেয়ে প্রেস্টিজিয়াস ইমেইল বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাতিষ্ঠানিক ইমেইল। বিশ্বখ্যাত বিভিন্ন জার্নাল থেকে সহজেই অনলাইনে গবেষণা প্রবন্ধ পড়া, গবেষণা প্রবন্ধ প্রকাশ করা, গবেষণায় অনুদান ও শিক্ষাবৃত্তির জন্য আবেদন করা ইত্যাদি ক্ষেত্রে প্রাতিষ্ঠানিক ইমেইল শিক্ষার্থীদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। এছাড়া এই ইমেল দ্বারা বিনামূল্যে বিভিন্ন অনলাইন কোর্সে পড়াশোনা ও বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সফটওয়্যার ব্যবহার, গুগল ড্রাইভে আনলিমিটেড স্টোরেজ ব্যবহারসহ আরো অনক সুবিধা পাওয়া যায়।’

তিনি বলেন, ‘প্রাতিষ্ঠানিক ইমেইল না থাকায় চবি শিক্ষার্থীরা এসব সুবিধা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। তাই শুধু মাস্টার্সের জন্য নয়, অনার্স-মাস্টার্সের সকল শিক্ষার্থীর জন্যই এটি প্রয়োজন। বর্তমানে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় সব শিক্ষার্থীদের জন্য প্রাতিষ্ঠানিক ইমেইল দিচ্ছে। চবিতেও এটি দ্রুত বাস্তবায়ন হওয়া প্রয়োজন।’

জানতে চাইলে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের আইসিটি সেলের পরিচালক অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ খাইরুল ইসলাম একুশে পত্রিকাকে বলেন, প্রাতিষ্ঠানিক মেইলের অনেক কাজ রয়েছে। এই মেইল সুবিধা দিয়ে শিক্ষার্থীরা গবেষণার অনেক কাজ করতে পারে। আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ে মাস্টার্সের শিক্ষার্থীদের জন্য এই সুবিধা রয়েছে। অনার্সের শিক্ষার্থীদের সুবিধাটি দেয়া নিয়ে কথা বলেছি। যদি প্রশাসন চায় তাহলে আমরা অনার্সের শিক্ষার্থীদের জন্যও এই সুবিধা চালু করবো।