মঙ্গলবার, ১৮ জানুয়ারি ২০২২, ৫ মাঘ ১৪২৮

মে মাসে ঝড়-বৃষ্টি, দাবদাহ সবই থাকতে পারে

প্রকাশিতঃ শুক্রবার, মে ৬, ২০১৬, ৪:২৬ অপরাহ্ণ

rainপ্রচণ্ড তাপপ্রবাহ শেষে প্রশান্তির বৃষ্টির পরশে মে মাসের শুরুটা স্বস্তি নিয়ে নিয়ে এসেছে জনজীবনে। কিন্তু মাসের বাকি সময়টা কেমন যাবে—এই প্রশ্ন অবশ্য সবার মনে ঘুরপাক খাচ্ছে। আবহাওয়া অধিদপ্তরের মে মাসের জন্য দেওয়া পূর্বাভাস অবশ্য সেই ঔৎসুক্যের কিছুটা হলেও উত্তর দিয়েছে। তাদের পূর্বাভাস বলছে, মে মাসে বৃষ্টিপাত স্বাভাবিক পরিমাণে হবে। তবে এই মাসে বঙ্গোপসাগরে একটি নিম্নচাপ সৃষ্টি হতে পারে। এটি ঘূর্ণিঝড়েও রূপ নিতে পারে।

তা ছাড়া এ মাসে দেশের উত্তর, উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলে এবং মধ্যাঞ্চলে দুই থেকে তিনটি তীব্র তাপপ্রবাহ এবং দেশের অন্যত্র তিন থেকে চারটি মৃদু থেকে মাঝারি কালবৈশাখী আঘাত হানতে পারে। তবে শুধু কালবৈশাখী আর বৃষ্টি হবে তা নয়, মাসের শেষের দিকে দেশের উত্তর-পূর্বাঞ্চলে পাহাড়ি ঢল এবং হঠাৎ বন্যা হতে পারে।
এদিকে গত দুই দিনে এক লাফে রাজধানীর সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছয় ডিগ্রি সেলসিয়াস কমেছে। তবে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা এখনো অপরিবর্তিত, ৩৬ ডিগ্রির ঘরেই আছে। তবে এই তাপমাত্রা দুপুরে মাত্র কয়েক ঘণ্টার মতো রাজধানীতে ছিল। গতকাল ​রোববার ​বিকেল থেকে রাজধানীতে প্রায় ৬০ কিলোমিটার বেগে ঝোড়ো হাওয়া বয়ে যায়। এতে রাজধানীর উত্তরা, মিরপুর ও ধানমন্ডি এলাকার বেশি কিছু গাছ​ ভেঙে পড়েছে।

 

আবহাওয়া অধিদপ্তরের বিশ্লেষণ বলছে, ঝড়-বৃষ্টির দাপটে ২৬ দিন ধরে চলা দাবদাহটির ত্রাহি অবস্থা। আজ দেশের তিন-চারটি স্থানে কিছুটা তাপের দাপট থাকলেও তা আরও ম্রিয়মাণ হবে। আবহাওয়ার রাজত্বে প্রতিষ্ঠা হবে মেঘ–বৃষ্টির দাপট। সারা দেশে তাপমাত্রা এক থেকে চার ডিগ্রি কমতে পারে। আজ দেশের বিভিন্ন স্থানে সর্বনিম্ন ৮ ও সর্বোচ্চ ৬০ কিলোমিটার বেগে ঝোড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। কিছু কিছু স্থানে এর চেয়েও বেশি অর্থাৎ কালবৈশাখী বয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।