সোমবার, ১৮ জানুয়ারি ২০২১, ৫ মাঘ ১৪২৭

মাদকের হাতছানি, খেলতে গেলে চোখরাঙানি

সন্দ্বীপে জামায়াত নেতার কাণ্ড

প্রকাশিতঃ মঙ্গলবার, ডিসেম্বর ২৯, ২০২০, ১০:৫৬ পূর্বাহ্ণ

সন্দ্বীপ সংবাদদাতা : একদিকে মাদকের হাতছানি, অন্যদিকে খেলতে গেলে চোখরাঙানি। এমন চিত্র সন্দ্বীপের মগধরা ৪নং ওয়ার্ডে। এখানকার মধ্য মগধরা হামিদিয়া মাহমুদা মাদ্রাসার দীর্ঘদিনের খেলার মাঠে সম্প্রতি শিশু-কিশােরদের খেলাধুলায় বাধা দিয়েছেন মাদ্রাসাটির পরিচালনা পরিষদের সেক্রেটারি জামায়াত নেতা বােরহান উদ্দিন ও তার অনুসারীরা। ফলে এলাকাবাসীর মাঝে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

তবে মগধরা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি ও মাদ্রাসা পরিচালনা কমিটির সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম মাদ্রাসা মাঠে শিশুদের খেলাধূলা নির্বিঘ্ন রাখার পক্ষে।

সন্দ্বীপ থানার ওসি বশির আহমেদ খানও চান মাদকমুক্ত থাকতে শিশুরা এই মাঠে খেলুক। তিনি বোরহান উদ্দিনকে এ ব্যাপারে তাগাদাও দিয়েছেন। কিন্তু কারো কথাই শুনছেন না এই জামায়াত নেতা।

উল্টো মাঠে খেলতে আসা শিশু-কিশোরদেরকে বােরহান উদ্দিন ও তার অনুসারীরা হুমকি-ধমকি দিয়ে মাঠ থেকে বিতাড়িত করার অভিযােগ পাওয়া গেছে।

পরিচালনা পরিষদের সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম বলেন, ‘আমার অনুপস্থিতিতে বােরহান ও তার দলবল এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। শিশুদের খেলাধূলা, মুক্তবিহঙ্গে আমরা কোনোভাবেই বাধার কারণ হতে পারি না।

জানা গেছে, খেলার মাঠটি বাড়ির কাছে হওয়ায় শিশুদের নিরাপত্তা নিয়ে অভিভাবকরা নিশ্চিন্ত থাকতে পারেন। মাঠ থেকে বিতাড়িত হওয়া ৪র্থ শ্রেণীর শিক্ষার্থী সৌরভের মা সােহাগ বেগম বলেন, ‘আমার ছেলে বাড়ির পাশের এই মাঠে খেললে টেনশন থাকে না। এখন শুনছি সেক্রেটারি সাহেব বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছেন। খোলা মাঠে খেলতেও যদি বাধা থাকে তাহলে শিশুরা যাবে কোথায়?’

সন্দ্বীপ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) বশির আহম্মেদ খান বলেন, ‘শিশুদের বিকাশের জন্য খেলাধূলার গুরুত্ব তুলে ধরে আমি মাদ্রাসার ম্যানেজিং কমিটিকে শিশুদের খেলায় বাধা না হতে অনুরোধ করি। এখন দেখি কী হয়।

এদিকে, খেলতে না পারায় মন খারাপ মাঠ থেকে বিতাড়িত শিশুদের। তারা বলছে, আমরা কোথায় যাব? খেলতে না পারায় বিষন্নতা ছেপে বসেছে তাদের মনোজগতে।

সম্প্রতি মগধরা ৪নং ওয়ার্ড থেকে কয়েকজন চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। চারদিকে মাদকের হাতছানি। এমন অবস্থায় খেলতে না পারায় তরুণ প্রজন্ম মাদকসহ বিভিন্ন অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডে জড়িয়ে পড়ার আশংকা করছেন অনেকেই।

তাই দ্রুত খেলার মাঠ উন্মুক্ত করে শিশু-কিশোরদের মানসিক ও দৈহিক বিকাশসহ তরুণ প্রজন্মকে মাদকের থাবা থেকে রক্ষার আহ্বান জানিয়েছেন সচেতন এলাকাবাসী।