শনিবার, ২৪ আগস্ট ২০১৯, ৯ ভাদ্র ১৪২৬

মেয়রের আধুনিক কসাইখানা নির্মাণের উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছেন রিফ লেদার পরিচালক

এবার আঁধার কাটবে চট্টগ্রাম চামড়া শিল্পের

প্রকাশিতঃ রবিবার, জুলাই ১৪, ২০১৯, ৯:৩৪ অপরাহ্ণ

চট্টগ্রাম : চট্টগ্রামে আধুনিক কসাইখানা নির্মাণে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের (চসিক) মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীনের উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছেন চট্টগ্রামের বিশিষ্ট চামড়া রপ্তানীকারক প্রতিষ্ঠান রিফ লেদারের পরিচালক মো. মোখলেছুর রহমান।

রোববার (১৪ জুলাই) একুশে পত্রিকার সঙ্গে বিশেষ সাক্ষাৎকারে চসিকের এমন উদ্যোগকে স্বাগত জানানোর পাশাপাশি চসিকের মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীনকে অভিনন্দন জানান।

মোখলেছুর রহমান বলেন, চট্টগ্রামের চামড়াড়গুলো বিশ্বের বাজারে রপ্তানী করতে আমাদের মতো ব্যবসায়ীদের অনেক ঝামেলায় পড়তে হয়। এর প্রধান কারণ হলো, অনভিজ্ঞ কসাইয়ের মাধ্যমে গরু-মহিষের চামড়া ছাড়ানো। তারা চামড়া ছাড়ানোর সময় চামড়া ছিদ্র করে ফেলে। তাছাড়া ছুরি দিয়ে চামড়া ছাড়াতে গিয়ে চামড়ার সাথে মাংস রেখে দেয়। পরে ট্যানারি ব্যবসায়ীরা গড়ে চামড়াগুলো কিনে বিপদে পড়ে।

কেননা চামড়া শিল্পের সঙ্গে জড়িত প্রতিষ্ঠানগুলো কখনো ট্যানারি থেকে গড়ে চামড়া কিনে না। ২শ’ পিস চমাড়া কিনলে সেখান থেকে বাছাই করা হয়। যে চামড়াগুলো মোটামুটিভাবে সাইজের মধ্যে পড়ে এবং যে গুলোর মধ্যে ছিদ্র এবং মাংস থাকে না সেই চামড়াগুলোই আমরা কিনে থাকি। পরে আমরা আমাদের পদ্ধতিতে ক্যামিকেল ব্যবহার করে ভালোভাবে বাজারজাত করণের জন্য উপযোগী করে তুলি। বলেন মোখলেসুর রহমান।

তিনি দুঃখ প্রকাশ করে বলেন, বিশ্ববাজারে চামড়ার দিয়ে প্রস্তুতকৃত পণ্যের চাহিদা কমে গেছে। এছাড়া ঢাকার চামড়া ফুটে ৫০ টাকা দরে বিক্রি হলেও ছিদ্রের কারণে চট্টগ্রামের চামড়ার দাম ফুটে ২০ টাকা দরেও বিক্রি করা হয় না। অন্যদিকে বিদেশি বায়াররা চট্টগ্রামের চামড়াগুলোকে রিজেক্ট করে দেয়। এমতাবস্থায় এই চামড়া শিল্পকে রক্ষা করতে হলে আমাদের সকলকে সচেতন হতে হবে।

তিনি বলেন, বর্তমানে চট্টগ্রামে আধুনিকমানের কোনো কসাইখানা নেই। আধুনিকমানের কসাইখানা স্থাপিত হলে চামড়া বাজারজাতকরণে কোনো অসুবিধা হবে না। বরং সুফল আসবে। পাশাপাশি নিরাপদ মাংস পাওয়া যাবে।

কোরবানীর আগে জনসচেতনতা বৃদ্ধি করতে অভিজ্ঞ কসাইদের নিয়ে সেমিনারের আয়োজন করা হবে বলে জানান তিনি।

প্রসঙ্গত, নগরের চান্দগাঁও পুরাতন থানার ৮৮ শতক জায়গায় প্রাণিসম্পদ অধিদফতরের আর্থিক সহযোগিতায় আধুনিক কসাইখানা নির্মাণের উদ্যোগ নিয়েছে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন (চসিক)। প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের লাইভস্টক অ্যান্ড ডেইরি ডেভলপমেন্ট প্রজেক্টের (এলডিডিপি) আওতায় এ প্রকল্প বাস্তবায়ন হবে।

মোট প্রকল্প ব্যয় ৪ হাজার ২৮০ কোটি টাকা ধরা হয়েছে। চট্টগ্রামে খরচ হবে ৮৩ কোটি টাকা। এ প্রকল্পে ১ ঘণ্টায় একসঙ্গে ১০০ পশু জবাই করা সম্ভব হবে। জবাই ছাড়া সব প্রক্রিয়া সম্পন্ন হবে স্বয়ংক্রিয়ভাবে। পশুর রক্ত দিয়ে পোল্ট্রি ফিড হবে।

একুশে/এসসি/এটি