১৯ জুন ২০১৯, ৫ আষাঢ় ১৪২৬, বুধবার

গরম বক্তৃতায় পরিবেশ নষ্ট না করার আহ্বান হাছান মাহমুদের

প্রকাশিতঃ শুক্রবার, নভেম্বর ২, ২০১৮, ৫:৩১ অপরাহ্ণ

 

 

 

 

 

 

 

 

 

ঢাকা : গরম বক্তৃতা করে কাউকে পরিবেশ বিনষ্ট না করার আহ্বান জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ।

শুক্রবার (২ নভেম্বর) জাতীয় প্রেসক্লাবের এক আলোচনায় এ কথা বলেন তিনি।

ঐক্যফ্রন্টের সঙ্গে আওয়ামী লীগের আলোচনায় দেশের রাজনীতিতে একটি সৌহার্দ্যপূর্ণ পরিবেশ সৃষ্টি হয়েছে উল্লেখ করে হাছান মাহমুদ বলেন, ‘সাড়ে তিন ঘণ্টা থেকে পৌনে চার ঘণ্টা আলোচনা হয়েছে।

সংলাপের পর কামাল হোসেন যেটা বলেছেন, অত্যন্ত সৌহার্দ্যপূর্ণ পরিবেশের কথা বলেছে সেটাই সত্য কথা, এটাই হচ্ছে বাস্তবতা। তাই আজকে যে সৌহার্দ্যপূর্ণ পরিবেশ সৃষ্টি হয়েছে, আমরা আশা করব, এই পরিবেশ আপনারা কেউ নষ্ট করবেন না।’

সভা-সমাবেশ করার কথা উল্লেখ করে হাছান মাহমুদ বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী সংলাপে বলেছেন, সভা সমাবেশ আপনারা অবাধে করতে পারেন।

শুধুমাত্র জনগণের যেন ভোগান্তির শিকার না হতে হয় সেটি মাথায় রেখে রাস্তা বন্ধ করে দয়া করে সভা সমাবেশ করবেন না।

কিন্তু সব সমাবেশের নামে অতীতে দেশে যে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি হয়েছে, আমরা আশা করব বিএনপি, বিএনপির নেতৃবৃন্দ সেই পথে হাঁটবে না, ঐক্যফ্রন্টকে সে কাজে ব্যবহার করবে না। এটি যদি করে জনগণ প্রতিহত করবে। কারণ জনগণ দেশে শান্তি এবং স্থিতিশীলতা চায়।

হাছান মাহমুদ বলেন, ‘সংবিধানের বাইরে যাওয়ার কোনও সুযোগ নেই, সেটি গতকাল আলোচনা হয়েছে। সংবিধানের আলোকে একটি অবাধ, সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ নির্বাচন করার জন্য যা যা করণীয় তা প্রধানমন্ত্রী সংলাপে ব্যক্ত করেছেন।

আওয়ামী লীগ সাংঘর্ষিক রাজনীতির অবসান চায় মন্তব্য করে হাছান বলেন, ‘আমরা ফনফ্রনটেশন অব পলিটিক্স বাদ দিয়ে যেতে চাই। আমরা বাংলাদেশে যে সাংঘর্ষিক রাজনীতি, তার অবসান চাই।

তিনি বলেন, আমরা পলিটিক্স অব কনসাল্টেশনে বিশ্বাস করি, আমরা পলিটিক্স অব একোমডেশনে বিশ্বাস করি। সেই কারণে প্রধানমন্ত্রী তাদের সংলাপে আমন্ত্রণ জানিয়েছেন।

জনগণ পছন্দের প্রতিনিধিকে নির্বাচিত করার সুযোগ পাবে উল্লেখ করে হাছান মাহমুদ বলেন, আগামী নির্বাচনে ঐক্যফ্রন্ট অংশ নিলে একটি প্রতিদ্বন্দ্বিতামূলক নির্বাচন হবে, জনগণ তাদের পছন্দের প্রতিনিধিকে নির্বাচিত করার সুযোগ পাবে।

সাবেক স্বরাষ্ট্রপ্রতিমন্ত্রী শামসুল হক টুকু, আওয়ামী লীগ নেতা বলরাম পোদ্দার, ঢাকা মহানগর (উত্তর) আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কাদের খান, সবুজবাগ থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক চিত্তরঞ্জন দাস, বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের সাধারণ সম্পাদক অরুণ রানা সরকার, বঙ্গবন্ধু গবেষণা সংসদের সভাপতি সিদ্দিক হোসেন চৌধুরী, প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক শেখ মো. জাহাঙ্গীর আলম প্রমুখ এ সময় বক্তব্য রাখেন।

একুশে/এসসি