সোমবার, ৩০ মার্চ ২০২০, ১৬ চৈত্র ১৪২৬

সহস্র মুখোশধারি মানুষগুলো আরো একটি মুখোশ পরার তাড়নায় ব্যস্ত!

প্রকাশিতঃ সোমবার, মার্চ ৯, ২০২০, ৯:০৩ অপরাহ্ণ

প্রতীকী ছবি

মু. দিদারুল ইসলাম হিমেল : চট্টগ্রাম শহরের চৌমুহনীতে লোকাল টেম্পুর জন্য অপেক্ষা করছি, অনেকক্ষণ অপেক্ষার পরে টেম্পুতে একটি সিট পাওয়া গেল। পাশে বসা এক ভদ্রলোক প্রতি মুহূর্তেই যেন আমার কাছ থেকে দূরত্ব বজায় রাখার চেষ্টা করছে, মুখে মাস্ক পরিহিত ভদ্রলোক যেন মনে করছেন গাড়ির অন্যান্য সকলেই করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত!

মুখে মাস্ক পরা থাকায় তার চোখেমুখে যেন বিজয়সুলভ আভা ফুটে ওঠেছে। গাড়িতে অন্যান্য সকলেই যে যার মতন করে বসে আছেন। ভদ্রলোকের অতিরিক্ত নড়াচড়া এবং নাক সিঁটকানো দেখে সকলেই কৌতূহলে তার দিকে তাকিয়ে আছে। মনে হচ্ছে গাড়িতে থাকা মানুষগুলোর মধ্যে শিক্ষিত এবং সচেতন একমাত্র তিনিই!

করোনা ভাইরাস এখনো পর্যন্ত বাংলাদেশে সরাসরি প্রবেশ করেনি। যে তিনজন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর সন্ধান পাওয়া গেছে তাদের মধ্যে দুজন বিদেশ থেকে আসা এবং অপর নারী সদস্যটিও ওই প্রবাসী পরিবারের।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, করোনা ভাইরাস থেকে রক্ষা পেতে হলে শুধুমাত্র মাস্কপরা জরুরি নয়। বরং পরিস্কার-পরিচ্ছন্ন থাকার পাশাপাশি সচেতনতাই সবচেয়ে বেশি গুরুত্বপূর্ণ। কিন্তু সচেতনতা দেখাতে গিয়ে অতিরিক্ত আদিখ্যেতা নিশ্চয়ই দৃষ্টিকটু দেখায়। যে সকল চিকিৎসক করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর চিকিৎসা সেবা দিচ্ছেন তারাও যদি আজকে টেম্পুতে দেখতে পাওয়া ভদ্রলোকটির মতো হতেন তাহলে সম্ভবত অবশিষ্ট একজন রোগীও এই দুরারোগ্য ব্যাধি থেকে ফিরে আসতে পারতেন না।

অতএব, আমি বলব শুধুমাত্র ব্যক্তিগত নয়, সম্মিলিতভাবে দেশের এবং দেশের মানুষের কথা ভাবুন। ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধে যাওয়া বীর সৈনিকদের মতো সমগ্র মাতৃভূমিকে রক্ষায় এগিয়ে আসুন। ভালবাসুন দেশকে, দেশের প্রতিটি জীব এবং উপাদানকে।