শুক্রবার, ১৬ এপ্রিল ২০২১, ৩ বৈশাখ ১৪২৮

শিশুবেলার ছড়া পাঠ করে শোনালেন মেয়র রেজাউল

প্রকাশিতঃ শনিবার, ফেব্রুয়ারি ২৭, ২০২১, ৬:৩৩ অপরাহ্ণ

চট্টগ্রাম : গান, সাংস্কৃতিক আড্ডা ভালো লাগে জানিয়ে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের নবনির্বাচিত মেয়র এম রেজাউল করিম চৌধুরী সুহৃদ-স্বজনরা ডাকলে ব্যস্ততার ফাঁকেও সুরের আড্ডায় অংশ নেওয়ার ইচ্ছা প্রকাশ করেছেন।

বৃহস্পতিবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) রাতে একুশে পত্রিকার বিশেষ আয়োজন ‘নগরপিতার মুখোমুখি’ অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে এক পর্যায়ে এই ইচ্ছার কথা জানান তিনি।

তিনি বলেন, ‘আমি জীবনে ফুটবল, ব্যাডমিন্টন সব খেলেছি। শিক্ষাজীবনে আবৃত্তি, বিতর্ক ও সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ডে যুক্ত ছিলাম। চট্টগ্রামে বঙ্গবন্ধু  সাংস্কৃতিক স্কোয়াড গঠন করেছি।’

এসময় শহরের গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে সাংস্কৃতিক স্কোয়াড গড়ে তোলার ইচ্ছার কথাও জানান একুশে পত্রিকার সাথে আলাপচারিতায়।

যেহেতু সাংস্কৃতিক পরিমণ্ডলে বড় হয়েছেন, তাই আলাপের এক পর্যায়ে মেয়র রেজাউলকে অনুষ্ঠানের সঞ্চালক আজাদ তালুকদার একটি গান করার অনুরোধ জানান; ঋজু হয়ে রেজাউল বলেন, ‘না না আমি গান শুনতে ভালোবাসি, গাইতে নয়। আপনারা একদিন গানের আয়োজন করেন, আমি আসব।’ যতই ব্যস্ত থাকেন সুহৃদদের ডাকে গানের আয়োজনে সাড়া দেবেন বলে আশ্বস্ত করেন।

কিন্তু ঘুরে-ফিরে মেয়রকে দিয়ে গান করাতে কৌশলী ভূমিকায় সঞ্চালক। সঞ্চালকের নাছোড়বান্দা ভাব দেখে, মেয়র এক পর্যায়ে অট্টহাসিতে গানের পরীক্ষা থেকে উত্তরণের চেষ্টা করেন। বলেন, গান-টান এখন আর মনে নেই, ভুলে গেছি। এবার সঞ্চালকের আবদার-যেহেতু আবৃত্তি করেছেন ছোটবেলায়, অন্তত দুইলাইন হলেও আবৃত্তি শোনান।

অসহায় মেয়র তখন উপস্থিত কবি-সাংবাদিক আবু মুসা চৌধুরীর দ্বারস্থ হন; অনুরোধ করেন তার পক্ষে হয়ে তিনি যেন আবৃত্তি শোনান। কিন্তু অফিসের পুরো পরিবেশটাই যখন মেয়রের আবৃত্তি শোনার প্রতীক্ষায়, তিনি আর ‘না’ করতে পারলেন না। দুই মিনিট চুপ থাকার পর শুরু করলেন -ঐ দেখা যায় তালগাছ, ঐ আমাদের গা, ওখানেতে বাস করে কানাবগির ছা’।

মেয়রের অন্ত:প্রাণ, শিশুতোষ এমন আচরণে মুগ্ধতার ঢেঁকুর তোলেন সঞ্চালকসহ উপস্থিত সকলজন। অনুষ্ঠান শেষে মেয়র তার রাজনৈতিক সহকর্মী, একুশে পত্রিকার নির্বাহী সম্পাদক এডভোকেট রেহানা বেগম রানুকে স্বপ্রণোদিত হয়েই বললেন, ‘তোমাদের পত্রিকা অফিস বা বাসায় একটা গানের আসর করো, আমি নিশ্চিত আসব।’