বুধবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০, ৮ আশ্বিন ১৪২৭

অনিয়ম: ক্রিকেট দক্ষিণ আফ্রিকার নিয়ন্ত্রণে নিল সরকার

প্রকাশিতঃ শুক্রবার, সেপ্টেম্বর ১১, ২০২০, ৮:৩২ অপরাহ্ণ


ডারবান : ক্রিকেট দক্ষিণ আফ্রিকার (সিএসএ) বোর্ড ভেঙ্গে দিয়েছে সে দেশের সরকার। পাশাপাশি সিএসএ’র বোর্ড সদস্য ও প্রধান নির্বাহীসহ সিনিয়র নির্বাহীদের সরে দাঁড়ানোর নির্দেশ দিয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকান স্পোর্টস কনফেডারেশন এন্ড অলিম্পিক কমিটি (এসএএসসিওসি)। সেই সাথে সিএসএ’র নিয়ন্ত্রন নিয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকায় খেলাধুলার সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থা এসএএসসিওসি। দেশটিতে ক্রীড়ার নিয়ন্ত্রক সংস্থা হলো এসএএসসিওসি।

এসএএসসিওসির বোর্ড সভায় মঙ্গলবার সর্বসম্মতিক্রমে এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয় বলে জানিয়েছে ক্রিকেটের জনপ্রিয় ওয়েবসাইট ইসএনপিএনক্রিকইনফো, ক্রিকবাজসহ বেশ কিছু সংবাদমাধ্যম। সিএসএকে পাঠানো চিঠিতে এসএএসসিওসি জানিয়েছে, ক্রিকেট বোর্ডে অনেক অপশাসন ও অপকর্ম চলছে, তাতে ক্রিকেটের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন হয়েছে।

চিঠিতে বলা হয়েছে, সাম্প্রতিক সময়ে দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেট বোর্ডের শীর্ষ কর্তাদের কর্মকান্ড মোটেও সন্তোষজনক নয়। তাদের অনিয়ম, দুর্নীতি ও অব্যবস্থাপনার কারণে ক্রিকেটের প্রতি আগ্রহ হারাচ্ছে দেশের মানুষ, খেলোয়াড়, স্পন্সর ও সংগঠকরা। এ সবের বিররুদ্ধে তদন্ত করতেই দায়িত্ব নিচ্ছে এসএএসসিওসি।

কিন্তু এসএএসসিওসি’র এমন সিদ্ধান্ত মেনে নেয়নি সিএসএ। তাই আইনি পদক্ষেপ নেওয়ার কথা ভাবছে দেশটির ক্রিকেট বোর্ড।

তবে বিশ্ব ক্রিকেটে নিষেধাজ্ঞার মুখে পড়তে পারে ক্রিকেট দক্ষিন আফ্রিকা। কারন আইসিসির নিয়ম অনুযায়ী, কোনো দেশের ক্রিকেট বোর্ডে সরকার হস্তক্ষেপ করতে পারবে না। আর সেটি যদি করে থাকে, তবে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে নিষিদ্ধও হতে পারে দক্ষিণ আফ্রিকা।

এখন আইসিসি তদন্ত তরে দেখবে, আইনের পরিপন্থী কিছু হয়েছে কি-না দক্ষিণ আফ্রিকার ক্রিকেট বোর্ডে। কিছুদিন আগেই দক্ষিণ আফ্রিকার ক্রিকেটের কোটা প্রথা নিয়ে অভিযোগ গেছে আইসিসিতে। সেটিও তদন্ত করবে আইসিসি।

গেল বছর থেকেই অব্যবস্থাপনা ও বিশৃঙ্খলা চলছিলো সিএসএ’তে। এ নিয়ে সমালোচনার মুখেই ছিলো বোর্ড। দূর্নীতির অভিযোগে গত মাসে বোর্ডের প্রধান নির্বাহীর পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া হয় থাবাং মুরকে।

এসএএসসিওসি এখন একটি ‘টাস্ক টিম’ গঠন করবে। সেই ‘টাস্ক টিম’ বোর্ডের দুর্নীতি নিয়ে তদন্ত করবে। আর এক মাসের মধ্যে প্রতিবেদন দাখিল করবে ‘টাস্ক টিম’।

এর আগে জিম্বাবুয়ের সরকার দেশটির ক্রিকেট বোর্ডের নিয়ন্ত্রণ নেয়ায় নিষেধাজ্ঞার মুখে পড়েছিলো তারাও। দক্ষিণ আফ্রিকার ক্ষেত্রে কি হবে, সেটি সময় বলে দিবে।

এর আগে বর্ণবাদের কারনে ১৯৭০ থেকে ১৯৯১ সালের নভেম্বর পর্যন্ত, ২১ বছর আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে নিষিদ্ধও ছিল দক্ষিণ আফ্রিকা।