সোমবার, ১৮ জানুয়ারি ২০২১, ৫ মাঘ ১৪২৭

পুলিশের তালিকাভুক্ত শীর্ষ সন্ত্রাসী ‘ডন নুরু’ গ্রেফতার

প্রকাশিতঃ শনিবার, জানুয়ারি ৯, ২০২১, ২:১৯ অপরাহ্ণ


চট্টগ্রাম : চট্টগ্রাম নগর পুলিশের তালিকাভুক্ত শীর্ষ সন্ত্রাসী নুরে আলম ওরফে ডন নুরুকে সহযোগী কাউসারসহ গ্রেফতার করেছে গোয়েন্দা পুলিশ।

শুক্রবার (৮ জানুয়ারি) রাতে নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

নগর গোয়েন্দা পুলিশের পরিদর্শক মো. কামরুজ্জামান জানান, নুরু আকবরশাহ পূর্ব ফিরোজশাহ এলাকার বাসিন্দা। তার বিরুদ্ধে সরকারি জায়গা ও পাহাড় দখল, কাঠপাচার, অস্ত্রবাজি, পুলিশের ওপর হামলাসহ অন্তত ২৮টি মামলা রয়েছে।

আকবর শাহ থানার ওসি জহির উদ্দিন জানান, বিভিন্ন অপরাধে নুরুর বিরুদ্ধে আকবরশাহ ও খুলশী থানায় দায়ের হওয়া ২৮টি মামলার মধ্যে অস্ত্র আইনের একটি মামলায় ২০১৯ সালের ১৭ আগস্ট তার বিরুদ্ধে ১৭ বছর সাজার আদেশ হলেও সেই সাজা পরোয়ানা থানার নথিতে নেই।

চট্টগ্রাম মহানগর পিপি মোহাম্মদ ফখরুদ্দিন বলেন, যে আদালত তাকে সাজা দিয়েছে সেই আদালত থেকে সাজা পরোয়ানা দণ্ডিত আসামি যে থানা এলাকায় থাকেন ওই থানায় যাবে পরোয়ানা। অথচ থানা বলছে নুরুর ১৭ বছরের সাজা সংক্রান্ত পরোয়ানা তাদের কাছে নেই। বিষয়টি বিস্ময়কর। এটি তদন্ত হওয়া উচিত।

মামলার রায়ের আদেশে কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম জেলার গুনবতী থানার চাঁপাচো হাজি বাড়ির তনু মিয়া ভাণ্ডারির ছেলে নুর আলম প্রকাশ নুরু বর্তমানে নগরীর আকবরশাহ থানার পুর্ব ফিরোজশাহ ১ নম্বর ঝিল এলাকায় থাকেন। তাকে অস্ত্র আইন ১৮৭৮ এর ১৯ এ ধারায় দশ বছর সশ্রম ও ১৯ (এফ) ধারায় সাত বছরের সশ্রম কারাদণ্ডে দণ্ডিত করার কথা উল্লেখ আছে।

পলাতক আসামি নুরু যে দিন আদালতে হাজির হবেন কিংবা পুলিশের হাতে ধরা পড়বেন সেদিন থেকে তার সাজার মেয়াদ গণনা করা হবে। তার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানাসহ সাজা পরোয়ানা ইস্যু করা হোক মর্মে আদেশে বলা আছে।

পুলিশের দাবি- নুরুর বিরুদ্ধে ১৭ বছরের সাজা হয়েছে এ ধরনের কোনও পরোয়ানা বিগত দুই বছরে থানায় আসেনি। অথচ সাজা পরোয়ানা মাথায় নিয়ে পুর্ব ফিরোজশাহ নাছিয়াঘোনা এলাকায় সরকারি পাহাড় দখল করে তিনি গড়ে তুলেছেন অপরাধের সাম্রাজ্য।