সোমবার, ১০ আগস্ট ২০২০, ২৬ শ্রাবণ ১৪২৭

যৌবনকে দীর্ঘায়িত করার সাফল্যের কাছাকাছি বিজ্ঞানীরা

প্রকাশিতঃ বুধবার, জুলাই ২২, ২০২০, ২:১৫ অপরাহ্ণ


আন্তর্জাতিক ডেস্ক : মানবজাতির বার্ধক্যকে বিলম্বিত করা বা যৌবনকে দীর্ঘায়িত করার গবেষণায় বেশ অগ্রগতি করেছে ইউনিভার্সিটি অফ ক্যালিফোর্নিয়া সান দিয়েগোর (ইউসিএসডি) বিজ্ঞানীরা। সিএনএন জানিয়েছে, বার্ধক্য প্রক্রিয়া বিলম্বিত করার চূড়ান্ত প্রক্রিয়া থেকে মোটে একধাপ পিছনে রয়েছেন তারা।

সিএনএনের প্রতিবেদনে জানানো হয়, একদল বিজ্ঞানী বার্ধক্য নিয়ে গবেষণার জন্য অতিক্ষুদ্র ফাঙ্গাসকে বেছে নিয়েছেন, কারণ এর কোষগুলোকে সহজেই নিয়ন্ত্রণ করা যায়। এক্ষেত্রে নানা বয়সী কোষগুলোর বৈশিষ্ট্য বুঝে সেগুলোকে নিয়ে গবেষণার চালিয়ে যাচ্ছেন তারা।

এই অনুসন্ধানে তারা যা পেয়েছে তা কৌতূহল উদ্দীপক। দেখা গেছে, একই জেনেটিক উপাদান দিয়ে তৈরি এবং একই পরিবেশে বেড়ে উঠা কোষগুলো আশ্চর্যজনকভাবে স্বতন্ত্র উপায়ে তাদের বয়স বাড়াচ্ছে। এইসব বিজ্ঞানীরা ‘সায়েন্স’ জার্নালে এই আবিষ্কার প্রকাশ করেছে।

বিজ্ঞানীরা মাইক্রোফ্লুইডিক্স এবং কম্পিউটার মডেলিং কৌশল ব্যবহার করে দেখেছেন, প্রায় অর্ধেক সংখ্যক ইস্ট বা ফাঙ্গাসের কোষ বয়োবৃদ্ধ হয়েছে নিউক্লিওলাসের ধীর পতনের কারণে। এক্ষেত্রে কোষের নিউক্লিয়াসে একটি গোলাকার অবয়ব খুঁজে পান তারা। অন্যদিকে বাকি অর্ধেক ইস্টের বয়স বেড়েছে মাইটোকন্ড্রিয়ার অকার্যকারিতার কারণে।

বার্ধক্যের এই প্রেক্ষাপট গবেষণা করে অনুধাবন করেছেন যে, তারা জীবের বয়স বাড়ার ব্যাপারটি নিয়ন্ত্রণ করতে পারবেন এবং তাকে পুনরায় সাজাতে পারবেন। কম্পিউটার সিমুলেশন ব্যবহার করে তারা এর মূল গঠন ও ডিএনএ পরিবর্তন করতে পারবেন।

এই প্রক্রিয়ায় তারা নাটকীয়ভাবে নতুন একটি আয়ুরেখা তৈরি করে বার্ধক্যেকে বিলম্বিত করতে সক্ষম হবেন। সিএনএন জানিয়েছে গবেষকরা বিশ্বাস করছেন, এই গবেষণা দিয়ে মানুষের বার্ধক্য বিলম্বিত করার একটি সম্ভাবনা দেখা দিতে পারে।

যুক্তরাষ্ট্রের এই গবেষণা মাবজাতির বয়স ও আয়ু নিয়ে নতুন এক যুগের সূচনা করবে বলে ধারনা করছেন সংশ্লিষ্টরা।