বুধবার, ২৫ মে ২০২২, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯

সবচেয়ে কম নার্স ঢাকা-চট্টগ্রামে

প্রকাশিতঃ Thursday, May 12, 2022, 9:06 am


ঢাকা : আন্তর্জাতিক মানদণ্ড অনুযায়ী, ১ জন চিকিৎসকের জন্য ৩ জন নার্স এবং হাসপাতালের ৫ রোগী ও নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রের (আইসিইউ) প্রত্যেক শয্যা বা রোগীর জন্য ১ জন করে নার্স থাকতে হবে।

কিন্তু ঢাকা বিভাগে সরকারি চিকিৎসক ও নার্সের অনুপাত হলো ১:০.৮৩। এই বিভাগে চিকিৎসকের সংখ্যা ১৮ হাজার ৮৬৮ জন ও নার্স ১৫ হাজার ৮৩৬ জন। আর চট্টগ্রামে প্রতি চিকিৎসকের জন্য নার্স রয়েছেন ১ দশমিক ৭২ জন।

বাকি বিভাগগুলোর মধ্যে খুলনায় ২ দশমিক ৫০, ময়মনসিংহে ২ দশমিক শূন্য ২, রাজশাহীতে ২ দশমিক ৬৮, রংপুরে ২ দশমিক ৯৪, সিলেটে ২ দশমিক ৪১ ও বরিশালে ৩ দশমিক ৩১ জন নার্স।

দেশের ৬৪ জেলার মধ্যে সরকারি চিকিৎসক অনুপাতে সরকারি নার্স ঢাকা জেলায় সবচেয়ে কম। এখানে চিকিৎসকের সংখ্যা ১৬ হাজার ৪২২ জন ও নার্স ১০ হাজার ৬১৫ জন। চিকিৎসক ও নার্সের অনুপাত ১:০.৬৪। এরপর বেশি ঘাটতি বান্দরবানে অনুপাত ১:১.২৪।

সরকারি তথ্যমতে, দেশে বর্তমানে সরকারি ও বেসরকারি মিলে মোট নার্সের সংখ্যা ৭৬ হাজার ৫১৭ জন। এর বিপরীতে চিকিৎসকের সংখ্যা ১ লাখ ২ হাজার ৯৯৭ জন। সে হিসেবে ১ জন চিকিৎসকের জন্য তিনজনের জায়গায় নার্স রয়েছেন একজনেরও কম, অর্থাৎ চিকিৎসক ও নার্সের অনুপাত ১:০.৭৪।

অবশ্য সরকারি চিকিৎসক ও নার্সের ক্ষেত্রে এই ঘাটতি কিছুটা কম। দেশে বর্তমানে সরকারি চিকিৎসকের সংখ্যা ২৯ হাজার ৪৪৮ জন। এর বিপরীতে সিনিয়র স্টাফ নার্স ও সহকারী নার্সের সংখ্যা ৪০ হাজার ৮০৮ জন। সে হিসাবে সরকারি স্বাস্থ্য খাতে প্রত্যেক চিকিৎসকের জন্য তিনজনের জায়গায় নার্স রয়েছেন প্রায় দেড় জন। এখানে চিকিৎসক ও নার্সের অনুপাত ১:১.৪২।

নার্সিং ও মিডওয়াইফারি অধিদপ্তরের প্রশাসনিক কর্মকর্তা মো. আনোয়ার হোসেন বলেন, সঠিক স্বাস্থ্যসেবার জন্য স্বাস্থ্য খাতে জনবল ও রোগীর তুলনায় নার্স ঘাটতি অনেক বেশি। এই ঘাটতি পূরণে নার্সিং শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোতে সিট সংখ্যা বাড়াতে হবে, নার্সদের প্রশিক্ষণ বাড়াতে হবে। চাকরিতে নার্সদের জন্য পদ বাড়াতে হবে।