রবিবার, ৫ এপ্রিল ২০২০, ২২ চৈত্র ১৪২৬

চবিতে ডিন নির্বাচন: বিভক্তিতেও জয় ‘আওয়ামী লীগ-বামপন্থী’ হলুদ দলের

প্রকাশিতঃ রবিবার, ফেব্রুয়ারি ১৬, ২০২০, ৩:৫১ অপরাহ্ণ


চবি প্রতিনিধি : চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) ৮ অনুষদের ডিন নির্বাচনে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ-বামপন্থী শিক্ষক সমর্থিত হলুদ দলের ৪ জন এবং হলুদ দলের বিদ্রোহী প্রার্থী ৪ জন। এবার বিএনপি-জামায়াতপন্থী শিক্ষক সমর্থিত সাদা দল ও জাতীয়তাবাদী শিক্ষক ফোরামের কেউ বিজয়ী হতে পারেননি।

রোববার (১৬ ফেব্রুয়ারি) সকাল ৯টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান অনুষদ অডিটরিয়ামে ৭ অনুষদের ভোট গ্রহণ চলে। পরে বিকেলে ফলাফল ঘোষণা করেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নূর আহমদ।

এতে আওয়ামী লীগ-বামপন্থী শিক্ষক সমর্থিত হলুদ দলের চার বিজয়ী হলেন, বিনাপ্রতিদ্বন্ধীতায় সমাজবিজ্ঞান অনুষদের বিজয়ী রাজনীতি বিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ড.মোস্তাফিজুর রহমান সিদ্দিকী, কলা ও মানববিদ্যা অনুষদে ১৪৬ ভোট পেয়ে বিজয়ী বাংলা বিভাগের অধ্যাপক ড. মোঃ মহীবুল আজীজ। জীববিজ্ঞান অনুষদে ৮০ ভোট পেয়ে বিজয়ী ফার্মেসী বিভাগের অধ্যাপক ড. মোঃ কামরুল হোসাইন, মেরিন সায়েন্স এন্ড ফিশারিজ অনুষদে ১২ ভোট পেয়ে নির্বাচিত ফিশারিজ বিভাগের অধ্যাপক ড. মোঃ রাশেদুন্নবী।

এদিকে হলুদ দলের বিদ্রোহী চার প্রার্থী নির্বাচিত হয়েছেন। তারা হলেন, ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদে ৪৫ ভোট পেয়ে বিজয়ী মার্কেটিং বিভাগের অধ্যাপক ড.সালামত উল্ল্যা ভূঁইয়া। বিজ্ঞান অনুষদে ৩৭ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন পদার্থবিদ্যা বিভাগের অধ্যাপক ড. মোঃ নাসিম হাসান। আইন অনুষদে ১৩ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন আইন বিভাগের অধ্যাপক ড. এ বি এম আবু নোমান। ইঞ্জিনিয়ারিং অনুষদে ১৯ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন কম্পিউটার সায়েন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. রাশেদ মোস্তফা।

বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার ও প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নূর আহমদ একুশে পত্রিকাকে জানান, আজ সকাল ৯টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান অনুষদ অডিটরিয়ামে ৭ অনুষদের ভোট গ্রহণ চলে। এতে আওয়ামী লীগ-বামপন্থী শিক্ষক সমর্থিত হলুদ দলের চারজন এবং হলুদ দলের বিদ্রোহী চারজন বিজয়ী হয়েছেন। তাছাড়া সমাজবিজ্ঞান অনুষদে আগেই বিনাপ্রতিদ্বন্ধীতায় নির্বাচিত হন ড. মোস্তাফিজুর রহমান সিদ্দিকী। এর আগে ১০ ও ১৩ ফেব্রুয়ারি সকাল ১১টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত চবি শিক্ষক সমিতির কার্যালয়ে অগ্রিম ভোট গ্রহণ হয়। এতে প্রথমদিন ২৫ জন এবং দ্বিতীয় দিন ২২ জন ভোটার ভোট প্রদান করেন।