শুক্রবার, ২৪ আগস্ট ২০১৯, ৮ ভাদ্র ১৪২৬

‘পড়তে এসেছি, মরতে নয়’

প্রকাশিতঃ বুধবার, এপ্রিল ১১, ২০১৮, ১২:০৯ অপরাহ্ণ

একুশে ডেস্ক : কবি সুফিয়া কামাল হল শাখা ছাত্রলীগ সভাপতি ইফফাত জাহান এশার হাতে ছাত্রী নির্যাতনের ঘটনাকে কেন্দ্র করে গভীর রাতে আবার উত্তপ্ত হয়ে উঠেছিল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়। এ সময় আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা ‘নিরাপদ ক্যাম্পাস চাই’, ‘পড়তে এসেছি, মরতে নয়’, ‘হলে হলে অত্যাচার বন্ধ করো বন্ধ করো’ ইত্যাদি স্লোগান দেয়।

গতকাল মঙ্গলবার রাত দেড়টার দিকে ঢাবির সুফিয়া কামাল হলে এসব স্লোগান দেন বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা। উদ্ভিদবিদ্যা বিভাগের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী মোরশেদা বেগমকে হল ছাত্রলীগ সভাপতি ইফফাত জাহান এশা ডেকে নিয়ে মারধর ও নির্যাতনের পর এই উত্তেজনাকর পরিস্থিতি বিরাজ করে।

এ ঘটনায় এশার বহিষ্কারের দাবিতে ছাত্রীরা বিক্ষোভে ফেটে পড়েন। একপর্যায়ে প্রক্টর অধ্যাপক গোলাম রব্বানী দ্রুত ঘটনাস্থলে গিয়ে ছাত্রীদের শান্ত করার চেষ্টা করেন এবং এশাকে হলের আবাসিক শিক্ষক হেফাজতে নেন।

এদিকে ছাত্রীদের নির্যাতনের ঘটনা শোনার পর ক্যাম্পাসজুড়ে মিছিল শুরু করে ছাত্ররা। জিয়াউর রহমান হলসহ কয়েকটি হলে বের হতে বাধা দিলে একপর্যায়ে গেটের তালা ভেঙে বেরিয়ে আসেন ছাত্ররা।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, জসীমউদদীন হল, বঙ্গবন্ধু হল, বিজয় একাত্তর হল থেকেও ছাত্ররা গেটের তালা ভেঙে রাস্তায় নেমে আসেন। অন্যদিকে ছাত্রীরা হলের ভেতরে বিক্ষোভ শুরু করেন এবং তালা ভেঙে বের হয়ে আসার চেষ্টা করেন। টিএসসি, শহীদ মিনারসহ কয়েকটি জায়গায় ছাত্ররা বিক্ষোভ ও মিছিল করেন। এদিকে ছাত্রী হলের নিরাপত্তায় পুলিশ নিয়োজিত রয়েছে বলে জানা গেছে।

ঘটনার সত্যতা পাওয়ায় কবি সুফিয়া কামাল হল শাখা ছাত্রলীগ থেকে ইফফাত জাহান এশাকে তাৎক্ষণিকভাবে দল থেকে বহিষ্কারের বিবৃতি দেন ছাত্রলীগ সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ ও সাধারণ সম্পাদক এস এম জাকির হোসাইন।

এদিকে শৃঙ্খলাভঙ্গের অভিযোগে এশাকে প্রথমে হল থেকে ও পরে বিশ্ববিদ্যালয় থেকেও বহিষ্কার করা হয়েছে বলে জানান ঢাবি প্রক্টর অধ্যাপক গোলাম রব্বানী।

ইফফাত জাহান এশা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের দর্শন বিভাগের মাস্টার্সের শিক্ষার্থী।

একুশে/এএ