সোমবার, ২৫ মে ২০২০, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭

অবশেষে করোনাভাইরাস নিয়ে গবেষণায় চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়

প্রকাশিতঃ বৃহস্পতিবার, এপ্রিল ৯, ২০২০, ১১:৫৫ অপরাহ্ণ


চবি প্রতিনিধি : অবশেষে করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) নিয়ে গবেষণায় যুক্ত হয়েছেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) একদল গবেষক।

এর আগে গত ৩০ মার্চ ‘করোনাভাইরাস নিয়ে গবেষণা নেই, হাত গুটিয়ে চবি’ শিরোনামে বিশেষ সংবাদ প্রকাশ করে একুশে পত্রিকা। এতে উল্লেখ করা হয়, গবেষণার সক্ষমতা থাকার পরও করোনাভাইরাস নিয়ে কিছুই করছে না চবি।

এরপর আজ বৃহস্পতিবার বিশ্ববিদ্যালয়ের তথ্য শাখা থেকে প্রেরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, উপাচার্য প্রফেসর ড. শিরীণ আখতারের বিশেষ আগ্রহে ও বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের সার্বিক সহযোগিতায় বেশ কয়েকটি গবেষণা প্রকল্প চলমান রয়েছে।

এতে উল্লেখ করা হয়, করোনাভাইরাস নিয়ে জনসাধারণের সচেতনতার প্রকৃতি ও তা কার্যকর করতে বিভিন্ন পদ্ধতি উদ্ভাবন বিষয়ে গবেষণার দায়িত্ব দেয়া হয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূগোল ও পরিবেশবিদ্যা বিভাগের অধ্যাপক ড. অলক পালকে।

করোনাভাইরাসের জিনগত গঠনে বিভিন্ন রোগীর মধ্যে ভিন্নতা, বিষক্রিয়া সৃষ্টিকারী প্রোটিনের বিভিন্ন গঠন ও ভাইরাসটির উৎপত্তিগত বিশ্লেষণ বিষয়ে গবেষণা পরিচালনায় আছেন জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড বায়োটেকনোলজি বিভাগের ড. আদনান মান্নান।

বর্তমান করোনা-ভাইরাস পরিস্থিতি বিভিন্ন দেশে, সংস্কৃতিতে মানুষকে কিভাবে প্রভাবিত করছে- তা নিয়ে বাংলাদেশে সহযোগী হিসেবে আন্তর্জাতিক গবেষণায় কাজ করছেন মনোবিজ্ঞান বিভাগের অলি আহমেদ পলাশ।

করোনার অবস্থান ও বিভিন্ন এলাকায় তার প্রকোপ নির্ণয়ে কোভিড ট্র্যাকার অ্যাপস উদ্ভাবন করেছেন ইলেকট্রিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের ড. আরিফ ইফতেখার মাহমুদ।

এছাড়াও বিশ্ববিদ্যালয়ের দু’জন শিক্ষক ড. আরিফ ইখতেখার মাহমুদ এবং ড. আদনান মান্নান সরকারের পিপিই (ব্যক্তিগত সুরক্ষা পোশাক উদ্ভাবনের মান নির্ণয়) প্রকল্পে পরামর্শক হিসেবে সহায়তা করছেন।

এর আগে করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) রোগী শনাক্তের কাজে ব্যবহারের জন্য গত মঙ্গলবার বিআইটিআইডি’র কাছে রিয়েল-টাইম পলিমারেজ চেইন রিঅ্যাকশন (আরটি-পিসিআর) মেশিন হস্তান্তর করে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় (চবি) কর্তৃপক্ষ।

এছাড়া বিআইটিআইডি’র সাথে কোভিড-১৯ শনাক্তকরণে সমন্বিতভাবে কাজ করতে একটি কমিটি গঠন করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। যে দলটি বিআইটিআইডি’তে করোনা শনাক্তকরণ দলের সাথে প্রত্যক্ষভাবে কাজ করছে।

তাছাড়া সরকারের কোভিড-১৯ ডায়াগনস্টিক দলের সাথে স্বেচ্ছাসেবক হিসেবে কাজ করছেন জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড বায়োটেকনোলজি বিভাগের আরটি পিসিআর -এ প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত গবেষণা শিক্ষার্থীগণ। এর মধ্যে আছেন- আসমা সালাউদ্দিন, মোহাম্মদ ইমরান হোসেন, রক্তিম বড়ুয়া ও সৈয়দ লোকমান।

এছাড়া করোনাভাইরাস মহামারী আকার ধারণ করার কারণে উদ্ভুত পরিস্থিতিতে দুর্যোগকালিন সময়ে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় পরিবারের পরিস্থিতি সামাল দেয়ার লক্ষ্যে “ইমারজেন্সি রেসপন্স টিম” গঠন করা হয়েছে। যা গতকাল বুধবার থেকে কার্যক্রম শুরু করেছে।