শনিবার, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৯, ৩০ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে মহসিন কলেজের উদ্যোগ

প্রকাশিতঃ বুধবার, ডিসেম্বর ৪, ২০১৯, ১২:৪৬ পূর্বাহ্ণ


আবছার রাফি : বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জীবনী ও অবদান সম্পর্কে শিক্ষার্থীদের জানানোর জন্য বিশেষ উদ্যোগ নিয়েছে চট্টগ্রামের সরকারি হাজী মুহাম্মদ মহসিন কলেজ কর্তৃপক্ষ; বঙ্গবন্ধুর দৃষ্টিনন্দন ম্যুরাল নির্মাণের পাশাপাশি স্থাপন করা হয়েছে ‘বঙ্গবন্ধু পাঠকক্ষ’।

কলেজ কর্তৃপক্ষের নিজস্ব অর্থায়নে ক্যাম্পাসের জিরো পয়েন্টে নির্মিত হয়েছে বঙ্গবন্ধুর দৃষ্টিনন্দন ম্যুরালটি। এটির উচ্চতা ১০ ফুট ও প্রস্থ ৬ ফুট। ম্যুরালের নির্মাণ কাজ শেষ হলেও আনুষ্ঠানিকভাবে এখনো উদ্বোধন করা হয়নি।

অন্যদিকে নতুন একাডেমিক ভবন-১ এর ১০৩ নম্বর কক্ষে গড়ে তোলা হয়েছে ‘বঙ্গবন্ধু পাঠকক্ষ’। যেখানে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক পুস্তকসহ বঙ্গবন্ধু এবং বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনার রচিত পুস্তক, ইতিহাস-ঐতিহ্য, গবেষণা, সংস্কৃতি ও সাহিত্যবিষয়ক গ্রন্থ সংরক্ষণ করা হয়েছে।

বঙ্গবন্ধু পাঠকক্ষে সাজিয়ে রাখা হয়েছে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান রচিত ‘অসমাপ্ত আত্নজীবনী’, আবু সাঈদ রচিত ‘প্রবাসে মুক্তিযুদ্ধের দিনগুলি’, নুরুল কাদির রচিত ‘দুশো ছেষট্টি দিনে স্বাধীনতা’ মুনতাসির মামুন রচিত ‘পাকিস্তানের দৃষ্টিতে মুক্তিযুদ্ধ’, সুকুমার রায় রচিত ‘মুক্তিযুদ্ধ রাইফেল ও অন্যান্য বাহিনী’সহ প্রখ্যাত সব লেখকদের প্রায় পাঁচ শতাধিক বই দিয়ে।

বাংলা বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী মুহাম্মদ কুতুব উদ্দীন বলেন, কলেজ ছাত্রলীগের দাবি ও কলেজ কর্তৃপক্ষের আন্তরিক প্রচেষ্টায় নির্মিত জাতির জনকের ম্যুরালটি স্থাপন করা হয়েছে। এটি বঙ্গবন্ধু সম্পর্কে জানার ক্ষেত্রে নতুনত্ব আনবে। বঙ্গবন্ধু ম্যুরাল ও বঙ্গবন্ধু পাঠকক্ষ স্থাপনের জন্য কলেজ কর্তৃপক্ষের প্রতি আমরা অশেষ কৃতজ্ঞ।

সরকারি হাজী মুহাম্মদ মহসিন কলেজ শিক্ষক পরিষদের সম্পাদক ও বাংলা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মুহাম্মদ নজরুল ইসলাম বলেন, তরুণ প্রজন্মের কাছে বাংলাদেশের মহান মুক্তিযুদ্ধের প্রকৃত ইতিহাস ও স্বাধীন বাংলাদেশের স্থপতি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে তুলে ধরতে কলেজ প্রশাসন, শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় বঙ্গবন্ধু পাঠকক্ষ স্থাপন করা হয়েছে। এটি চট্টগ্রাম তো বটেই সারাদেশের সরকারি কলেজগুলোর মধ্যে এক অনন্য নজির।

সরকারি হাজী মুহাম্মদ মহসিন কলেজের অধ্যক্ষ অঞ্জন কুমার নন্দী একুশে পত্রিকাকে বলেন, মহান মুক্তিযুদ্ধে এবং বাংলাদেশ সৃষ্টিতে হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের অবদানের কথা আগামী প্রজন্মের কাছে স্মরণ করিয়ে দিতে আমাদের এই উদ্যোগ। আশা করছি এর ফলে শিক্ষার্থীরা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জীবনী ও অবদান সম্পর্কে সহজে জানতে পারবে।

একুশে/এএ