মঙ্গলবার, ৩০ নভেম্বর ২০২১, ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৮

একটি গন্ধমের লাগিয়া

প্রকাশিতঃ রবিবার, মে ৯, ২০২১, ১১:১৮ পূর্বাহ্ণ

শান্তনু চৌধুরী : 

‘আজ পড়বি ঈদের নামাজ রে মন সেই সে ঈদগাহে

যে ময়দানে সব গাজী মুসলিম হয়েছে শহীদ

ও মন রমজানেরই রোজার শেষে এলো খুশির ঈদ’

জাতি নানা বিষয় নিয়ে চিন্তিত। হেফাজত নেতা মামুনুলের মানবিক বিয়ে থেকে বসুন্ধরা গ্রুপের এমডি সায়েম সোবহান আনভীরের অমানবিক বিয়ে। এর মধ্যে যুক্ত হয়েছে বিল গেটস আর মেলিন্ডার ৭ বছরের প্রেম আর ২৭ বছরের দাম্পত্য জীবনের পর বিচ্ছেদ। বিশ্বের অন্য দেশের মানুষের চিন্তা থাকুক বা না থাকুক বাঙালির এ নিয়ে বিষম চিন্তা। বিশেষ করে যেখানে মিলিয়ন মিলিয়ন টাকার বিষয় জড়িত রয়েছে। তাই ঈদের এই সপ্তাহে এসব চিন্তা বাদ দিয়ে আসুন মনটাকে খুশি করতে কিছু মজার মজার তথ্য শুনি।

১. পুরুষ যতটুকু না আকর্ষণীয় তার চেয়ে পাঁচগুণ বেশি নিজেকে আকর্ষণীয় দেখে আয়নায়।

২. মেয়েদের মাসিক চক্রের মতো পুরুষের এক ধরনের হরমোনাল চক্র পরিবর্তিত হয় যার ফলে তার হতাশা, উদ্বেগ বা অন্যান্য ইমোশনাল আচরণ নিয়ন্ত্রিত হয়।

৩. পুরুষের হৃদয়ে প্রবেশ করতে হলে নিচ থেকে শুরু করতে হয়।

৪. নারীরা কখনো হাঁটু গেড়ে ছেলেদের প্রস্তাব করে না। কারণ ছেলেরা ভুল বুঝে তার নিজের জিপার খুলে ফেলতে পারে এই ভয়ে।

৫. পুরুষ ২৫ বছর বয়সে ফুটবল খেলে, ৪০ বছরে টেনিস খেলে, ৬০ হলে গলফ খেলে। বয়স যত বাড়ে বল ততো ছোট হতে থাকে।

৬. পুরুষ হকিতে টেস্টিকুলার গার্ড পরতে শুরু করে ১৮৭৪ সালে (ক্রিকেটে কবে থেকে জানি না)। আর মাথায় হেলমেট পরতে শুরু করে ১৯৭৪ সাল থেকে। ১০০ বছর লেগেছে তাদের বুঝতে যে অন্ডকোষ রক্ষার মতো ব্রেনরক্ষাও জরুরি।

৭. একটি মেয়ে প্রতিদিন গড়ে ৬২ বার হাসলেও প্রতিদিন পুরুষ হাসে মাত্র ৮ বার ।

৮. পুরুষ হলো ব্লু-টুথের মতো, আপনি যখন কাছে থাকবেন তখন সে আপনার (নারী) সাথে সংযুক্ত থাকবে আর আপনি যখন দূরে তখন সে অন্য ডিভাইস খুঁজতে থাকবে কানেক্টেড হবার জন্য।

৯. ৯৯% পুরুষ পর্ন দেখে কিন্তু ১% অস্বীকার করে।

১০. যৌনসঙ্গমের সময় পুরুষের হার্টঅ্যাটাক হবার সম্ভাবনা খুব ক্ষীণ তবে তার স্ত্রীদের সাথে প্রতারণার সময় হার্ট অ্যাটাকের সম্ভাবনা প্রবল।

১১. ১৯৬২ সাল থেকে জেমস বন্ড ১৫০ জন পুরুষ হত্যা করেছে, ৪৪ জন মেয়ের সাথে বিছানায় গেছে। এই ৪৪ জনের মধ্যে আবার তিন-চতুর্থাংশ যারা বন্ডকে হত্যা করতে চেয়েছিল।

১২. ক্যালিফোর্নিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের এক স্টাডিতে দেখা গেছে যে, মাত্র ৫ মিনিট একজন সুন্দরী মেয়ের সাথে কথা বলতে পারলে একজন পুরুষের মানসিক স্বাস্থ্য ভালো থাকে।

১৩. একজন মেয়ে যখন বলে-আমি ৫ মিনিটের মধ্যে রেডি হচ্ছি’ আর যখন একজন পুরুষ বলে-আমি ৫ মিনিটের মধ্যে বাসায় আসছি …দুটোই সমান।

এবার পড়ুন গাঁজাগাছ সম্পর্কে মজার কিছু তথ্য। গাঁজাগাছের স্ত্রী-পুরুষ আছে। দুটোতেই ফুল হয়। তবে পুরুষগাছের মাদক ক্ষমতা নেই। স্ত্রী গাছের পুষ্পমঞ্জুরি শুকিয়ে গাঁজা তৈরি করা হয়। এই গাছের কা- থেকে যে আঁঠালো রস বের হয় তা শুকালে হয় চরস। চরস নাকি দুর্গন্ধময় নোংরা কাঁথা গায়ে জড়িয়ে খেতে হয়। স্ত্রী গাঁজা গাছের পাতাকে বলে ভাং। এই পাতা দুধে জ্বাল দিয়ে তৈরি হয় ভাঙের শরবত। অন্য নাম সিদ্ধির শরবত। এই শরবত ভয়ংকর হেলুসিনেটিং ড্রাগ।

আয়তন বা শক্তিতে হাতির সঙ্গে ইঁদুরের কি কোনও তুলনা চলে? একেবারেই চলে না। কোথায় একটা পুঁচকে ইঁদুর আর কোথায় বিশালাকৃতির হাতি। কিন্তু জানেন কি তুলনা যখন শুক্রাণুর সাইজ নিয়ে হয় তখন ওই বিশাল বপুর হাতিকেই ১০ গোল দেয় এক রত্তি মুষিকপ্রবর! ইঁদুরের স্পার্ম লম্বায় হাতির স্পার্মের থেকে অনেক বড়।

অবাক হচ্ছেন? এখনও কিন্তু আপনার চমকানোর পালা শেষ হয়নি! জানেন কি ক্ষুদে মাছি ড্রসোফিলার স্পার্ম লম্বায় জীবজগতে সব থেকে বড়। আসলে কোনও পশু আকারে যত বড় হয়, তার শুক্রাণু লম্বায় ততটাই ছোট হয়। প্রকৃতির এই মজার উলটপুরানের পিছনে বেশ কয়েকটা কারণ রয়েছে। ছোট্ট ছোট্ট জীবদের মেটাবলিজিমের হার অনেক বেশি। ফলে তারা সহজেই অনেক বড় বড় স্পার্ম তৈরি করতে পারে।

ঈদের ছুটিতে বন্ধুরা অনেকে মিলিত হলে তাস নিয়ে বসতেই পারেন। তাস খেলতে পারেন না, এমন মানুষের সংখ্যা খুব বেশি নয়। ব্রিজ, ব্রে, টোয়েন্টি নাইন না হোক, রংমিলন্তি অন্তত খেলতে পারেন প্রত্যেকেই। সলিটেয়ার এই মুহূর্তে জনপ্রিয়তম কম্পিউটার গেমগুলির মধ্য একটি। তাছাড়া, তাসের সাংস্কৃতিক গুরুত্বও কম নয় মানবসভ্যতায়। প্রবাদ-প্রবচন, জোকস, ম্যাজিক- কোথায় না ছড়িয়ে রয়েছে তাস! তাস-সংক্রান্ত এমন কিছু বিষয় রয়েছে, যা অতিদক্ষ তাস-খেলুড়ে পর্যন্ত না-ও জানতে পারেন। তাসের উদ্ভব প্রাচ্যদেশে। ১২ শতক নাগাদ এই খেলার প্রচলন হয় বলে জানা যায়। প্রাচীন চিনে হাড় বা হাতির দাঁতের তাসের প্রচলন ছিল।

স্পেড-এর টেক্কাটিকে অন্যরকম দেখতে কেন? ফ্রান্স এক সময়ে তাস খেলা এতটাই জনপ্রিয় হয় যে, স্পেড-এর টেক্কার উপরে কর বসিয়ে বিপুল আয় করতে থাকে ফরাসি সরকার। তাই তাকে আলাদা করে চিহ্নিত করার প্রয়োজন ছিল। এখন তাস-প্রস্তুতকারক সংস্থাগুলি এই বিশেষ তাসটিতে তাদের সংস্থার তথ্য ছাপে। তাসের মাত্র দুটি রং। লাল আর কালো। তারা নাকি দিন ও রাত্রির প্রতীক। তাসের চারটি স্যুট নাকি ফোর সিজনস-এর প্রতীক। হার্ট বসন্তের, ক্লাব গ্রীষ্মের, ডায়মন্ড ফল-এর, স্পেড শীতের প্রতীক। আর ডেক-এ তাসের সংখ্যা ৫২। বছরে ৫২টি সপ্তাহই থাকে। কুইন অফ স্পেড গ্রিক যুদ্ধের দেবী অ্যাথিনার প্রতীক। তাসের চার রাজা নাকি ইতিহাসের চার বিখ্যাত নৃপতি। স্পেড- কিং ডেভিড। ক্লাব আলেকজানডার দ্য গ্রেট, হার্ট- শার্লামেন এবং ডায়মন্ড-জুলিয়াস সিজার।

তাস খেলার কথা বাদ দিয়ে এবার আলোচনা গন্ধম ফল নিয়ে। আল্লাহর নিষিদ্ধ ফলের নাম গন্ধম। বিবি হাওয়ার প্ররোচনায় আদম এই নিষিদ্ধ ফল খেয়েছিলেন। তবে সমস্যা হলো গন্ধম আরবি শব্দ না। ফারসি শব্দ। পবিত্র কোরান শরীফে কোথাও এই ফলের নাম নেই। হাদিসেও নেই তাহলে? যিশুখ্রিস্টের জন্মের চারশ’ বছর আগে নিষিদ্ধ এই বৃক্ষ সম্পর্কে লিখলেন ইনক। তাঁর বইয়ে বলা হয়েছে, এই গাছ দেখতে অবিকল তেঁতুল গাছের মতো। তবে সুগন্ধযুক্ত। গ্রিক মিথ বলছে, নিষিদ্ধ বৃক্ষের ফল হলো বেদানা। রাব্বি নেসেমিয়া বলছে, নিষিদ্ধ বৃক্ষের ফল হলো আঙুর। প্রাচীন চিত্রকলায় আদম সম্পর্কে বলা হয়েছে, ইভ এবং সর্পের সঙ্গে যে ফলটি দেখা যায় তার নাম আপেল।

শান্তনু চৌধুরী সাংবাদিক ও সাহিত্যিক