সোমবার, ১৬ ডিসেম্বর ২০১৯, ২ পৌষ ১৪২৬

রাস্তা পারাপারে মোবাইলফোনে কথা নয়

প্রকাশিতঃ শনিবার, মার্চ ২৩, ২০১৯, ৫:৫০ অপরাহ্ণ

চট্টগ্রাম : নিরাপদ সড়ক নিশ্চিত, ট্রাফিক আইন ও সড়কে দুর্ঘটনারোধে জনসাধারণকে অবহিত করতে মাঠে নেমেছে ডিসি ট্রাফিক বিভাগ উত্তর, চট্টগ্রাম।

শনিবার (২৩ মার্চ) নগরের নিউমার্কেট ও টাইগারপাস এলাকায় এমন দৃশ্যপট দেখা গেছে। এসময় ট্রাফিক বিভাগ উত্তরের ডেপুটি কমিশনার হারুনুর রশিদ হাজারী উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে গত বৃহস্পতিবার পুলিশের একক চেষ্টায় দুর্ঘটনা রোধ সম্ভব নয় বলে জানিয়েছিলেন সিএমপি কমিশনার। পুলিশ ও জনগণের সম্মিলিত চেষ্টার ফলে দুর্ঘটনা রোধ করা যাবে বলে মনে করেন তিনি। নিরাপদ সড়কের আন্দোলনে নেতৃত্ব দেওয়া শিক্ষার্থীদের সঙ্গে মতবিনিময় সভা এমন কথা বলেছেন সিএমপি কমিশনার।

ট্রাফিক আইন মেনে নিরাপদ সড়ক নিশ্চিত করতে ট্রাফিক বিভাগের এমন উদ্যোগের কথা জানিয়ে হারুনুর রশিদ হাজারী বলেন, জনসাধারণ ও গাড়িচালকদের ট্রাফিক আইন বিষয়ে সতর্ক করা আজকের অভিযানের মূললক্ষ্য। তাছাড়া প্রতি শনিবার নগরে ট্রাফিক সপ্তাহ পালনের মধ্যদিয়ে লাইসেন্স-ফিটনেসবিহীন গাড়িগুলোকে মামলা দেওয়া হচ্ছে। সচেতন করা হচ্ছে রাস্তা পারাপারের সময় কানে মোবাইলফোন অথবা হেডফোনে কথা না বলার জন্য। পাশাপাশি গাড়ি চালানোর সময় মোবইলফোনে কথা বলা থেকে বিরত থাকা, চলন্ত গাড়িতে উঠানামা থেকে বিরত থাকা, পায়ে হেঁটে চলাচলের সময় ফটপাত ব্যবহার করা ইত্যাদি বিষয়ে সচেতন করা হচ্ছে। এছাড়া চালকদের গাড়ি চালানোর সময় সিটবেল্ট ব্যবহার, গাড়ির প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সঙ্গে রাখা এবং যত্রতত্র পাকিং না করা ও হরণ বাজানো থেকে বিরত থাকার পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে।

হারুনুর রশিদ হাজারী মনে করেন, আমরা একটু সচেতন হলে দুর্ঘটনা অনেকাংশে কমে যাবে। এছাড়া গাড়ির মালিক, মোটরসাইকেল আরোহী এবং অভিভাবক ও শিক্ষকদের প্রতিও কিছু দিকনির্দশনা থাকে। পর্যায়ক্রমে নগরের বিভিন্ন এলাকায় এই কার্যক্রম চলবে।

একুশে/এসসি

মহান বিজয় দিবস ২০১৯ উপলক্ষে একুশে পত্রিকা কর্তৃক একটি বিশেষ সংখ্যা প্রকাশের উদ্যেগকে স্বাগত জানাই। বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদের পক্ষ হতে উক্ত প্রকাশনার সাথে সংশ্লিষ্ট সকলকে জানাই-

বিজয় দিবসের শুভেচ্ছা

একটি সুখী, সমৃদ্ধ, ক্ষুধা ও দারিদ্র স্বপ্নীল ও ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার অঙ্গীকার এবং সন্ত্রাসমুক্ত পরিবেশ প্রতিষ্টার প্রত্যয় নিয়ে বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদ নিজস্ব উন্নয়ন কর্মসূচি এবং ২৮ টি ন্যস্ত বিভাগের বিভাগীয় কার্যক্রমের সমন্বয় সাধনসহ নিম্নবর্ণিত কার্যদি গ্রহণ ও বাস্তবায়ন করছেঃ

১) শিক্ষা
২) স্বাস্থ্য সেবা
৩) কৃষি
৪) মৎস্য ও প্রাণি সম্পদ
৫) ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প
৬) যোগাযোগ
৭) পানীয় জল ও স্যানিটেশন
৮) সমবায় ও সমাজ সেবা কার্যক্রম
৯) ক্রীড়া ও সংস্কৃতি কর্মকান্ড
১০) স্থানীয় পর্যটন
১১) আইসিটি সেক্টর উন্নয়ন এবং
১২) মানব সম্পদ উন্নয়ন ইত্যাদি।

একটি উন্নত, সমৃদ্ধ, আধুনিক ও সম্প্রীতিত মডেল জেলা হিসেবে বান্দরবানকে গড়ে তোলাই হলো আমাদের দৃঢ় অঙ্গীকার-

ক্য শৈ হ্লা
চেয়ারম্যান
বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদ
বান্দরবানান