বুধবার, ২২ আগস্ট ২০১৯, ৬ ভাদ্র ১৪২৬

চবির পরিবহন সংকট নিরসনে ছাত্রলীগের আরাফাতের ১২ দফা

প্রকাশিতঃ বৃহস্পতিবার, মার্চ ২১, ২০১৯, ৬:৩৯ অপরাহ্ণ

চবি প্রতিনিধি : পরিবহন সংকট নিরসনসহ ১২টি দাবি নিয়ে চবি উপাচার্য বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করেছে ‘সম্মিলিত গণতান্ত্রিক শিক্ষার্থী সংসদ’

বৃহস্পতিবার (২১ মার্চ) সংগঠনটি শিক্ষার্থীদের পক্ষে উপাচার্য প্রফেসর ড. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী বরাবর এই স্মারকলিপি প্রদান করেন শাখা ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি ও সম্মিলিত গণতান্ত্রিক শিক্ষার্থী সংসদ, চবির প্রতিষ্ঠাতা এনামুল হক আরাফাত।

স্মারকলিপিতে বলা হয়, ১৯৬৬ সালে প্রতিষ্ঠিত হওয়া চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের অবস্থান শহর থেকে ২২ কিলোমিটার দূরে হাটহাজারীর জোবরা গ্রামে। এই দূরত্বের কারণে এখানকার শিক্ষার্থীদের সবচেয়ে বড় সমস্যা যাতায়াত। যাতায়াতের সুবিধার্থে ১৯৮০ সালে শাটল ট্রেনের যাত্রা শুরু হয়। প্রতিদিন প্রায় ১০ হাজার শিক্ষার্থীর যাতায়াতের মাধ্যম এই শাটলট্রেন। কিন্তু ৯ বগির মাত্র ২টি শাটলট্রেন শিক্ষার্থীর তুলনায় অপ্রতুল। তাছাড়া শিক্ষার্থীদের যাতায়াতের জন্য বাসের ব্যবস্থা খুবই কম। কাজেই যাতায়াতের নানাবিধ সমস্যার কারণে শিক্ষার্থীদের শিক্ষারজীবনমান বিঘ্নিত হচ্ছে।

এহেন পরিস্থিতিতে সম্মিলিত গনতান্ত্রিক শিক্ষার্থী সংসদ যাতায়াত ব্যবস্থা নিশ্চিতকল্পে ১২টি দাবি তুলে ধরেছে। দাবিগুলো হলো- শাটর ট্রেনের বগি বৃদ্ধি, ডাবল লাইন চালু, ট্রেনের বগিসমূহের পুনঃসংস্কার, স্টেশনে আইনশৃঙ্খলাবাহিনীর মাধ্যমে যাতায়াতকারী শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা, প্রতিটি স্টেশনে শৌচাগারগুলো শিক্ষার্থীদের ব্যবহার উপযোগী করে তোলা, ক্যাম্পাসের সৌন্দর্য বৃদ্ধি ও শিক্ষার্থীদের জন্য স্টেশনে বসার সুব্যবস্থা করা, ক্যাম্পাস থেকে নগর পর্যন্ত রাস্তার দুই পাশে যাত্রিছাউনী স্থাপন করা, বিশ্ববিদ্যালয়ের অভ্যন্তরে শিক্ষার্থীদের জন্য পুনরায় বাস সার্ভিস চালু করার পাশাপাশি শিক্ষার্থীদের জন্য আলাদা বাস চালু করা, বিশ্ববিদ্যালয়ের ১নং গেইটে রাস্তা পারাপারের জন্য একটি ফুট ওভার ব্রিজ ও দুইটি স্পীড ব্রেকার তৈরী করা, বিশ্ববিদ্যালয়ের অভ্যন্তরে ন্যায্য রিকসা ভাড়া নির্ধারণ ও তা কার্যকর করা, বিশ্ববিদ্যালয়ের ১নং গেইট থেকে জিরো পয়েন্ট পর্যন্ত রাস্তা মেরামত করা ও স্টেশনে নির্মিত বঙ্গবন্ধু প্রতিকৃতি সংস্কার।

স্মারকলিপি প্রদানকালে উপস্থিত ছিলেন চবি ছাত্রলীগের সহ-সম্পাদক শরীফ উদ্দিন, কাজী পাপন, মিজানুর রহমান খান, আলমগীর, আশরাফুল আলম চপল, রনি তালুকদার, কনক সরকার, খিজির মির্জা ও সাদাফ খান।

একুশে/আইএস/এসসি