২৩ মে ২০১৯, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, বুধবার

‘শাটল ট্রেন’র পর চবি শিক্ষার্থীদের স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র ‘দ্যা ইভিনিং’

প্রকাশিতঃ শুক্রবার, মার্চ ২৯, ২০১৯, ৭:২২ অপরাহ্ণ

ইফতেখার সৈকত : মানুষের জীবনের বাস্তবতা, রোমান্সকর কোনো গল্প কিংবা সমাজের চিত্রগুলো নিয়ে নির্মিত হয় চলচ্চিত্র বা নাটক। বিনোদন জগতের সবচেয়ে বড় মাধ্যমটি হচ্ছে এই চলচ্চিত্র ও নাটকের জগৎ। বর্তমান বাংলাদেশে চলচ্চিত্রের অবস্থান খুব বেশি শক্ত না হলে ও বাংলাদেশের নাটক বরাবরের মতোই মনজয় করে চলেছে দর্শকদের। আর সেই গল্প যদি রোমান্সকর বা আবেগের সংমিশ্রণ হয় তাহলে তা জনপ্রিয় হওয়ার বেশ সম্ভাবনা থাকে।

কিছুদিন আগে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ও বর্তমান শিক্ষার্থীদের গণঅর্থায়নে নির্মিত হয়েছিলো শিক্ষার্থীদের জীবনকাহিনী নির্ভর চলচ্চিত্র ‘শাটল ট্রেন’। যা সবার মাঝে ভিন্নরকম আমেজ তৈরি করেছিল।

‘শাটল ট্রেনের’ আমেজ শেষ হতে না হতে এবার আরেক সৃজনশীল নির্মাতা প্রস্তুত স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র নিয়ে। যার নাম বিকেলের গল্প ‘দ্যা ইভিনিং’। এই গল্পটি এবং শাটল ট্রেন গল্পটির মধ্যে রয়েছে বেশ খানিকটা তফাৎ। ‘দ্যা ইভিনিং’ চলচ্চিত্রের ডিউরেশন চল্লিশ মিনিট।

বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের জীবনচিত্র নিয়ে রোমান্সকর এই স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রের গল্প বুনন ও নির্মাণ করেছেন শামীম রানা। এতে মূল চরিত্রে (সাদাফ) অভিনয় করছেন মডেল ও অভিনেতা রাচিং। জনপ্রিয় স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র ‘নাবিলা’য় অভিনয় করে দর্শকের মন জয় করেন এ তরুণ। আর ‘শ্রেয়া’ চরিত্রে রয়েছে লামিসা তাহসিন খান মাইশা। এছাড়া গুরুত্বপূর্ণ চরিত্র নিয়ে রয়েছেন নাট্যকলা বিভাগের শিক্ষার্থী সানজিদা আমিন, ইউনুস সোহেল রানা, ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদের ছাত্রী সাবরিনা করিম, সংস্কৃত বিভাগের শিক্ষার্থী শেখ রাশেদুজ্জামান শুভসহ অনেকে।

পুরো গল্পটি রোমান্স ও আবেগের সংমিশ্রণে তৈরি। এই চলচ্চিত্রে রয়েছে দুটি গান। একটিতে কণ্ঠ দিয়েছেন নাট্যকলা বিভাগের শিক্ষার্থী ধর্মরাজ ধর্ম। গান দুটিতে গিটারিস্ট হিসেবে ছিলেন অন্তিক কাজী ও আসলাম উদ্দীন। রূপসজ্জায় ছিলেন মুসলিমা লিমা। কারিগরি সহযোগিতায় আছেন ফাহমিদা, সোহাগ, বিজয়, ফাহিম, শামীম হক, বিশ্বনাথ ভৌমিক প্রমুখ। স্থিরচিত্র ধারণ করেছেন শফিকুল ইসলাম শান্ত।

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় এবং চট্টগ্রাম শহরের বিভিন্ন লোকেশনে চলতি বছরের ফ্রেব্রুয়ারি থেকে শুটিং শুরু হয় চলচ্চিত্রটির এবং কাজ শেষ হয় চলতি মাসের ১৫ মার্চ।

নাট্যকলা বিভাগের সভাপতি শামীম হাসানের নির্দেশনায় নাট্যকলা বিভাগের জিয়া হায়দার স্টুডিওতে ইতিমধ্যে চলচ্চিত্রটির ‘প্রিমিয়ার শো’ অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে উপস্থিত ছিলেন ‘দ্যা ইভিনিং’-এর টেকনিক্যাল মেম্বারসহ বিভাগের প্রাক্তন শিক্ষার্থী ও শিক্ষিকা শাকিলা তাসনিম কাজরি।

‘প্রিমিয়ার শো’ শেষে ভুয়সী প্রসংশা পাওয়ার পর ১০ এপ্রিল চলচ্চিত্রটি মুক্তি পেতে যাচ্ছে বিশ্ববিদ্যালয়ের কলা অনুষদের ২নং গ্যালারিতে দিনব্যাপী প্রদর্শনীর মাধ্যমে। প্রদর্শনী শুরু হবে ওই দিন সকাল ১১ টা থেকে।

চলচ্চিত্রটির নির্মাতা শামীম রানা বলেন, আমি আত্মবিশ্বাসী দর্শক শর্টফিল্মটি দেখার পর বেশ কিছুক্ষণ ভাববে এবং একে অন্যের কাছে জানাতে চাইবে। যারা দেখার সুযোগ পাবে না তারা বলবে আলাদা কিছু মিস করেছি। তিনি বলেন, এর আগে আমি লুকোচুরি,পাসওয়ার্ড, নাবিলাসহ আরো কয়েকটি শর্টফিল্ম বানিয়েছি
যা দর্শকের মন জয় করেছে। তারই ধারাবাহিকতায় এবার নতুন স্বাদে ক্যাম্পাসের গল্প নিয়ে বানালাম ‘দ্যা ইভিনিং’।

একুশে/আইএস/এটি