বুধবার, ২৫ মে ২০২২, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯

বান্দরবানে জুমের বাগান পুড়িয়ে দেওয়ার মামলায় ২ জন কারাগারে

প্রকাশিতঃ Saturday, April 30, 2022, 8:37 pm


বান্দরবান প্রতিনিধি : বান্দরবানের লামায় পাহাড়িদের জুমের বাগান পুড়িয়ে দেওয়ার ঘটনায় দায়ের করা মামলায় গ্রেপ্তার দুইজনকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

এরা হলেন- মো. দেলোয়ার হোসেন এবং মো. আরিফ হোসেন। তারা দুজনই এজাহারভুক্ত আসামি।

আজ শনিবার বান্দরবানের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট সৈয়দা সুরাইয়া আক্তার আদালত এই আদেশ দিয়েছেন।

এর আগে গত বুধবার লামা উপজেলার সরই ইউনিয়নে ডলুঝিরি মৌজা এলাকায় উপজেলায় দুর্গম লাংকম ম্রো পাড়ায় পাহাড়িদের জুমের বাগান পুড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগ ওঠে লামা রাবার ইন্ডাস্ট্রি লিমিটেডের মালিক, কর্মচারী ও শ্রমিকদের বিরুদ্ধে।

এ ঘটনায় ৮ জনকে আসামি করে লামা থানায় একটি মামলা করেন ক্ষতিগ্রস্তরা।

মামলার অন্য আসামিরা হলেন- লামা রাবার কোম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) মো. কামাল উদ্দিন, সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন, মো. জহিরুল হক, মো. নুরু, দুর্যোধন ত্রিপুরা ও হাঁজিরাম ত্রিপুরা।

বাদী পক্ষের আইনজীবি এড আবু জাফর বলেন, জুমের বাগান আগুন লাগিয়ে পুড়িয়ে দিয়েছে লামা রাবার কোম্পানি। এ ঘটনায় লাংকম ম্রো বাদী হয়ে ৮ জনের নামসহ অজ্ঞাত আরও ১৫ থেকে ২০ জনের বিরুদ্ধে বৃহস্পতিবার মামলা করেছেন। মামলার দুই আসামিকে শুক্রবার পুলিশ গ্রেপ্তার করে। এরপর তাদেরকে আজ আদালতে হাজির করা হয়, তখন জেলে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

এদিকে পাড়া প্রধান (কারবারি) লাংকম ম্রো ও স্থানীয় রুন্দোজন ত্রিপুরা অভিযোগ করে জানিয়েছেন, লামা রাবার কোম্পানির লোকজন পাড়াবাসীর জুমের বাগান আগুনে পুড়িয়ে দিয়েছে। প্রায় তিনশ একর জমিতে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন তারা। ভয়ে আতঙ্কে তিনটি পাড়ার ৩৯টি পরিবারের আড়াই শতাধিক মানুষ নির্ঘুম রাত কাটিয়েছে সেদিন। এখন উচ্ছেদ আতঙ্কে ভুগছেন তারা।

তবে অভিযোগ অস্বীকার করে লামা রাবার কোম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) মো. কামাল উদ্দিন বলেন, পাড়াবাসীর কোনো জায়গা দখল করা হয়নি। আগুনে পুড়ানো জমি কোম্পানির লিজ নেওয়া। ৬৪ জন মালিকের ১৬শ’ একর জমি রয়েছে আমাদের। তারমধ্য চারশ’ একরের মত বিরোধীয় জমি রয়েছে। যেগুলো পাহাড়িরা নিজেদের বলে দাবি করে আসছে৷

লামা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শহীদুল ইসলাম চৌধুরী বলেন, জুমের বাগান পুড়িয়ে দেওয়ার মামলার অন্য আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।