বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

ব্যাটিং ব্যর্থতায় হেরে গেল বাংলাদেশ

প্রকাশিতঃ ১১ জুন ২০২৪ | ১২:৩৩ পূর্বাহ্ন


খেলাধুলা ডেস্ক : শেষ মুহূর্তের রোমাঞ্চকর লড়াইয়ে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে শক্তিশালী দক্ষিণ আফ্রিকার সঙ্গে তীরে এসে তরী ডুবল বাংলাদেশের। ১১৪ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে শেষ ওভারের রোমাঞ্চে ৪ রানের হার নিয়ে মাঠ ছাড়ে টাইগাররা।

দক্ষিণ আফ্রিকার দেওয়া ১১৪ রানের লক্ষে ব্যাট করতে নেমে দলীয় ও ব্যক্তিগত মাত্র ৯ রানে তানজিদ হাসান তামিমের পর ফিরে যান লিটন দাস (৯ রান) ও সাকিব আল হাসান (৩ রান)। ফলে ৩৭ রানেই ৩ উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে বাংলাদেশ। এরপর নাজমুল হাসান শান্ত (১৪) আউট হলে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের সঙ্গে জুটি গড়েন তাওহিদ হৃদয়।

জুটি গড়ে দলকে বিপর্যয় থেকে টেনে তুলেন তাওহীদ হৃদয় ও মাহমুদউল্লাহ। পঞ্চম উইকেটে এই জুটির ৪৪ রানে ভর করে ঘুরে দাঁড়ায় বাংলাদেশ। তবে এই জুটি ভাঙার পর আবারও চাপে পড়ে বাংলাদেশ।

৩৪ বলে ৩৭ রান করে তাওহিদ হৃদয় সাজঘরে ফিরলে হাল ধরেন মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ। জাকের আলীকে নিয়ে মাহমুদউল্লাহ শেষ পর্যন্ত চেষ্টা করেও ব্যর্থ হন।

শেষ ওভারে জাকের আলী ও মাহমুদুল্লাহ আউট হয়ে গেলে জয়ের আশা ফিকে হয়ে যায় বাংলাদেশের। ৬ বলে ১১ রান থেকে শেষ মুহূর্তে লক্ষ্য এসে দাঁড়ায় ১ বলে ৬ রান। উইকেটে তখন রিশাদ হোসাইন ও তাসকিন আহমেদ। জোরে হাঁকিয়েছিলেন তাসকিন। কিন্তু শেষ বলে ১ রান নিয়েই সন্তোষ্ট থাকতে হয় তাকে। ফলে ৭ উইকেট হারিয়ে নির্ধারিত ২০ ওভারে ১০৯ রানে থামে বাংলাদেশের ইনিংস।

এদিন নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচেই ওপেনিংয়ে পরিবর্তন আনে বাংলাদেশ। বাংলাদেশের হয়ে আজ ওপেনিংয়ে নামেন তানজিদ হাসান তামিম ও নাজমুল হোসেন শান্ত। তবে ওপেনার পরিবর্তন হলেও ভাগ্য পরিবর্তন হয়নি বাংলাদেশের। কেননা ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারেই ভেঙে যায় এই জুটি।

কাগিসো রাবাদার বলে কুইন্টন ডি ককের হাতে ক্যাচ তুলে দিয়ে সাজঘরে ফিরে যান তানজিদ হাসান তামিম। তার বিদায়ে ৯ রানেই প্রথম উইকেট হারায় বাংলাদেশ।

তানজিদের বিদায়ের পর লিটন দাসকে নিয়ে জুটি গড়েন শান্ত। দুই ব্যাটারই দেখেশুনে খেলতে থাকেন। তবে এই জুটিকে বেশিদূর এগোতে দিলেন না কেশভ মহারাজ। কেশভ মহারাজের বলে কাভারে ডেভিড মিলারের হাতে ক্যাচ তুলে দিয়ে সাজঘরে ফিরে গেলেন লিটন দাস। আউট হওয়ার আগে করেন ১৩ বলে ৯ রান। তার বিদায়ে ২৯ রানে ২ উইকেট হারালো বাংলাদেশ।

লিটন দাসের পর সাজঘরে ফিরে যান সাকিব আল হাসানও। এনরিখ নর্কিয়ার বলে মিড উইকেটে এইডেন মার্করামের হাতে ক্যাচ তুলে দিয়ে সাজঘরে ফিরে যান তিনি। তার বিদায়ে ৩৭ রানেই ৩ উইকেট হারিয়ে চাপে পড়েছে বাংলাদেশ।

এর আগে সোমবার (১০ জুন) নিউইয়র্কের নাসাউ কাউন্টি ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টস জিতে শুরুতে ব্যাটিংয়ে নামে দক্ষিণ আফ্রিকা। টস জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে মাত্র ২৩ রানেই প্যাভিলিয়নের পথ ধরে চার প্রোটিয়া বোলার। পঞ্চম উইকেটে ডেভিড মিলার ও হেনরিখ ক্লাসেনের ৭৯ রানে ভর করে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে ১১৩ রান তুলতে সক্ষম হয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকা। বাংলাদেশর হয়ে তানজিম হাসান সাকিব ৩ টি, তাসকিন ২ টি ও রিশাদ হোসেন ১ টি উইকেট নিয়েছেন।

দক্ষিণ আফ্রিকার হয়ে কেশভ মহারাজ ৩টি, কাগিসো রাবাদা ও এনরিট নর্টজে ২টি করে উইকেট নেন। এরমধ্যে শেষ ওভারের তৃতীয় ও পঞ্চম বলে দুই উইকেট তুলে বাংলাদেশের জয় ছিনিয়ে নেন কেশভ মহারাজ।