সোমবার, ৬ ডিসেম্বর ২০২১, ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৮

গোলশূন্য ব্রাজিল-আর্জেন্টিনা ম্যাচে ৪২ ফাউল

প্রকাশিতঃ বুধবার, নভেম্বর ১৭, ২০২১, ৮:৪৩ পূর্বাহ্ণ


খেলাধুলা ডেস্ক : কনমেবল অঞ্চলের বিশ্বকাপ বাছাইয়ে বুধবার গোলশূন্য ড্র হয়েছে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী দুই দল ব্রাজিল ও আর্জেন্টিনার ম্যাচ। নির্ধারিত ৯০ মিনিটের পর অতিরিক্ত আরও ৫ মিনিট খেলা হলেও কোনো দলই গোলের দেখা পায়নি।

আর্জেন্টিনার সান হুয়ানে বাংলাদেশ সময় বুধবার ভোরে শুরু হওয়া ম্যাচটিতে ৯০ মিনিটের লড়াইটিতে মোট ফাউল হয়েছে ৪২টি। দুদলই সমান ২১ বার করে ফাইল করে। বল দখলে আর্জেন্টিনা একটু এগিয়ে থাকলেও আক্রমণে সমানে-সমানে। দুই দলই গোলের উদ্দেশ্যে সমান ৯টি করে শট নেয়; আর্জেন্টিনার তিনটি আর ব্রাজিলের দুটি থাকে লক্ষ্যে।

ব্রাজিলের বিশ্বকাপ আগেই নিশ্চিত হওয়ায় অনেকটা নির্ভার হয়ে খেলতে নামে তারা। তবে কাতারের পথে আরেকটু এগিয়ে থাকার সুযোগ ছিল আলবিসেলেস্তদের। সমীকরণ ছিল এমন, আর্জেন্টিনা জিতে গেলে এবং বাকি ম্যাচগুলোর ফল পক্ষে এলে আজই পেয়ে যেতো ২০২২ বিশ্বকাপের টিকিট। কিন্তু লিওনেল মেসিরা নিজেদের কাজটা ঠিকঠাক করতে পারেনি। ঘরের মাঠেও ব্রাজিলের সঙ্গে জিততে পারেনি তারা। চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীদের বিপক্ষে গোলশূন্য ড্রতে শেষ করেছে লাতিন আমেরিকা অঞ্চলের বিশ্বকাপ বাছাইয়ের সুপার ক্লাসিকো।

শুরু থেকেই দুই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীর লড়াই উত্তাপ ছড়ায়। বারবার হওয়া ফাউলে বিঘ্ন ঘটে ফুটবলের স্বাভাবিক ছন্দ। প্রথমার্ধ শেষে গোলশূন্য ড্র নিয়ে বিরতিতে যায় দু’দল। ব্রাজিল যেমন সুযোগ হাতছাড়া করেছে তেমনি মেসি বাহিনীও সুযোগ নষ্ট করেছে বেশ কয়েকবার।

ম্যাচের ১৩তম মিনিটেই জালের দেখা পেয়ে যেতো ব্রাজিল, যদি ভিনিসিয়াস জুনিয়র বলটা একটু বেশি বাড়িয়ে না দিতেন। কাউন্টার অ্যাটাক থেকে অনেকটা ফাঁকায় বল পেয়েছিলেন তিনি। এভাবে আক্রমণ-পাল্টা আক্রমণে বেড়েছে ম্যাচের বয়স। প্রথমার্ধের বিরতির ঠিক আগে আর্জেন্টিনার সামনে সুযোগ এসেছিল বল জালে পাঠানোর। তবে অ্যালিসন বেকারের দৃঢ়তায় সে চেষ্টা ব্যর্থ হয় আলবিসেলেস্তে শিবিরের।

লিওনেল মেসিকে শুরুর একাদশে রেখে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ব্রাজিলের মুখোমুখি হয় আর্জেন্টিনা। মেসির সঙ্গে এ ম্যাচে আর্জেন্টিনার আক্রমণভাগে ছিলেন কোপা আমেরিকা জয়ের বীর সেনানী অ্যাঞ্জেল ডি মারিয়া ও লাওতারো মার্টিনেজ। মিডফিল্ডে লেয়ান্দ্রো প্যারাদেসের পাশাপাশি ছিলেন জিওভানি লো সেলসো ও রদ্রিগো ডি পল। একাদশের অন্য পাঁচজন হলেন- এমিলিয়ানো মার্টিনেজ, মার্কোস আকুনা, নিকোলাস ওতামেন্দি, ক্রিস্টিয়ান রোমেরো ও মলিনা।

অন্যদিকে ব্রাজিলের একাদশে ছিল না নেইমার জুনিয়র। তার জায়গায় খেলেছেন রিয়াল মাদ্রিদের তরুণ ফরোয়ার্ড ভিনিসিয়াস জুনিয়র। আক্রমণভাগে তাকে সঙ্গ দেয় ম্যাথিয়াস কুনহা, লুকাস পাকুয়েতা ও রাফিনহা। মিডফিল্ডে ফ্যাবিনহোর পাশাপাশি ছিলেন ফ্রেড। রক্ষণভাগে ছিলেন দানিলো, মার্কুইনহোস, এডার মিলিতাও ও অ্যালেক্স সান্দ্রো। গোলরক্ষকের দায়িত্ব পালন করেন অ্যালিসন বেকার।