২৭ জুন ২০১৯, ১২ আষাঢ় ১৪২৬, বুধবার

চলন্ত বাসে চবি ছাত্রীকে যৌন হয়রানি: চালক ৩ দিনের রিমান্ডে

প্রকাশিতঃ শনিবার, এপ্রিল ১৩, ২০১৯, ৫:৫২ অপরাহ্ণ


চট্টগ্রাম: চলন্ত বাসে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের এক নারী শিক্ষার্থীকে যৌন হয়রানি করার অভিযোগে মামলা দায়ের করা মামলায় গ্রেপ্তার হওয়া চালক বিপ্লব দেবনাথকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৩ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছে আদালত।

শনিবার চট্টগ্রাম মহানগর হাকিম সরওয়ার জাহান এই আদেশ দিয়েছেন বলে জানান কোতোয়ালী থানার ওসি মোহাম্মদ মহসীন।

তিনি বলেন, বিপ্লবকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৭ দিনের রিমান্ডের আবেদন জানানো হয়। শুনানি শেষে আদালত ৩ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন।

এর আগে গতকাল শুক্রবার রাতে নগরের অক্সিজেন এলাকা থেকে বিপ্লব দেবনাথকে গ্রেপ্তার করা হয়। পাশাপাশি ঘটনায় ব্যবহার করা গাড়িটি (চট্টমেট্টো-জ ১১-১১২০ ) জব্দ করা হয়েছে। ভুক্তভোগী মেয়েটি চালককে শনাক্ত করেন।

বৃহস্পতিবার বিকেলে নগরের স্টেশন রোড এলাকায় বাসের হেলপার ও চালকের ‘যৌন হয়রানি’ থেকে বাঁচতে চলন্ত বাস থেকে লাফ দেন বলে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি প্রথম বর্ষের এক ছাত্রী অভিযোগ করেন। এ ঘটনায় শুক্রবার বিকেলে নগরের কোতোয়ালী থানায় নারী ও শিশুনির্যাতন আইনে ওই ছাত্রী নিজে বাদি হয়ে মামলাটি দায়ের করেন।

এর আগে শুক্রবার দুপুরে ‘লাফ দিয়ে বাস-সহকারির যৌন হয়রানি থেকে বাঁচলেন চবি ছাত্রী’ শিরোনামে একুশে পত্রিকায় একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। এর প্রেক্ষিতে কোতোয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ মহসীন স্বউদ্যোগে একুশে পত্রিকার সহযোগিতায় ভুক্তভোগী ও তার পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে যোগাযোগ করেন।

ওসি মহসীন ভুক্তভোগী ছাত্রীর শতভাগ নিরাপত্তা নিশ্চিত করে অপরাধীদের গ্রেফতার ও শাস্তির আশ্বাস দিলে ভুক্তভোগী ছাত্রীটি তার বাবা ও পরিবারের সদস্যদের নিয়ে শুক্রবার বিকেল ৩টার দিকে কোতোয়ালী থানায় হাজির হন। এবং পুলিশের সহযোগিতায় অজ্ঞাত বাসটির হেলপার ও চালককে আসামি করে মামলা করেন।

প্রসঙ্গত, চবির অর্থনীতি প্রথম বর্ষের ওই ছাত্রী বৃহস্পতিবার (১১ এপ্রিল) বিকেলে ক্লাস শেষ করে আনুমানিক ৩ টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয় ১ নং গেইট হতে ৩ নং বাসে ওঠেন। বাসটি নগরের রিয়াজুদ্দিন বাজার এলাকায় পৌঁছালে ভুক্তভোগী ছাড়া সকল যাত্রী একে একে নেমে গেলে তিনি একা হয়ে যান। এসময় হঠাৎই বাসটি তার রুট পাল্টে স্টেশন রোডের দিকে চলতে শুরু করে।

তখন ভুক্তভোগী মেয়েটি নিরাপত্তার স্বার্থে বাস ড্রাইভারকে বাস থামাতে বললে হঠাৎই বাসের হেলপার তার দিকে ধেয়ে যায় এবং তার গলায় ওড়না পেঁচিয়ে শ্বাসরোধ করার চেষ্টা করে। সেসময় দম বন্ধ হয়ে আসলে মেয়েটি আত্মরক্ষার্থে তার হাতে থাকা মোবাইল দিয়ে হেলপারটিকে আঘাত করে চলন্ত বাস থেকেই লাফ দেয়। পরে এক রিক্সাওয়ালার সহযোগিতায় শরীরে আঘাতের চিহ্ন নিয়ে বাসায় ফিরেন। ঘটনার সময় বাসের ড্রাইভারটিও ‘মেয়েটাকে ধর ধর’ বলে হেলপারকে উৎসাহ জোগায়।