শনিবার, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৯, ৩০ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

চবি ছাত্রলীগের দু’গ্রপের সংঘর্ষে উত্তপ্ত ক্যাম্পাস

প্রকাশিতঃ শনিবার, নভেম্বর ৩০, ২০১৯, ৩:০৭ পূর্বাহ্ণ


চবি প্রতিনিধি : চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে (চবি)শাখা ছাত্রলীগের দুই গ্রুপে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে।

শুক্রবার (২৯ নভেম্বর) রাত এগারোটা থেকে এই সংঘর্ষ শুরু হয়।

সংঘর্ষে জড়ানো এক পক্ষ সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন অনুসারী ভিএক্স ও অপর পক্ষ শিক্ষা উপমন্ত্রী মুহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল অনুসারী সিএফসি গ্রুপ।

জানা যায়, বৃহস্পতিবার (২৮ নভেম্বর) বিশ্ববিদ্যালয়ের আব্দুর রব হলে সংঘর্ষের সূত্রপাত ঘটে। ওই হলে একই সময় ভিএক্স ও সিএফসি দুই গ্রুপই মিটিং ডাকে। এই নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে বাকবিতণ্ডা হয়। পরে বিশ্ববিদ্যালয়ের শাহ আমানত হল থেকে অস্রসহ সিএফসির নেতা-কর্মীরা এবং ভিএক্সের কর্মীরা আব্দুর রব হলে অবস্থান করে। এসময় পুলিশের উপস্থিতিতে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে। এবং দুই পক্ষের মধ্যে আলোচনা করে ঘটনার সুরাহা করা হয়।

এ ঘটনার পর শুক্রবার দিনভর পরিস্থিতি ঠিক থাকলেও পূর্বের ঘটনার জের ধরে ফের সংঘর্ষে জড়ায় শাখা ছাত্রলীগের পক্ষ দুটি। রাত ১১টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের আব্দুর রব হলে দুই গ্রুপের নেতা-কর্মীরা সংঘর্ষে জড়ায়। এসময় দুই গ্রুপের নেতা-কর্মীরা পরস্পরকে ইটপাটকেল ছোড়ে।

এ নিয়ে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়লে সিএফসি গ্রুপের নেতা-কর্মীরা বিশ্ববিদ্যালয়ের শাহ আমানত হলে ও ভিএক্স এর নেতা-কর্মীরা সোহারওয়ার্দী হলের সামনে দেশীয় অস্ত্রসহ অবস্থান করে।

এই ঘটনায় পাঁচজন ছাত্রলীগ কর্মী আহত হওয়ার খবর পাওয়া গিয়েছে।

তারা হলেন, গণিত বিভাগের ১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী সুইডেন, ইসলামী শিক্ষা বিভাগের ১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী শেখ জাহিদ, ইতিহাস বিভাগের ১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী মো. রিয়াদ, গণিত বিভাগের ১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী তানজিম সাদমান, রাজনীতি বিজ্ঞান বিভাগের ১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী মো. রিয়াদ।

এ বিষয়ে চবি ছাত্রলীগের সভাপতি রেজাউল হক রুবেল বলেন, তাপস সরকার হত্যা মামলার সুষ্ঠু বিচারের দাবিতে যখন চবি ছাত্রলীগ জাগ্রত হচ্ছে তখন একটি পক্ষ সেটাকে বানচাল করতে বার বার ঝামেলা করছে। আমরা গতকাল এর সমাধান করেছি কিন্তু এরপরেও আজ তারা পুনরায় ঝামেলা শুরু করেছে।

চবি ছাত্রলীগের সাবেক উপ-দপ্তর সম্পাদক ও ভিএক্স গ্রুপের নেতা মিজানুর রহমান বিপুল বলেন, গতকাল রব হলে দুই গ্রুপের মিটিংকে কেন্দ্র করে ঝামেলা হয়। আমরা তার সমাধান করি। কিন্তু আজ আমাদের কিছু ছোটভাই বিশ্ববিদ্যালয়ের এএফ রহমান হলে মিটিং করে। কয়েকজনের পরীক্ষা থাকায় তারা রব হলে বই আনতে যায়। এ সময় তারা (সিএফসি) আমাদের ছেলেদের উপর হামলা করে।

এদিকে এ প্রতিবেদন লেখার সময় রাত দেড়টার দিকে ভিএক্স গ্রুপের নেতা-কর্মীদের বিশ্ববিদ্যালয়ের সোহারওয়ার্দী হলের সামনে অবস্থান করতে দেখা যায়।