সোমবার, ২৫ জানুয়ারি ২০২১, ১২ মাঘ ১৪২৭

আজ সন্ধ্যার আকাশে শনি-বৃহস্পতির ‘মহামিলন’

প্রকাশিতঃ সোমবার, ডিসেম্বর ২১, ২০২০, ৬:২১ অপরাহ্ণ


তথ্যপ্রযুক্তি ডেস্ক : ২১ ডিসেম্বর, ২০২০। ৩৯৭ বছর পরে এক বিরল মহাজাগতিক ঘটনার সাক্ষী থাকতে চলেছে বিশ্ব। একেবারে কাছাকাছি আসতে চলেছে বৃহস্পতি ও শনিগ্রহ। বিজ্ঞানের ভাষায় একে বলা হচ্ছে ‘মহা সংযোগ’ বা ‘মহামিলন’। সোমবার সূর্যাস্তের পরেই আকাশে এক সঙ্গে দেখা যাবে জুপিটার (বৃহস্পতি) ও শনিকে (স্যাটার্ন)৷

আনন্দবাজার জানিয়েছে, গ্যালিলিওর টেলিস্কোপ আবিষ্কারের ১৩ বছর পর, অর্থাৎ ১৬২৩ সালে শেষ বার এই দুই গ্রহকে এত কাছাকাছি দেখা গিয়েছিল।

সৌরমণ্ডলের দুই বিশাল গ্রহ আসতে চলেছে পরস্পরের কাছাকাছি। দু’জনের ঘনিষ্ঠতা এতটাই বাড়বে যে, দেখে মনে হবে দুয়ে মিলে হয়েছে এক৷ পরস্পরের মধ্যে দূরত্ব থাকবে ১/১০ ডিগ্রি, ফাঁক থাকবে একটি পূর্ণ চাঁদের ব্যাসের ১/৫ মাত্র!

সিএনএন জানায়, সোমবার আবার উইন্টার সোলটাইস বা সূর্যের দক্ষিণায়ন৷ অর্থাৎ এই তারিখে দিন ছোট হয়ে আসবে। রাত হবে দীর্ঘ। আর এমন দিনেই ঘটবে ‘গ্রেট কনজাংশন’৷ হাত ধরাধরি করবে বৃহস্পতি ও শনি।

জ্যোতির্বিদ প্যাট্রিক হার্টিগান বলেছেন যে, বৃহস্পতি এবং শনির কাছাকাছি আসার এই জাতীয় ঘটনা মোটামুটি ২০ বছরে একবার ঘটে। তা বলে প্রতি ২০ বছর অন্তর যে ঘটবেই, এমন কোনও নির্দিষ্ট নিয়ম নেই। সে জন্যই এটিকে একটি অত্যন্ত বিরল ঘটনা বলে অভিহিত করেছেন তিনি।

ইন্ডিয়ান সেন্টার ফর স্পেস ফিজিক্সের প্রধান সন্দীপ চক্রবর্তী জানালেন, এ এক বিরলতম ঘটনা। শনি ও বৃহস্পতির মধ্যে দূরত্ব ৭৬ কোটি কিলোমিটার। দু’টি গ্রহই নিজের নিজের কক্ষপথে ঘুরে চলেছে। কিন্তু নিজের কক্ষপথে খাকাকালীন কেউ পূর্বে থাকে, তো কেউ পশ্চিমে থাকে। এই প্রথম তারা এক জায়গায় আসছে। এদের দূরত্ব একই থাকছে। কিন্তু এরা ধরা পড়তে চলেছে একই দৃষ্টিপথে। যাকে বলা চলে ‘মহা সংযোগ’।

নাসা জানিয়েছে ১৬২৩ সালের পর এই প্রথম এত কাছাকাছি আসতে চলেছে সৌরমণ্ডলের প্রথম এবং দ্বিতীয় বৃহত্তম গ্রহ। প্রায় ৪০০ বছর পর এত কাছ থেকে বৃহস্পতি-শনি একে-অপরকে পেরিয়ে যাবে৷ সালের নিরীখে এই অবস্থানের আরও একটি মাহাত্ম্য আছে৷ ৮০০ বছর পর রাতের আকাশে একই রেখায় থাকবে বৃহস্পতি ও শনি। আবার ২০৮০ সালের ১৫ মার্চ ফের এই ঘটনা দেখা যাবে। মানে আরও ৬০ বছরের অপেক্ষা৷

বাংলাদেশের বিজ্ঞান সংগঠন অনুসন্ধিৎসু চক্রের পক্ষ থেকে এ কথা জানানো হয়। তারা জানায়, বাংলাদেশেও সূর্য ডোবার সাথে সাথে দক্ষিণ-পশ্চিম আকাশে উজ্জ্বল বৃহস্পতি সহজেই দৃষ্টিগোচর হবে, এর জন্য দূরবীন লাগবে না। সেটির একটু ওপরেই অপেক্ষাকৃতভাবে ম্লান শনিগ্রহ দেখবেন। সূর্যাস্তের এক ঘণ্টার মধ্যেই এই উজ্জ্বল জোড়াগ্রহ দিগন্তে নেমে যাবে, তাই সূর্যাস্তের পরপরই এটি দেখার উত্তম সময়।

অনুসন্ধিৎসু চক্র জ্যোতির্বিদ্যায় আগ্রহী সবাইকে এই চমকপ্রদ সম্মিলন দেখার আয়োজন করেছে।