সোমবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৯, ৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

‘দেশের নারীদের ২২.২ ভাগ স্তন ক্যান্সারে আক্রান্ত’

প্রকাশিতঃ মঙ্গলবার, অক্টোবর ২৯, ২০১৯, ৭:০৭ অপরাহ্ণ


চট্টগ্রাম: দেশের নারীদের ২২.২ ভাগ স্তন ক্যান্সারে আক্রান্ত বলে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের রেডিওথেরাপি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডা. তাপস মিত্রের গবেষণা প্রবন্ধে উঠে এসেছে।

মঙ্গলবার চট্টগ্রাম ক্লাবে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের রেডিওথেরাপি বিভাগ আয়োজিত ‘স্তন ক্যান্সার সচেতনতা কার্যক্রম’ শীর্ষক সেমিনারে এই প্রবন্ধ উপস্থাপন করা হয়।

সেমিনারে মূল প্রবন্ধে বলা হয়, বিশ্বের ২৪.২ ভাগ মহিলা স্তন ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়। আক্রান্তদের মধ্যে শতকরা ১৫ ভাগ মারা যায়। বাংলাদেশে ২২.২ ভাগ মহিলা স্তন ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়- যাদের মধ্যে ১৩.৯ ভাগ মৃত্যুবরণ করে। এতে আরো বলা, হয় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে প্রতি ৮ জনে ১ জন স্তন ক্যানসারে আক্রান্ত হয়। এছাড়া বিশ্বের শতকরা ১ ভাগ পুরুষ স্তন ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়।

সেমিনারে বলা হয়, বাচ্চাকে বুকের দুধ না খাওয়ানো, ওজন বৃদ্ধি, শারীরিক প্ররিশ্রম না করা, রেডিয়েশন, বেশী বয়সে সন্তান ধারন বা সন্তানহীন, মদ্যপান এবং বংশগত কারনে নারীরা স্তন ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়। স্তন ক্যান্সারের ৪ টি স্টেজের মধ্যে ১ম ও ২য় স্টেজে এ রোগ নিরুপন করা গেলে তা চিকিৎসার মাধ্যমে দেশেই শতভাগ নির্মূল করা সম্ভব বলে প্রবন্ধে উল্লেখ করা হয়।

রেডিওথেরাপি বিভাগের চেয়ারম্যান প্রফেসর ডা. সাজ্জাদ মোহাম্মদ ইউসুফের সভাপতিত্বে সেমিনারে মূল প্রবন্ধের ওপর আলোচনায় অংশ নেন ওয়াশিকা আয়শা খান এমপি, বিএমএ চট্টগ্রামের সভাপতি ডা. মুজিবুল হক, সাধারন সম্পাদক ডা. মোহাম্মদ ফয়সল ইকবাল, চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের উপপরিচালক ডা. আকতারুল ইসলাম, বীকন অঙ্কোনোলজিস্ট লিঃ এর ভাইস প্রেসিডেন্ট ডা. মাহবুবুর রহমান। অনুষ্ঠানে ক্যান্সার বিজয়ী যোদ্ধা শাহিদা বেগম, তাহমিনা খানম, রোশন্নাহার, নাসিমা আক্তার অনুভূতি ব্যক্ত করেন।

অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আ.জ.ম নাছির উদ্দীন বলেন, ব্রেস্ট ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়েও অনেক সময় মা বোনেরা লজ্জা বা সংকোচ নিয়ে তা লুকিয়ে রাখে। অনেকে আবার এ বিষয়ে জানেও না। তাই ব্রেস্ট ক্যান্সার প্রতিরোধে প্রয়োজন ব্যাপক জনসচেতনতা।

সিটি মেয়র বলেন, সরকার স্বাস্থ্য খাতের আধুনিকায়নে নতুন হাসপাতাল প্রতিষ্ঠাসহ অত্যাধুনিক যন্ত্রপাতি আমদানি করছে। প্রধানমন্ত্রী দেশের প্রতিটি বিভাগীয় শহরে বিশেষায়িত ক্যান্সার হাসপাতাল করার নির্দেশ দিয়েছেন। সে মোতাবেক কাজ চলছে। চট্টগ্রামে ১৪ তলা বিশিষ্ট ১০০ বেডের ক্যান্সার হাসপাতাল প্রতিষ্ঠার বিষয় ইতোমধ্যে একনেকে অনুমোদন হয়েছে।

তিনি বলেন, ক্যান্সার আক্রান্তদের চিকিৎসার জন্য সমাজ সেবা অধিদপ্তরে নিবন্ধনের পর রোগী প্রতি ৫০ হাজার টাকা করে সরকারি অনুদান দেওয়া হচ্ছে।