বৃহস্পতিবার, ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১৫ ফাল্গুন ১৪২৬

দলে ফিরতে দোকান ভাঙচুর, ওসিকে আক্রমণের স্বীকারোক্তি মনি’র (ভিডিও)

প্রকাশিতঃ শুক্রবার, জানুয়ারি ১৭, ২০২০, ৭:৫৫ অপরাহ্ণ

চট্টগ্রাম :  একুশে পত্রিকাকে দেয়া এক ভিডিও সাক্ষাৎকারে বিএনপিতে ফিরতে আকুতি জানিয়েছেন চট্টগ্রাম মহানগর মহিলা দলের বহিষ্কৃত সভানেত্রী কাউন্সিলর মনোয়ারা বেগম মনি। এসময় বিএনপির প্রতি ভক্তি-আনুগত্য উল্লেখের পাশাপাশি সরকারবিরোধী আন্দোলনে দোকান ভাঙচুর, ওসি আজাদকে আক্রমণ করার কথাও অবলীলায় স্বীকার করে ফেলেছেন তিনি।

এখন বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহারের মাধ্যমে দলে ফেরার আশায় প্রহর গুণছেন মনোয়ারা বেগম মনি।  বৃহস্পতিবার (১৬ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় তিনি একুশে পত্রিকাকে বলেছেন, আমি বিশ্বাস করি হাইকমান্ড আমার বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহার করে নেবে। শিগগির আমাকে দলে ফিরিয়ে নেয়া হবে।

মনোয়ারা বেগম মনি বলেন, আমাকে দল থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে প্রায় সাড়ে তিন মাস হতে চললো। এর মধ্যে দলীয় হাইকমান্ডের সাথে বেশ কয়েকবার আলোচনা হয়েছে আমার। তাঁরা আমাকে আশ্বস্ত করেছেন শিগগির বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহার করবেন।

মনি বলেন, দল আমাকে বহিষ্কার করলেও আমি মনেপ্রাণে বিএনপি। আজীবন বিএনপির কর্মী হয়েই থাকবো। দলের কোনো প্রোগ্রামে অংশ না নিলেও মন থেকে সবসময় শুভকামনা থাকে।

আসন্ন সিটি নির্বাচনে দলের মনোনয়ন না পেলে স্বতন্ত্র নির্বাচন করবেন লালখান বাজার, বাগমনিরাম ও জামালখান ওয়ার্ডের সংরক্ষিত ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মনোয়ারা বেগম মনি। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, আমি নির্বাচন করার জন্য মানসিকভাবে প্রস্তুত। এলাকার উন্নয়নে আমি অনেক কিছুই করেছি। আরও করতে চাই। দল যদি বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহার করে তাহলে দল থেকে মনোনয়ন চাইবো, নয়তো স্বতন্ত্র হিসেবেই নির্বাচন করবো।

গত বছরের ৪ অক্টোবর নগরীর পশ্চিম মতিঝর্ণা বাটালি হিল এলাকায় ১৪ নং লালখান বাজার ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ আয়োজিত দুর্গোৎসব উপলক্ষে হিন্দু সম্প্রদায়ের মাঝে বস্ত্র বিতরণ অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন স্থানীয় কাউন্সিলর ও মহানগর বিএনপি সভানেত্রী মনোয়ারা বেগম মনি।

এসময় তিনি বর্তমান সিটি মেয়র ও মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আ জ ম নাছির উদ্দীনকে ‘হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ মেয়র’ সম্বোধন করে তাঁকে আবার মেয়র নির্বাচিত করতে না পারাটা ‘চরম ব্যর্থতা’ বলে উল্লেখ করেন। এমনকি মেয়র আ জ ম নাছির ফের মনোনয়ন না পেলে তিনিও কাউন্সিলর পদে নির্বাচন না করার ঘোষণা দেন। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন মেয়র আ জ ম নাছির।

বিএনপির একজন দায়িত্বশীল নেত্রী হয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আ জ ম নাছির উদ্দীনের এমন স্তুতি-বন্দনা বিএনপির হাইকমান্ড ভালোভাবে নেয়নি। দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের দায়ে পরদিনই (৫ অক্টোবর) জাতীয়তাবাদী মহিলা দলের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক সুলতানা আহমেদ স্বাক্ষরিত এক চিঠির মাধ্যমে মনোয়ারা বেগম মনিকে দল থেকে বহিষ্কার করা হয়।