সোমবার, ২৫ মে ২০২০, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭

মশার কামড়ে রক্তাক্ত শিল্পী

প্রকাশিতঃ মঙ্গলবার, এপ্রিল ২১, ২০২০, ৪:১২ অপরাহ্ণ

একুশে প্রতিবেদক : চট্টগ্রামের শিল্পী দুরবীন ব্যান্ডের প্রতিষ্ঠাতা সৈয়দ শহীদুল ইসলাম প্রকাশ শহীদের বসবাস রাজধানীর ধানমন্ডি এলাকায়। চলমান করোনা-সঙ্কটের মুখে গত ৪ এপ্রিল ব্যবসা-সংগীত কর্মযজ্ঞ ছেড়ে চলে আসেন জন্মশহর চট্টগ্রাম।

পরিবারের সদস্যদের নিয়ে আছেন অনেকটা হোম কোয়ারেন্টাইনে। কিন্তু নিভৃতে থেকেও যেন স্বস্তি নেই। নতুন জ্বালা মশার উপদ্রব। প্রায় প্রতিদিনই মশার কামড়ে গুম ভাঙছে, মশার উৎপাতে স্বভাবিকভাবে ঘরে থাকাও কঠিন হয়ে পড়েছে।

এবার উৎপাত কিংবা কামড় বসিয়েই ক্ষান্ত হয়নি মশার দল, শিল্পীর পায়ে উপর্যুপরি কামড় বসিয়ে পায়ে দাগ এঁকে দিযেছে, রক্তাক্ত করেছে পা। মশার কামড়ে রক্তাক্ত শিল্পী এ পরিস্থিতিতে ফেসবুকের আশ্রয় নিয়েছেন। মশার কামড়ে রক্তাক্ত পায়ের ছবি পোস্ট দিয়ে তার সংশয়, শংকার কথা তুলে ধরেছেন।

মঙ্গলবার (২১ এপ্রিল) দুপুর ১ টার দিকে  ফেসবুকে দেওয়া পোস্টে তিনি লিখেন, কা্উকে ছোট অথবা পলিটিকাল ইস্যু তৈরি করার জন্য পোস্ট দিইনি, একান্তই ব্যক্তিগত।আমার একটা ব্যক্তিগত পোস্ট যদি এই করোনার কঠিন সময়ে আমাদের এলাকায় মশার উপদ্রব কমায়, তবে মনে শান্তি পাবো…।

শিল্পী শহীদ জানান, গত ৪ এপ্রিল চট্রগ্রাম আসার পর একটা মশা নিয়ে পোস্ট দিয়েছিলাম। মনে করেছিলাম দায়িত্যে নিয়োজিত সংস্থাগুলোর পক্ষ থেকে কিছু একটা করবে। চট্টগ্রামের সাথে ভিডিও কনফারেন্সে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী মশার ব্যাপারে ব্যবস্থা নিতে বললে চট্রগ্রাম থেকে কনফার্ম করাও হয়েছিলো ১০ দিনের ভিতর মশা থাকবেনা…।

প্রতিদিন সকালে উঠে বসার সাথে মশার কামড়, সারাদিন টেনশনে…. ডেংগু হবে নাকি? এমনিতেই করোনার টেনশন তার উপর ডেংগু যদি হয়, কোনো হসপিটাল ভর্তিও নিবে না-এমন শংকার কথা তুলে ধরে শিল্পী শহীদ সবার সুস্থতা ও ভালো থাকা কামনা করেন।

প্রসঙ্গত, শিল্পী শহীদ তার সংগীতপ্রেমী কয়েকজন বন্ধুকে নিয়ে ২০০২ সালের ১২ ডিসেম্বর দূরবীন ব্যান্ড গঠন করেন। প্রতিষ্ঠার দুই বছর পর ২০০৬ সালে ব্যান্ডের নামের সঙ্গে মিল রেখে প্রকাশিত হয় প্রথম অ্যালবাম ‘দূরবীন’। এরপর আরও দুটি অ্যালবাম প্রকাশিত হয়। এ পর্য়ন্ত তাদের ৫টি একক অ্যালবাম এবং দুটি মিশ্র অ্যালবাম প্রকাশিত হয়।

দূরবীন ব্যান্ডটি ৫ম সিটিসেল-চ্যানেল আই অ্যাওয়ার্ডস (সেরা ব্যান্ড) বিজয়ী এবং ১১তম মেরিল প্রথম আলো পুরস্কার লাভ করতে সক্ষম হয়। তোমায় ছেড়ে, বহুদূরে যাব কোথায়? এক জীবনে এত প্রেম পাব কোথায়? গান গেয়ে বাংলাদেশের সংগীত জগতে ব্যাপক খ্যাতি পাওয়া শিল্পী শহীদের বাড়ি চট্টগ্রাম শহরের মোহরায় কর্ণফুলী নদীর পাশে ঘেঁষে। সংগীতসাধনার পাশাপাশি শহীদ ঢাকায ওয়েল গ্রুপের ব্যবসার দেখাশোনা করেন। তিনি গ্রুপটির পরিচালক। ওয়েল গ্রুপের প্রতিষ্ঠাতা ও চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুচ ছালাম শহীদুল ইসলামের বড় ভাই।