মঙ্গলবার, ১৮ জানুয়ারি ২০২২, ৫ মাঘ ১৪২৮

জঙ্গিরা বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রদের টার্গেট করেছে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

প্রকাশিতঃ রবিবার, জুলাই ১৭, ২০১৬, ৬:০৭ অপরাহ্ণ

home minister asaduzzaman khan kamalঢাকা: মাদ্রাসার ছাত্রদের ছেড়ে এখন বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রদের টার্গেট করেছে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। তিনি তাদের দিকে বিশেষ নজর দিতে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।

আজ রবিবার ফার্মগেট কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশনে আয়োজিত জননিরাপত্তা আইনশৃঙ্খলা বিষয়ক মতবিনিময় সভায় সভাপতির বক্তব্যে এসব কথা বলেন। সভায় অংশ নেন বিভিন্ন বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ও প্রতিনিধিরা।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, “সন্ত্রাসীরা বা জঙ্গিরা নিত্যনতুন কৌশল বদলাচ্ছে। এ কারণে আমরা সবার সঙ্গে আলোচনা করছি। শিক্ষকদের সঙ্গে, আলেমদের সঙ্গে ও সাধারণ মানুষের সঙ্গে।”

জঙ্গিরা এখন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের দলে ভেড়ানোর চেষ্টা করছে জানিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, “জঙ্গিরা প্রথমে কওমী মাদ্রাসার ছাত্রদের, যারা কিছুই বুঝত না তাদের মোটিভেট করত। পরে আলেমদের সঙ্গে আলোচনা করে যখন আমরা তাদের বোঝাতে সক্ষম হয়েছি তখন তারা বেসরকারি বিশ^বিদ্যালয়ের ছাত্রদের টার্গেট করল।” এ নিয়ে সবাইকে সচেতন থাকার পরামর্শ দেন তিনি।

বর্তমান সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ নির্মূলের প্রত্যয় জানিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, “আমরা বীরের জাতি। আমরা আগুন-সন্ত্রাস দেখেছি। আগুন-সন্ত্রাসের পরবর্তীতে টার্গেট কিলিং, বোমা হামলা, খৃষ্টান যাজক হত্যা, হিন্দু পুরোহিত হত্যা, বৌদ্ধ ভিক্ষুদের হত্যা, নামাজরত মুসল্লিকে গুলি করে হত্যা ও মসজিদে বোমা হামলা দেখেছি। আমরা সব মোকাবিলা করছি।”

গুলশান ও শোলাকিয়ার ঘটনার বিষয়ে তাদের কাছে গোয়েন্দা তথ্য ছিল বলে দাবি করে আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, গুলশানের ঘটনার পরপর আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা সেখানে উপস্থিত হয়। পরে ১৩ মিনিটের কমান্ডে অভিযান জঙ্গিদের দমন করতে সক্ষম হয়। গোয়েন্দা তথ্য ছিল বলে আমরা শোলাকিয়া ঈদগাহের এক কিলোমিটার পূর্বে চেকপোস্ট স্থাপন করি। ফলে জঙ্গি হামলায় অনেক লোক হতাহত হওয়া থেকে রক্ষা পায়। কঠোর নিরাপত্তা বেষ্টনীর মধ্যে তারা হামলা চালাতে ব্যর্থ হয়।”

গুলশান হামলায় নিহত বনানী থানার সাবেক ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সালাহউদ্দিনের উদ্ধৃতি দিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, “হামলায় নিহত পুলিশ কর্মকর্তাদের মৃত্যুর ঘটনায় যখন দেশে মানুষ শোক প্রকাশ করছেন, তখন কিছু মানুষ তার মরণোত্তর বিচার দাবি করছেন। এদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।”

মতবিনিময় অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন অধ্যাপক এমাজউদ্দীন আহমদ, বিশ^বিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের চেয়ারম্যান আবদুল মান্নান, নর্থ সাউথ বিশ^বিদ্যালয়ের উপাচার্য আতিকুল ইসলাম, বেসরকারি বিশ^বিদ্যালয় সমিতির চেয়ারম্যান শেখ কবির, ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি এনামুল হক শামীম, পুলিশের মহাপরিদর্শক এ কে এম শহীদুল হক, র‌্যাবের মহাপরিচালক বেনজির আহমেদ ও ঢাকা মহানগর পুলিশের কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া প্রমুখ।